কচুয়ায় গনধর্ষণের শিকার ৭ম শ্রেণির ছাত্রী : আটক ১

ইসমাইল হোসেন বিপ্লব কচুয়াঃ কচুয়ায় সপ্তর শ্রেণির এক মাদ্রাসার ছাত্রী গনধর্ষণের শিকার হয়েছে।

এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে রাছেল (৩০) এক ব্যক্তিকে আটক করেছে কচুয়া থানা পুলিশ। ভিকটিমের পিতা কচুয়া উত্তর ইউনিয়নের তেতৈয়া গ্রামের অধিবাসী মুহিব উল্লাহ।

জানান, কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আমার এক নাতনীকে শুক্রবার দুপুরে খাবার দিয়ে সিএনজি যোগে বাড়ি ফেরার পথিমধ্যে তিন ব্যাক্তি ওই সিএনজিতে উঠে বিভিন্ন ভয়ভীতির মুখে আমার মেয়েকে জিম্মি করে খিড্ডা বাজারের পশ্চিম পাশে রোকসানা বেগমের পরিত্যাক্ত ঘরে নিয়ে যায়। সেখানে নিয়ে তার পরনের উড়না দিয়ে মুখ বেঁধে পালাক্রমে ধর্ষণ করে তারা পালিয়ে যায়। মেয়েটির জ্ঞান ফিরে সে বাড়িতে এসে আমাদেরকে বিষয়টি অবগত করে।

এ ঘটনায় স্থানীয়রা রফাদফা করতে ব্যার্থ হলে রবিবার ভিকটিম ও তার পিতা কচুয়া থানা পুলিশের শরনাপন্ন হয়। পুলিশ ভিকটিমের দেওয়া তথ্যানুসারে তাৎক্ষনিত অভিযান চালিয়ে তেতৈয়া গ্রামের মাদ্রাসা বাড়ির বাকি মিয়ার ছেলে ধর্ষক রাছেল কে আটক করে। অপর দুই ধর্ষক একই গ্রামের মাদ্রাসা বাড়ির নুরুল ইসলামের ছেলে মোহাম্মদ উল্লাহ (৩৫) ও একই গ্রামের খামার বাড়ির আবু মিয়ার ছেলে মো. হাছান (২৫) এলাকা ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে।

কচুয়া থানা ওসি মো. মহিউদ্দিন জানান,ভিকটিমের দেওয়া তথ্যানুসারে আমরা রাছেলকে আটক করেছি। আজ সোমবার ভিকটিমের ডাক্তারি পরীক্ষা করানো সহ তার জবানবন্দি রেকর্ড করা হবে। এ ব্যাপারে কচুয়া থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

 

একই রকম খবর