বোগদাদ বাসের আঘাতে শিক্ষিকা নাজমা আক্তার নিহতের ঘটনায় মামলা

চাঁদপুর খবর রির্পোট : ঘাতক বোগদাদ বাসের আঘাতে চাঁদপুর সদর উপজেলার শাহতলী জোবাইদা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষিকা নাজমা আক্তার নিহতের ঘটনায় চাঁদপুর মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

শাহতলী জোবাইদা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নয়ন চন্দ্র দাস বাদি হয়ে বোগদাদ বাসের বিরুদ্ধে এই মামলা দায়ের করেন।

গত ২১ নভেম্বর বুধবার তিনি চাঁদপুর মডেল থানায় হাজির হয়ে বোগদাদ বাস যার নং ঢাকা মেট্রো ব-১৪-৯৭৬০ এর চালককে আসামি করে ২০১৮ সালের সড়ক পরিবহন আইনের ১০৫ ধারায় এ মামলা দায়ের করেন। মামলা নং ৪৭ তারিখ ২১ নভেম্বর ২০২২ ইং। মামলা হওয়ার পর থেকে ঘাতক চালক পলাতক রয়েছে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই সেলিম উল্লাহ বলেন, দূর্ঘটনার পরপরই বোগদাদ বাসটি আটক করে চাঁদপুর পুলিশ লাইন্সে নিয়ে যাওয়া হয়। মামলাটির তদন্ত শুরু হয়েছে। গাড়ির চালককে অচিরেই গ্রেফতার করা হবে।

এ ব্যাপারে চাঁদপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহাম্মদ আবদুর রশিদ দৈনিক চাঁদপুর খবরকে বলেন, দুর্ঘটনার পর ঘটনাস্থল থেকে বাসটি জব্দ করা হয়েছে। তবে এর চালক পালিয়ে গেছেন। এ ঘটনায় মডেল মামলা করা হয়েছে। পরবতীতে নিহতের পরিবারকে আথিক সহযোগিতা করবে জেলা পুলিশ ।

মামলার এজহার সূত্রে জানা যায়, চাঁদপুর সদর উপজেলার উত্তর শাহতলী জুবাইদা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় এর সহকারি প্রধান শিক্ষক নাজমা আক্তার (৫৫) স্বামী-ফারুকুল ইসলাম পিতা-মোঃ রুহুল আমিন খান,সাং বাজনাখাল,থানা-হাজিগঞ্জ, জেলা-চাঁদপুর, বর্তমানে বিষ্ণুদী, থানা ও জেলা চাঁদপুর গত ২১ নভেম্বর সোমবার উনার কর্মস্থল শাহতলী জুবাইদা হাই স্কুলে সিএনজিতে করে যাওয়ার পথে চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক মহাসড়কের ঘোসেরহাট সংলগ্ন বটতলী এলাকায় বিপরীত দিক থেকে আসা বোগদাদ বাসটি সাজোরে আঘাত করে। এতে সিএনজিতে থাকা একমাত্র যাত্রী শিক্ষিকা নাজমা আক্তারকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে দ্রুত ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন ।

এ বিষয়ে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও দৈনিক চাঁদপুর খবর পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ও প্রকাশক সোহেল রুশদী জানান, অটোরিকশায় চড়ে চাঁদপুর থেকে বিদ্যালয়ের দিকে যাচ্ছিলেন। পথে সদর উপজেলার ঘোষেরহাট এলাকায় পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা চাঁদপুরগামী বোগদাদ পরিবহনের একটি বাস ওই অটোরিকশাকে সামনে থেকে চাপা দেয়। এতে অটোরিকশাটি দুমড়েমুচড়ে গেলে নাজমা আক্তার গুরুতর আহত হন।

তৎক্ষণাৎ মুক্তার হোসেন নামে আরেক অটোরকিশাচালক নাজমা আক্তারকে উদ্ধার করে চাঁদপুর সদর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক সুশান্ত বিশ্বাস তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। আমরা বোগদাদ বাসের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছি। এর কঠিন বিচার চাই। বোগদাদ বাসটি পুলিশ তাৎক্ষনিক জব্দ করেছে ।

বিদ্যালয় সূত্রে জানা যায় নাজমা আক্তার অত্র বিদ্যালয়ে প্রথম সহকারি শিক্ষক হিসাবে যোগদান করেন ১৫আগস্ট ১৯৮৯সালে ও সহকারি প্রধান শিক্ষক হিসাবে যোগদান করেন ২২জুন ২০১৩ সালে। তিনি অত্র বিদ্যালয়ে প্রায় ৩৩বছর সুনাম ও দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন।

এসময় চাঁদপুর সদর মডেল থানা প্রাঙ্গনে বিদ্যালয়ের শিক্ষকগণ, ছাত্রীগণ কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন এবং ঘাতক বোগদাদ বাসের বিচার দাবি করেন।

একই রকম খবর