জেলা পরিষদ নির্বাচনে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী এডঃ জাফর ইকবাল মুন্না

বিশেষ প্রতিনিধি : চাঁদপুর জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করেছে এডঃ জাফর ইকবাল মুন্না। তবে তিনি আওয়ামী লীগ দলীয় নমিনেশন দিলে এ পদে নির্বাচন করবেন।

দলের বাইরে গিয়ে নির্বাচন করবেন না। গতকাল তিনি তাঁর ফেইসবুকে এ ঘোষণা দেন। তিনি পাশাপাশি তাঁর পারিবারিক পরিচয় তুলে ধরেছেন। নিম্নে তা উপস্থাপন করা হলো।

এডভোকেট জাফর ইকবাল মুন্না পিতা: সুবেদার (অব:) আবদুর রব( আটিলারী বিভাগ)। তিনি বলেন, আমার বাবা পাকিস্তান থেকে চাঁদপুর এসে আওয়ামী লীগ নেতাদের সাথে কথা বলে চাঁদপুরে মুক্তিযাদ্ধাদের চাঁদপুর মহিলা কলেজে ট্রেনিং শুরু করেন এবং চাঁদপুর জেলা সহ লাকসাম এবং রায়পুর উপজেলার দায়িত্ব নেন।

আমার বাবা চাঁদপুর , লাকসাম এবং রায়পুরে সকল যুদ্ধের নেতৃত্ব দেন। আমার বাবা রব বাহিনির নাম শুনলে হানাদার বাহিনী পালিয়ে যেতেন।যুদ্ধের শেষ সময়ে চাঁদপুরের ৭ টি ব্যাংকের চাবি আমার বাবার কাছের ছিল পরে দেশ স্বাধীন হওয়ার সরকারের কাছে জমা দেন।

চাঁদপুরে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ করেন এবং প্রতিষ্ঠাতা কমান্ডার ছিলেন (১৯৭২-৭৬) পরবর্তিতে ১৯৯০ সালের পর মুক্তিযাদ্ধা সংসদের মৃত্যুর আগ পর্যন্ত বিভিন্ন দায়িত্বে ছিলেন। সারা জীবন সততার সাথে জীবন যাপন করে ২০০৮ সালে চাঁদপুর সরকারী হাসপাতাল চিকিত্সাধীন আবস্হায় মারা যায়।।

আমার রাজনৈতিক পরিচয় ঃ
বাংলাদেশ ছাত্রলীগ এর ১৯৮৭ সালে সভাপতি ঢাকা কটন মিলস হাই স্কুল , ১৯৯০ সালে চাঁদপুর সরকারী কলেজে ৯০ এরশাদ বিরোধী আন্দোলনে সরাসরি অংশ গ্রহন করেন, ১৯৯১ সালে চাঁদপুর সরকারী কলেজ সংসদ নির্বাচনে কমনরুম সম্পাদক নির্বাচন করি।

ঐ সময় জেলা ছাত্রলীগের জেলার কমিটির সদস্য হই, ১৯৯৫ সালে জেলা কমিটির দপ্তর সম্পাদক, ১৯৭ সালে জেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য ছিলাম, ১৯৯৮ সালে চাঁদপুর শহর ছাত্রলীগের আহবায়ক হই, ২০০০ সালে জেলা ছাত্রলীগের প্রথম যুগ্ন সাধারন সম্পাদক হই, ২০০২ সালে লেয়াকত -বাবু ভাই কমিটির নির্বাহী কমিটির সদস্য হই, ২০০৫ সালে, ২০০৬ সালে দুইবার কারাগারে যাই, ২০০১-২০০৮ সাল পর্যন্ত ১১ মামলার আসামি হই, ২০০৬ সালে জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের যুগ্ন-আহবায়ক হই, সভাপতি: আমরা মুক্তিযাদ্ধার সন্তান কমান্ড, চাঁদপুর জেলা, সভাপতি: বঙ্গঁবন্ধু সাংকৃতিক জোট , চাঁদপুর জেলা, বর্তমানে কার্যনির্বাহী সদস্য, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, বর্তমানে তিনি শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনির সাথে রাজনৈতিক কাজ করি এবং ঢাকায় অবস্হান করছি।

 

একই রকম খবর