কচুয়ায় ভিটামাটি ফিরে পেতে চায় অসহায় প্রতিবন্ধি ও তার পরিবার

স্টাফ রিপোর্টার ; চাঁদপুর জেলার কচুয়া উপজেলায় আশ্রাফপুর গ্রামের লিলাম বাড়ির মৃত. ক্বারী আইয়ুব আলীর বড় ছেলে মোশাররফ হোসেনের কাছ থেকে ভিটামাটি ফিরে পেতে চায় ছোট ছেলে অসহায় প্রতিবন্ধি শরীফুল ইসলাম ও তার পরিবার।

জানা যায়, মোশাররফ হোসেন একজন সৌদি আরব প্রবাসী। সেই সুবাদে তিনি দীর্ঘদিন দেশের বাহিরে রয়েছেন। মাঝে মাঝে দেশে আসেন। নিজ বাড়িতে তিনি ১তলা একটি বাড়ি করেছেন। তার অবর্তমানে সবকিছু দেখাশোনা করেন তার স্ত্রী শাহিনা বেগম। আর শরীফুল ইসলাম একজন শারীরিক প্রতিবন্ধি।

শারীরিক প্রতিবন্ধী হওয়ায় বোনেরা তাদের পৈত্রিক সম্পত্তি না নিয়ে শরীফ কে দিয়ে দেয়। তবে বড় ভাই মোশাররফ হোসেন ছোট ভাই শরীফ কে ভিটামাটি থেকে উচ্ছেদের জন্য নানাভাবে ষড়যন্ত্র করছে। গত ২৫ মে নিজ দখলীয় বসতঘর জোর পূর্বক ভেঙ্গে বেদখল করার পায়তারা করায় প্রতিবন্ধি শরীফুল ইসলাম কচুয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। এর পূর্বে পৈত্রিক সম্পত্তি থেকে জোর পূর্বে গাছ কেটে ফেলায় মোশারফ হোসেনের বিরুদ্ধে আশরাফপুর ইউনিয়ন পরিষদে একটি অভিযোগ দায়ের করেরন শরীফুল ইসলাম।

প্রতিবন্ধি শরিফুল ইসলাম জানান, আমি একজন শারীরিক প্রতিবন্ধি। আমার একটা হাত নেই। আমি অসহায় ও গরীব। আমরা দুই ভাই দুই বোন। আমি প্রতিবন্ধি হওয়ায় আমার দুই বোন তাদের সম্পত্তি আমাকে দিয়ে দিয়েছে। তবে আমার বড় ভাই ও ভাবি ছেনি মনিরসহ সন্ত্রাসবাহিনীকে টাকা দিয়ে আমাকে ভিটামাটি থেকে উচ্ছেদ করার জন্য চেস্টা করছে। গত দুই দিন আগেও ছেনি মনির আমাকে এখান থেকে ভালোর ভালো চলে যেতে বলেন।

তা না হলে আমার ভাল হাতটা কেটে নিবেন বলে হুমকি দেয় ও মারধর করে। আমার ঘর-বাড়ি ভেঙ্গে উচ্ছেদ করার পায়তারা চলছে। এর পূর্বে গাছ কেটে ফেলায় ও জোর পূর্বক ঘর ভাংচুর করায় আমি ইউনিয়ন পরিষদ এবং থানায় অভিযোগ দায়ের করেছি। বর্তমানে আমি ও আমার পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছি। আমি প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করছি।

বড় ভাইয়ের স্ত্রী শাহিনা বেগম জানান, শরীফ প্রতিবন্ধি এটাই তার বড় সার্টিফিকেট। সে আমাদের ৮ শতাংশ জমির উপর কিছু অংশে ঘর নির্মাণ করে দখল করে রেখেছে। সে কতটুকু জমির মালিক তা আমাদের দেখার বিষয় না। আমাদের অংশ ছেড়ে দিয়ে সে পেছনে চলে গেলেইতো হয়।

একই রকম খবর