আজ চাঁদপুর জেলা বিএনপির সম্মেলন

ইব্রাহিম খান : অবশেষে আজ চাঁদপুর সদর উপজেলার বাগাদী ইউনিয়নের নানুপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে চাঁদপুর জেলা বিএনপি’র বহুল প্রত্যাশিত সম্মেলন। সম্মেলনকে সফল করার লক্ষ্যে ইতিমধ্যে সকল আয়োজন সম্পন্ন করেছে জেলা বিএনপি ও নির্বাচন কমিশন।

তবে হঠাৎ করেই সম্মেলনের দুদিন আগে সম্মেলনের স্থান জেলা শহরের বাহিরে হওয়ায় তৃণমূল নেতাকর্মীদের মধ্যে অনেটা ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। তৃণমূল নেতাকর্মীরা মনে করেন দায়িত্বশীলদের সাংগঠনিক দুর্বলতার কারণেই বহুল প্রত্যাশিত জেলা বিএনপি’র সম্মেলন জেলা শহরের বাহিরে গিয়ে করতে হচ্ছে ।

তবে জেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দ বলেন,প্রশাসনিক কারনে নানা প্রতিকূলতায় সম্মেলন জেলা শহরের বাহিরে গিয়ে করতে হচ্ছে। এবারের সম্মেলন দুই ভাগে অনুষ্ঠিত হবে প্রথমে সকাল ১০ টায় প্রথম অধিবেশন এরপর দুপুর ২.৩০ মিনিট থেকে দ্বিতীয় অধিবেশন শুরু হবে । নির্বাচনে মোট ভোটার সংখ্যা ১৫১৫ জন । সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ও চট্টগ্রাম বিভাগীয় দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা আবুল খায়ের ভূঁইয়া ও সভাপতিত্ব করবেন জেলা বিএনপি’র আহ্বায়ক শেখ ফরিদ আহমেদ মানিক।

এই সম্মেলনে সভাপতি পদে ৩ জন ও সাধারণ সম্পাদক পদে ৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে।

এরা হলেন সভাপতি পদে জেলা বিএনপি’র আহ্বায়ক শেখ ফরিদ আহমেদ মানিক (ছাতা), জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার মমিনুল হক (বাই সাইকেল) ও বিএনপি নেতা এসএম কামাল উদ্দিন চৌধুরী (চেয়ার)।

সাধারণ সম্পাদক পদে জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক অ্যাড. সলিম উল্লাহ সেলিম (মাছ), দেওয়ান মোহাম্মদ সফিকুজ্জামান (আনারস), সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তফা খান সফরি (বই) ও সাবেক যুগ্ম সম্পাদক কাজী গোলাম মোস্তফা (আম)।

সম্মেলনে নির্বাচন কমিশনার হিসেবে থাকবেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার অ্যাড. সামছুল ইসলাম মন্টু এবং সহকারি নির্বাচন কমিশনার হিসেবে রয়েছেন অ্যাড. শরীফ মাহমুদ ফেরদৌস শাহিন ও অ্যাড. রফিকুল হাসান রিপন।

সম্মেলনের সার্বিক বিষয়ে জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাড. সলিম উল্ল্যাহ সেলিম বলেন, প্রশাসনিকসহ নানা প্রতিকূলতার মধ্যেও আমাদের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন। আমাদের সম্মেলন দুটি ভাগে অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম অধিবেশনে যদি কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ ও প্রার্থীরা সমঝোতায় আসতে পারেন তাহলে প্রথম অধিবেশনেই সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক চূড়ান্ত হয়ে যাবে। আর যদি সমঝোতায় আসতে না পারে তাহলে দ্বিতীয় অধিবেশনে ভোটারদের ভোটের মাধ্যমে নেতা নির্বাচন করা হবে।

 

একই রকম খবর