চাঁদপুর আহমাদিয়া ফাজিল মাদরাসায় পরীক্ষার্থীদের মিলাদ ও দোয়া

স্টাফ রিপোর্টার : টানা দ্বিতীয়বারের মতো চাঁদপুর জেলা পরিষদের নির্বাচিত চেয়ারম্যান এবং ঐতিহ্যবাহী জেলা প্রশাসন চাঁদপুর আহমাদিয়া ফাজিল মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা সদস্য আলহাজ্ব ওচমান গনি পাটওয়ারী বলেছেন, আমাদের সার্বিক শিক্ষা ব্যবস্থাতেই ধর্মীয় শিক্ষার গুরুত্ব ও তাৎপর্য রয়েছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আমাদের পবিত্র সংবিধানে ধর্মীয় শিক্ষাকে প্রাধান্য দিয়েছেন।

তিনি বলেন, আমাদের দেশের মাদরাদা গুলো এখন পিছিয়ে নেই। মাদরাসা পাস করা শিক্ষার্থীরা আজ সমাজ ও রাষ্ট্রের অনেক গুরুত্বপূর্ণ পদে থেকে দেশ ও সমাজের সেবায় নিয়োজিত রয়েছেন। তিনি বলেন, পরীক্ষায় পাস করে শুধু সনদ অর্জন করাই শিক্ষা নয়, একাডেমিক শিক্ষার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের আদবকায়দা, শিষ্টাচার এবং নৈতিক শিক্ষা অর্জন করতে হবে।

১ নভেম্বর মঙ্গলবার সকালে চাঁদপুর ঐতিহ্যবাহী আহমাদিয়া ফাজিল মাদরাসার আলিম পরীক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে মিলাদ ও দোয়া অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথাগুলো বলেন। মাদরাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ইকবাল হোসেন পাটোয়ারীর সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে ওচমান পাটওয়ারী আরো বলেন, মেধাবী শিক্ষার্থী হলেই ভালো বলা যায় না, যতোক্ষণ না ঐ শিক্ষার্থীর মানুষ হিসাবে আরো গুণাবলীগুলো না থাকে। এর মধ্যে নৈতিক ও ধর্মীয় শিক্ষা অন্যতম।

তিনি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, তোমরা নিজেদের গড়ে তুলবে ভালো মানুষ হিসাবে। এই মাদরাসা আমাদের অনেক প্রাচীন মাদরাসা। এর ঐতিহ্য অনেক। এটি রক্ষা করো। আল্লাহ এবং আল্লাহর রাসুলকে স্বরণ করে আসছে পরীক্ষা সম্পন্ন করো। তোমাদের সাফল্যই আমাদের গৌরব। তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা মাদরাসা শিক্ষা ব্যবস্থাকে অনেক দূর এগিয়ে নিয়ে গেছেন এবং তা অব্যাহত রেখেছেন।

আলোচনায় আরো অংশ নেন আরবী প্রভাষক আব্দুল হামিদ ইংরেজি প্রভাষক শেফাতুন্নাহার ও মোঃ মীর হোসেন, গ্রন্থাগার প্রভাষক মোহাম্মদ উল্লাহ সহকারি শিক্ষক ( ইংরেজি) ফরহাদ হোসেন, অভিভাবক সদস্য আনোয়ার হোসেন বাবুল, আলিম পরীক্ষার্থী মোঃ হুমায়ুন কবির, আলিম ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী মোঃ রফিকুল ইসলাম প্রমুখ।

আলোচনা শেষে মিলাদ ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন চাঁদপুর আহমাদিয়া ফাজিল মাদরাসার উপাধ্যক্ষ মিজানুর রহমান।

একই রকম খবর