হাজীগঞ্জের পৌর মেয়রের পক্ষে পৌর পরিষদের সংবাদ সম্মেলন

চাঁদপুর খবর রিপোর্ট : হাজীগঞ্জের পৌর মেয়র আ.স.ম মাহবুব আলম লিপন ও কাউন্সিলর কাজি মনিরের বিরুদ্ধে আনিত মহিলা কাউন্সিলার মিনু আক্তার যৌন হয়রানির শিকার মিথ্যা দাবী করে চাঁদপুর প্রেসক্লাবে শনিবার (৫ নভেম্বর) হাজীগঞ্জ পৌর পরিষদের পক্ষে একটি সংবাদ সম্মেলন করেন।

সেখানে হাজীগঞ্জের পৌর মেয়রের পক্ষে ও পৌর পরিষদের সকল কাউন্সিলরের পক্ষে পৌর পরিষদের প্যাডের মাধ্যমে প্যানেল মেয়র ও ৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ জাহিদুল আজহার তার সাথে ৩জন মহিলা কাউন্সিলরসহ অধিকাংশ কাউন্সিলর একটি সংবাদ সম্মেলন করে ওই ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জ্ঞাপন করেছেন।।

চাঁদপুর প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, প্যানেল মেয়র ও ৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ জাহিদুল আজহার, প্যানেল মেয়র মহসিন বাদল ও ১০নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর বিল্লাল হোসেন।

লিখিত বক্তব্যে প্যানেল মেয়র মোহাম্মদ জাহিদুল আজহার দাবি করেন, জমি সংক্রান্ত বিষয়ে পৌর এলাকার আমান উল্লাহ মৃধা একটি অভিযোগ দায়ের করেন। ওই অভিযোগের বিবাদী হলেন, হাজীগঞ্জ পৌরসভার সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর মিনু আক্তারের বাবা আনোয়ার হোসেন ছিডা।

কিন্তু পরে বেশ কয়েকবার এ বিষয়ে সালিশি বৈঠক ডাকা হলেও বিবাদীরা হাজির না হওয়ায় কাউন্সিলর কাজি মনির ও হাজী মোঃ মনির মেয়র বরাবর সমাধান না হওয়া মর্মে প্রতিবেদন দাখিল করে।

এ নিয়েই নারী কাউন্সিলর মিনু প্রতিশোধের বশবর্তী হয়ে মেয়র মাহবুব আলম লিপন ও কাউন্সিলর কাজি মনিরের বিরুদ্ধে এমন মিথ্যা অভিযোগ করে ফেসবুক ও বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছেন বলে সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেন তিনি।

এ ছাড়া এ ঘটনায় নারী কাউন্সিলর মিনু আক্তার কর্তৃক অভিযুক্ত কাউন্সিলর কাজী মনির বলেন,আমি তার বিরুদ্বে সালিশ বৈঠকের রিপোট প্রকাশ করায় সে ক্ষিপ্ত হয়ে মিথ্যা অভিযোগ তুলেছে। তাকে কোন অনৈতিক প্রস্তাব দেওয়া হয়নি। এ বিষয়ে কাজী মনির একটি জিডি ও নারী কাউন্সিলর মিনু আক্তারের বিরুদ্বে ১ কোটি টাকার মানহানি মামলা করেছেন বলে সংবাদ সম্বেলনে জানিয়েছেন।

অন্যদিকে ১০নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর বিল্øাল হোসেন বলেন, আমিসহ পৌর পরিষদের অনেকে বলেছি ও পৌর সভার সিইও সাহেব তাকে বলেছে,যা’হয়েছে এ গুলো বাদ দিয়ে সমজোতায় আসার জন্য। তার বাবার বিরুদ্বে জমি সংক্রান্ত অনিত অভিযোগসহ সকল বিষয় ঠিক করে দেওয়া হবে। তার পরও নারী কাউন্সিলর মিনু আক্তার বিষয়টি নিয়ে ভাড়া বাড়ি করে যাচ্ছে।

সংবাদ সন্মেলনে অনেকে ১০নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর বিল্øাল হোসেনকে প্রশ্ন করে বলেন, যদি কিছু না হয়ে থাকে তবে তাকে চুপ থাকার জন্য ও তার সকল কথামত সবকিছু হবে কেন বলা হলো। তখন কাউন্সিলর বিল্øাল হোসেন বলেন,পৌরসভার সুনাম অক্ষুর্ন রাখার জন্য তাকে সমজোতার কথা বলা হয়।

তবেই এ সব বিক্ষিপ্ত বক্তব্যের আলোকে প্রতিয়মান হচ্ছে, হাজীগঞ্জ পৌর মেয়রের বিরুদ্বে আনিত নারী কাউন্সিলর মিনু আক্তারের সাথে যেকোন একটি অনাক্ষিত কিছু একটা ঘটনা হয়েছে। এ বিষয়ে প্রকৃত তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহন করা একান্ত প্রয়োজন হয়ে পড়েছে। তা’না হলে এ বিষয়টি নিয়ে বড় ধরনের কিছু একটা ঘটনা ঘটার সম্বাবনা বিরাজ করছে বলে সংবাদ সন্মেলনে অনেকে তাদের মত প্রকাশ করেছেন।

চাঁদপুর প্রেসক্লাব সভাপতি গিয়াস উদ্দিন মিলন এর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক রিয়াদ ফেরদৌস এর পরিচালনায় এ সময় বিভিন্ন প্রশ্নপর্বে বক্তব্য রাখেন, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি কাজী শাহাদাত, সাবেক সভাপতি শহীদ পাটওয়ারী,সাবেক সভাপতি শরীফ চৌধুরী , সাবেক সাধারন সম্পাদক রহিম বাদশা, সোহেল রুশদী,এ এ্ইচ এম আহসান উল্øাহ্, শাহাদাত হোসেন শান্ত, শওকত আলী,আলম পলাশ,তালহা জোবায়ের মো: শরীফুল ইসলাম,মো: ইব্রাহিম রনি প্রমুখ।

এ ছাড়াও স্থানীয় ও জাতীয় গনমাধ্যমের বিভিন্ন পর্যায়ের সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

একই রকম খবর