মতলবের চবমুকন্দিতে প্রতিপক্ষের হামলায় তিনজন আহত

মতলব দক্ষিণ প্রতিনিধি : মতলব পৌর এলাকার চরমুকুন্দি গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধে প্রতিপক্ষের হামলায় চারজন আহত হয়েছে। এ ঘটনায় নাসির উদ্দিন মতলব দক্ষিণ থানায় লিখিত অভিযোগ করেন।

হাসপাতাল ও সরজমিনে জানা যায়, গত শুক্রবার (৪ নভেম্বর) চরমুকুন্দি গ্রামের নাসির মিজি তার পৈত্রিক ও ক্রয়সূত্রে এবং একই গ্রামের মৃত চাঁনমিয়ার মেয়ে নাসিমা বেগম গং পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া নিজ দখলীয় জমিতে টিনের বেড়া দেওয়ার কাজ করছিলেন।

ওই সময় তাদের প্রতিপক্ষ দলবল নিয়ে অতর্কিতভাবে হামলা চালিয়ে টিনের বেড়া ভেঙে ফেলেন এবং দেশীয় অস্ত্র ও লাঠি সোটা দিয়ে নাসিমা বেগম, নাসির মিজির ছেলে ইয়ামিন, মেয়ে নাজমা, নূর ইসলামের স্ত্রী আন্না বেগমকে মারধর করে আহত করেন পড়ে আশপাশের লোকজন এগিয়ে তারা পালিয় যায় ।

নাসির মিজি বলেন, চরমুকুন্দি মৌজার সাবেক ৯৫৯ দাগে ৪৮ শতাংশ জমিতে পৈত্রিক সূত্রে এবং ক্ররসূত্রে আমি ১৬ শতাংশ এবং আমার ওপর শরীক নাসিমা বেগম গং ৮ শতাংশ এবং আমার জেঠতো ভাই আবুল হোসেন পৈত্রিক ও ক্রয়সূত্রে ২৪ শতাংশের মালিক ও দখলকার আছি। ৪৮ শতাংশ জমির মধ্যে আমার জ্যাঠাতো ভাই ২৪ শতাংশের মধ্যে বাড়ি করে বসবাস করে আসলেও আমার এবং অপর শরীকদের জায়গাটি খালি পড়েছিল।

শুক্রবার খালি জায়গার চারপাশে বেড়া দিতে গেলে মৃত আব্দুল মান্নান গং এর ছেলে শামীম ও রুবেল, মৃত নুরুল হক মিজির ছেলে আব্দুল বাতেন ও তার ছেলে অন্তর, মোবারক মিজি ও তার ছেলে শিহাবসহ ১০-১২ জন দেশীয় অস্ত্র ও লাঠি সোটা নিয়ে অতর্কিতভাবে হামলা করে টিনের বেড়া ভাঙচুর করে এবং উপস্থিত লোকজনদের পিটিয়ে আহত করে।

হামলায় আহত ইয়ামিন বলেন, আমরা আমাদের জমিতে বেড়া দিচ্ছিলাম, তারা অতর্কিতভাবে হামলা করে আমাদেরকে মারধর করে এবং টিনের বেড়া ভেঙে ফেলে।

স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়, যে জমিতে বেড়া দেওয়া নিয়ে মারধর এবং ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে তা মূলত নাসির নিজেদের দখলে রয়েছে। কিন্তু এই জমির মালিকানা দাবি করে অপর পক্ষের সাথে দীর্ঘদিন ধরে মামলা চলছে।

মতলব দক্ষিণ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সালেহ আহমেদ বলেন, এই ঘটনায় উভয়পক্ষ লিখিত অভিযোগ দিয়েছে। শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য আমরা উভয়পক্ষকে নির্দেশ দিয়েছি।

 

একই রকম খবর