চেয়ারম্যান রনি পাটোয়ারীর বিরুদ্ধে ভিজিডি কার্ডের দূর্নীতির অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার : চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদের ৩নং কল্যাণপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাখাওয়াত হোসেন রনি পাটোয়ারীর বিরুদ্ধে এবার ভিজিডি কার্ডের দূর্নীতির অভিযোগ করেছেন উক্ত ইউনিয়নের ৩৭ জন নারী।

গত ১৮ সেপ্টেম্বর চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক বরাবরে ৩৭জন নারী স্বাক্ষরিত অভিযোগ পএে এই দূর্নীতির প্রতিকার চেয়ে এ আবেদন জানান।

যার অনুলিপি চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, উপ পরিচালক জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা ও উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার বরাবরে দেওয়া হয়েছে।

অভিযোগ পএে উল্লেখ করে বলা হয় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা অনুযায়ী ২০২১ -২২ ইং অর্থ বছরে চাঁদপুর সদর উপজেলার ৩ নং কল্যাণপুর ইউনিয়নের ১০০ টি পরিবারের জন্য ১০০টি ভিজিডি কার্ডের বরাদ্দ দেওয়া হয়।ফলে উক্ত পরিবার গুলো এই কার্ডের বিনিময়ে মাসে ৩০ কেজি করে চাল সরকারের পক্ষ থেকে উপহার পাওয়ার কথা।

কিন্তু এই কার্ড প্রাপ্তির জন্য সরকারের নির্দেশনা সংশ্লিষ্ট পরিবার গুলো অনলাইনে আবেদন করেন। অনলাইনের আবেদনের প্রেক্ষিতে উক্ত ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ১০০ টি পরিবার কে ১০০ টি ভিজিডি কার্ডের জন্য নির্ধারণ করেন।

এই ১০০ টি পরিবারের মধ্যে ৩৭ টি পরিবারের ৩৭ জন নারী গত ১৭ মাসে ১ ফোটা চাউল তো দূরের কথা ভিজিডি কার্ডের রং টা কি রকম বা ভিজিডি কার্ড টি কী, তাও তাঁরা তাদের চোখে দেখেননি।

এই বিষয়ে ভুক্তভোগী পরিবার গুলো গত ১৭ মাসে উক্ত ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন মেম্বারদের কাছে গিয়ে ও এ বিষয়ে কোনো প্রতিকার না পেয়ে এই পরিবার গুলো জেলা প্রশাসকের বরাবরে অভিযোগ করে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করার আহবান জানান।

এদিকে এই অনিয়মের বিরুদ্ধে চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) সাথে কথা হলে তিনি বলেন, ফাহমিদা হকের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, অভিযোগের ঘটনাটি সত্য। এই ঘটনা আমরা বের করেছি। শুধু তাই নয়, ভিজিডি কার্ডের উপকার ভোগীদের মাস্টার রুলের তালিকা করে চাল বিতরণ করছিলো।

পরবর্তীতে আমি নিজে বিষয়টি মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মাধ্যমে তদন্ত করে দেখেছি ৩৭ জন কার্ডধারী কার্ড পায়নি। পরে আমি চাল বিতরণ বন্ধ করে দেই। অতএব এটি সত্য ঘটনা এই বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

একই রকম খবর