চাঁদপুরে ফেন্সি হত্যায় অ্যাড. জহিরসহ সকল আসামীর জামিন না-মঞ্জুর

স্টাফ রিপোর্টার : চাঁদপুরে অধ্যক্ষ ফেন্সি হত্যাকান্ডের রহস্য উদ্ঘাটনের জন্য আটক অ্যাড: জহিরুল ইসলাম সহ আটক সকল আসামীকে নিয়মিত হাজিরা ও জামিন শুনানীর জন্য চাঁদপুর আদালতে রবিবার চাঁদপুর জেলা কারাগার থেকে আনা হয়েছিল।

আটক অ্যাড. জহিরুল ইসলাম, স্ত্রী জুলেখা বেগম, তার ভগ্নিপতি ওয়াচকুরুনি ও জুুলেখার চাচাতো ভাই রাকিবুল হাসান কে আদালতে আনা হয়। তাদেরকে বিজ্ঞ বিচারকের সামনে উপস্থাপন না করে নিয়মিত মামলার হাজিরা ও জামিন শুনানী অনুষ্ঠিত হয় বলে জানা যায়।

গত ৪ জুন চাঁদপুর শহরের ষোলঘর পাকা মসজিদ এলাকায় অ্যাড. জহিরুল ইসলামের নিজ বাসায় তার প্রথমা স্ত্রী ফরিদগঞ্জ গল্লাক আদর্শ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ শাহীন সুলতানা ফেন্সি খুন হয়। ওই খুনের ঘটনায় পুলিশ হত্যাকাÐের পর সন্দেহভাজন হিসেবে অ্যাড: জহিরুল ইসলামকে আটক করে। একই হত্যাকান্ডে অ্যাড: জহিরুল ইসলামের দ্বিতীয় জুলেখা বেগম, তার ভগ্নিপতি ওয়াচকুরুনি ও জুুলেখার চাচাতো ভাই ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থী রাকিবুল হাসান কে আটক করা হয়।

ইতিপূর্বে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও সিআইডি পুলিশ যৌথভাবে জুলেখা বেগমকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন। আমলি আদালত চাঁদপুর সদরের দায়িত্বপ্রাপ্ত বিজ্ঞ বিচারক সৈয়দ কায়সার মোশাররফ ইউসুফ জুলেখা বেগমের ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এখন পর্যন্ত জুলেখা বেগমকে রিমান্ডে নেয়নি মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা। অ্যাড: জহিরুল ইসলামের পক্ষে চাঁদপুর জেলা আইনজীবী সমিতির আইনজীবীগণ জামিনের আবেদন করে। এদিকে গত ২৮ আগস্ট ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থী জুলেখার চাচাতো ভাই রাকিব হাসানের পক্ষে ডিনাই পিটিশন আদালতে দাখিল করা হয়। একই সাথে রাকিব তার যোই স্বীকারোক্তিটি আদালতে দিয়েছে তা মিথ্যা ও বানোয়াট হিসেবে উল্লেখ করে আদালতে প্রদান করেছে।

একই রকম খবর

Leave a Comment