চট্রগ্রাম রেলওয়ের বিভাগীয় কর্মকর্তাদের চাঁদপুরে বার্ষিক পরিদর্শন

শওকত আলী : বাংলাদেশ রেলওয়ের বাৎসরিক পরিদর্শনের অংশ হিসেবে গর্ভমেন্ট ইনিস্পেকশন অব বাংলাদেশ রেলওয়ের(জিআইবিআর) পার্থ সরকার এর নেতৃত্বে চট্রগ্রাম রেলওয়ের সকল পর্যায়ের বিভাগীয় উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নিয়ে রেলওয়ের বার্ষিক সরকারী পরিদর্শন করেছেন লাকসাম-চাঁদপুর রেলপথ,স্টেশন ভবন,রেলওয়ের ব্রীজসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ন স্থাপনা।

পার্থ সরকার চাঁদপুর আসার সাথে সাথে তাকে বাংলাদেশ রেলওয়ে শ্রমিকলীগ চাঁদপুর শাখার পক্ষ থেকে সভাপতি মাহবুবুর রহমান,ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক মো: ওহিদুল ইসলাম ও হেডটিএক্যআর জাকির হোসেনসহ অন্যান্য নেতাকর্মীরা ফুলেল শুচ্ছো জানান।

সরকারী পরিদর্শক বাংলাদেশ রেলওয়ে (জিআইবিআর) পার্থ সরকার তার সাথে থাকা চট্রগ্রাম বিভাগীয় কর্মকর্তাদের নিয়ে বৃহস্পতিবার(৬অক্টোবর) সকাল ৯টায় লাকসাম থেকে চাঁদপুরের উর্দ্দেশে পরিদর্শন শুরু করেন। পথিমধ্যে তিনি চিতশী রোড,শাহারাস্তি,মেহের, হাজীগঞ্জ,মধুরোড,শাহাতলী,চাঁদপুর কোর্টস্টেশন ও চাঁদপুর স্টেশনসহ গুরুত্বপূর্ন স্টেশন সমূহ,রেলপথ,রেলওয়ের ব্রীজ সমূহসহ বিভিন্ন রেলওয়ের স্থাপনা পরিদর্শন করে বিকেল ৪টায় চাঁদপুর এলাকায় প্রবেশ করেন।

পরিদর্শন কালে তিনি রেলওয়ের একটি স্পেশাল ট্রেন পরিদর্শন কার, সাথে ৫টি মটর ট্রলিযোগে চাঁদপুরে আসেন। তিনি চট্রগ্রাম বিভাগীয় রেলওয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে নিয়ে রেলওয়ের বড় স্টেশন মোলহেডটিও পরিদর্শন করেন।

তিনি চাঁদপুর এসে অবস্থান নিলে চাঁদপুর স্টেশনের পক্ষ থেকে চাঁদপুর-লাকসামসহ দেশের বিভিন্ন রেলপথে ট্রেন ভাড়ানোর জন্য দাবী জানানো হয়। এ সময় বাংলাদেশ রেলওয়ে শ্রমিকলীগ চাঁদপুর শাখার পক্ষ থেকে সভাপতি মাহবুবুর রহমান,ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক মো: ওহিদুল ইসলাম ও হেডটিএক্যআর জাকির হোসেনসহ অন্যান্য নেতাকর্মীরা চাঁদপুর রেলওয়ে এলাকায় গভীর নলকুপ স্থাপন,ট্রেন যাত্রীদের জন্য সুপ্রিয় পানির ব্যবস্থা,রেলওয়ে কর্মচারীদের বাসস্থান(কোয়াটার) মেরামতসহ বিভিন্ন দাবী লিখিত ভাবে তুলে ধরেন।

এ সময় জিআইবিআর পার্থ সরকার সকলদাবী দাওয়া শুনে এ সব ব্যাপারে অচিরেই ব্যবস্থা গ্রহন করবেন বলে আশ্বাস প্রদান করেন।

তিনি চাঁদপুুরের ওয়াসফিট পরিদর্শন শেষে আরো জানান,চাঁদপুরে দীর্ঘ বছর দরে অকেজো হয়ে পড়ে থাকা রেলওয়ে ওয়াসফিসটি দ্রুত চালু করবেন বলে আশ্বাস দিয়ে যান।

পরিদর্শন কালে জিআইবিআর এর সাথে ছিলেন, চট্রগ্রাম বিভাগীয় প্রকৌশলী ডিএন-১,আবু হানিফ, বিভাগীয় পরিবহন কর্মকর্তা ডিটিও তারেক মোহাম্মদ ইসরাত,বিভাগীয় সংকেত ও টেলিযোগাগ প্রকৌশলী তর্ন্নয় পাটওয়ারী, বিভাগীয় যাত্রিক প্রকৌশলী লোকো মো: জাহিদ হাসান, বিভাগীয় যাত্রিক প্রকৌশলী ক্যারেজ সজিব হাসান নিধর, রেলওয়ে বিভাগীয় কমান্ডেন্ট (আরএনবি) চট্টগ্রাম সত্যজিৎ দাস, সহকারি নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ মোরসালিন,রেলওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মরাদ উল্লাহ্ বাহার,চাঁদপুর স্টেশন মাস্টার শোয়েবুর শিকদার, এসএসএই(ওয়ে) লাকসাম মোঃ লিয়াকত আলী মজুমদার,টিআই লাকসাম মহিউদ্দিন পাটওয়ারী, এসএসএই (পূর্ত) লাকসাম আতিকুর রহমান আখন্দ,হেড টিএক্যআর জাকির হোসেন,বিদ্যুৎ প্রকৌশলী হারুন-অর-রশিদ,হেডবুকিং মো: আব্দুর সালাম সরকার, নিরাপত্তা ইনচার্জ মো: খোরশেদ আলম।

পরে তিনি চাঁদপুরস্থ রেলওয়ে অফিসার রেস্ট হাউজে মধ্যহ্নভোজ শেষে চাঁদপুর বড় স্টেশন এলাকার স্টেশন ভবন, ওযাসফিট,বিদ্যুৎ অফিস,যাত্রীদের বিশ্্রামাগারসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ন স্থাপনা পরিদর্শন শেষে রাতে চাঁদপুর থেকে পরিদর্শন শেষ করে চাঁদপুর ত্যাগ করেন। তিনি সকালে ঢাকা থেকে চট্রগ্রাম মেইলট্রেনে লাকসাম এসে সকাল ৯টায় পরিদর্শন শুরু করে গুরুত্বপূর্ন স্টেশন ভবন,রেলপথ ও রেলওয়ে ব্রীজ গুলো পরিদর্শন শেষ করেন।

একই রকম খবর