হাইমচরে কৃষি ব্যাংক কর্মকর্তা রুহুল আমিনের বিরুদ্ধে মামলা

হাইমচর প্রতিনিধি: চাঁদপুরের হাইমচর উপজেলায় কৃষি ব্যাংক চরভৈরবী শাখায় কৃষকের ভুয়া কাগজ পত্র তৈরী নামে বেনাম ঋন মঞ্জুর করে নিজেই আত্মসাৎ করেছেন অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় অভিযুক্ত ব্যাংক কর্মকর্তা রুহুল আমিন এর বিরুদ্ধে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ শাস্তিমূলক বিভাগীয় মামলা দায়ের সহ প্রশাসনিক বদলির আদেশ দিয়েছেন।

অর্থ তসরুপ ও আত্মসাৎ অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় রুহুল আমিন এর বিরুদ্ধে শাস্তি মূলক প্রশাসনিক বদলির আদেশ থাকলেও বদলি ঠেকিয়ে রাখার জন্য শাখা ব্যবস্থাপক দীপক সরকার বদলি আদেশ কার্যকর না করার জন্য ছাড় পত্র দিচ্ছেন না বলে অভিযোগ উঠেছে।

গত ২৪ অক্টোবর ২০২২ কৃষি ব্যাংক প্রধান কার্যালয় হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট ডিপার্টমেন্ট -২ এর উপ মহা ব্যবস্থাপক মোঃ আতিকুর রহমান স্বাক্ষরিত পত্র থেকে জানা যায় কৃষি ব্যাংক চরভৈরবী শাখার কর্মকর্তা রুহুল আমিন এর বিরুদ্ধে সরকারি অর্থ তসরুপ, নৈতিকতা বিরোধী কাজ, সহ তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ তদন্তে ১২টি শস্য ঋন বানোয়াট খতিয়ান সৃষ্টি করে, জামিনদারের কলামে জমির প্রকৃত মালিকের স্বাক্ষর না নিয়ে, একই তফসিল ব্যবহার করে একাদিক ব্যাক্তিকে ঋন প্রদান করে, নদী ভাঙ্গন তফসিলে ঋন প্রদান করে, অপ্রাপ্ত বয়স্ক ব্যাক্তিকে ঋন প্রদান করে,

তফসিল ভুয়া দাগ খতিয়ান ব্যবহার করে ১২৮২০০০( বারো লাখ বিরাশি হাজার) টাকা ঋন অনিয়ম, হাইমচর শাখায় ১৫/১২/২০১৮ তারিখে ঋন ফলিও নং ২৪/১১৯ এর ঋন গ্রহীতা পূর্বচরকৃষ্ঞপুর গ্রামের আবু তাহের মুন্সীর নামে বিতরণ কৃত ১২০০০০( একলক্ষ বিশ হাজার) টাকা রুহুল আমিন নিজেই ভোগ করে গুরুতর অনিয়ম সংঘটিত করেছেন বলে সত্যতা প্রমাণিত হওয়ায় দায়েরকৃত বিভাগীয় মামলা মামলা দায়ের হয়।

মামলায় অভিযুক্ত রুহুল আমিন কে সরকারি চাকুরী বিধি মোতাবেক চাকুরী হতে শাস্তি মূলক অব্যাহতি প্রদান কেন করা হবে না মর্মে ১০ কার্যদিবসের মধ্যে আত্মপক্ষ সমর্থন করে লিখিত জবাব চেয়ে, উপযুক্ত জবাব না দিলে বিভাগীয় মামলা একতরফা তার বিরুদ্ধে রায় প্রদান করা হবে বলে নোটিশ প্রদান করা হয়েছে।

এছাড়া গত ৮ নভেম্বর ২০২২ ইং এক পত্রে কৃষি ব্যাংক কুমিল্লা উপ মহা ব্যবস্থাপক মোঃ ফরিদ উদ্দিন প্রশাসনিক কারনে রুহুল আমিন কে চরভৈরবী শাখায় ৩ কার্যদিবসের মধ্যে দায়িত্ব বুঝিয়ে দিয়ে গজরা বাজার যোগদানের আদেশ দেন। অভিযোগ রয়েছে বদলি ঠেকাতে রুহুল আমিন এর অনৈতিক সুবিধার ভাগিদারদের তদবিরে শাখা ব্যবস্থাপক এখনো রুহুল আমিন এর বদলি আদেশ কার্যকর করেনি।

কৃষি ব্যাংক হাইমচর শাখা এবং চরভৈরবী শাখায় দীর্ঘদিন চাকুরি এবং স্থানীয় বাসিন্দা হওয়ায় নামে বেনামে ঋন সুপারিশ করে নিজেই আত্নসাৎ সহ নানন অপকর্মে জড়িত থাকলেও কেউ মুখ খুলতে সাহস পায়নি।

স্থানীয় এলাকাবাসী অভিযোগ করেন উপজেলার কালা চকিদার মোড় এলাকার ক্ষমতাসীন দলের এক বিতর্কিত সাংগঠনিক সম্পাদক, এক বিএনপি নেতা, কায়েকজন চাঁদাবাজ সংবাদ কর্মী, স্থানীয় মাদকসবীর সাথে রুহুল আমিন এর রয়েছে অনৈতিক সখ্যতা, সরকারি চাকুরী জীবি হলেও ব্যাক্তি জীবনে নানান অপকর্মে জড়িত হয়েও অনৈতিক সুবিধাভোগীদের পশ্রয়ে পার পেয়ে যাচ্ছেন। অনৈতিক সুবিধাভোগী ঐ চক্রটি তার রক্ষাকারী হিসেবে চিহ্নিত ।

বিতর্কিত রুহুল আমিন কে শাস্তিমূলক বদলির আদেশ এ ঘটনায় সমগ্র হাইমচর বাসী খুশি হলেও তার অপকর্মের কয়েকজন সঙ্গী বদলি আদেশ ঠেকাতে তদবির করছে বলে গুঞ্জন রয়েছে।

অভিযুক্ত রুহুল আমিন এ বিষয় তার বক্তব্য জানতে চাইলে তিনি কোন বক্তব্য দিত ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন আমার লোক আছে এগুলো কিছুই হবে না।

চরভৈরবী শাখা ব্যবস্থাপক বলেন ১৬ তারিখের পর দেখা যাক কি করা যায়।

 

একই রকম খবর