চাঁদপুর পিবিএস-২ অধীন অনেক গ্রাম এখনো অন্ধকারে

চাঁদপুর খবর রির্পোট: ঘূর্নিঝড় সিত্রাং এর কারনে চাঁদপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর আওতায় ৪নং শাহমাহমুদপুর ইউনিয়ন, ৬নং মৈশাদী ইউনিয়ন, ৫নং রামপুর ইউনিয়নের ৮গ্রাম ৩দিন যাবৎ অন্ধকারে রয়েছে ।

গত ২৪অক্টোবর (মঙ্গলবার) থেকে সিত্রাং আঘাত হানলে বিদ্যুত সারা দেশের ন্যায় চাঁদপুর সদরের শাহমাহমুদপুর, মৈশাদী ও রামপুর ইউপি’র ৮গ্রামের বিদ্যুৎ সংযোগ বিছিন্ন হয়।

ঘূর্নিঝড়ের ৩দিন চলে গেলেও এখনও বিদ্যুৎ বিহীন রয়েছে ৩ইউনিয়নের সহস্রাধিক পরিবার। দৈনন্দিন জীবনযাত্রায় পড়েছে এর প্রভাব।

চাঁদপুর পল্লী বিদ্যুত সমিতি-২ ডিজিএম দৈনিক চাঁদপুর খবর পত্রিকাকে জানান আমাদের মহামায়া তে যে লাইন আছে সেখানে কাজ করতেছি। মৈশাদী ইউনিয়নের হামানকর্দি গ্রামে বিদ্যুতের কাছ চলছে। আশারাখি সকল এলকায় আমরা দ্রুত পুনরায় বিদ্যুত সংযোগ দিতে পারব। শাহতলীতেও আমাদের পল্লী বিদ্যুতের জনবল কাজ করছে।

দৈনিক চাঁদপুর খবর পত্রিকার পক্ষ থেকে চাঁদপুর পল্লী বিদ্যুত সমিতি-২ এর মহামায়া জোনাল অফিসে ফোন করলে তাদের সরকারি ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

এদিকে, বিদ্যুৎ না থাকায় ৪নং শাহমাহমুদপুর ইউনিয়ন, ৬নং মৈশাদী ইউনিয়ন, ৫নং রামপুর ইউনিয়নের কিছু অসাধু ব্যবসায়ী মোমবাতিসহ জ্বালানী সরঞ্জাম এর মূল্য দ্বিগুন হাকাচ্ছে ক্রেতাদের কাছ থেকে। শাহতলী বাজারসহ স্থানীয় বাজারগুলো মোমবাতি সংকটে পড়েছে । দোকানে মোমবাতি পাচ্ছে না । দোকানীর মোমবাতি সংকট দেখাচ্ছে।

এদিকে এ রিপোট লেখা পযন্ত গতকাল বুধবার রাত ১০টার দিকে শাহতলী গ্রাম,শাহতলী বাজারসহ কয়েকটি গ্রামে বিদ্যুৎ সংযোগের খবর পাওয়া গেছে ।বাকী গ্রামের খবর পাওয়া যায়নি ।

একই রকম খবর