করোনা প্রতিরোধে চাঁদপুরে পুলিশ প্রশাসনের ব্যাপক তৎপরতা

স্টাফ রিপোটার : সরকারের নির্দেশনার আলোকে চাঁদপুরে করোনা প্রতিরোধে ব্যাপক তৎপরতা চালাচ্ছে চাঁদপুর জেলা পুলিশ ও মডেল থানা পুলিশ প্রশাসন। শহরের ঔষধ, কাঁচা মালের দোকান ও সেবামূলক প্রতিষ্ঠান ছাড়া বাকী সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে।

গতকাল ২৫ মার্চ বুধবার সকাল থেকে পুলিশ শহরের পালবাজার গেইট, কালিবাড়ী শপথ চত্বর, ছায়াবানীর মোড়, মিশন রোড, বাসস্ট্যান্ড, ওয়ারলেছ মোড়, বাবুরহাটসহ শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে চেক পোস্ট বসিয়ে অপ্রয়োজনীয় যানবাহন চলাচল না করার জন্য নিদের্শনা দিচ্ছে।

মঙ্গলবার বিকেল থেকে বন্ধ রয়েছে চাঁদপুর-ঢাকা নৌরুটের যাত্রাবাহী লঞ্চ ও ট্রেন। প্রয়োজন ছাড়া কোন যানবাহন চলাচল করছে না।
শহরের বাসিন্দাদেরকে বাসায় থাকার জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে এবং মাইকিং করা হয়েছে। প্রত্যেক নামাজের আগে ও পরে মসজিদ থেকে মাইকিং করে ঘর থেকে বাহির না হওয়ার জন্য নির্দেশ দিচ্ছেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি। গুরুত্বপুর্ণ স্থানে অবস্থান নিয়েছে পুলিশ এবং আইন অমান্যকারীদের সতর্কতামূলক শাস্তি দেয়া হচ্ছে। চাঁদপুর থেকে মালবাহী ট্রাক, পিকআপ ভ্যান ছাড়া অন্য কোন যানবাহন ছেড়ে যায়নি।

চাঁদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. জাহেদ পারভেজ চৌধুরী বলেন, সরকারি নির্দেশনার আলোকে চিকিৎসক, রোগী বহনকারী পরিবহন ও প্রয়োজনীয় বাহন ছাড়া বাকী সকল পরিবহন বন্ধ করা হয়েছে। ব্যবসা প্রতিষ্ঠানও বন্ধ রয়েছে। যারা ঘর থেকে বাহির হয়েছেন তারা একান্ত প্রয়োজনে কাঁচা বাজার কিংবা ঔষধ ক্রয় করার জন্য আসছেন। এর বাহিরে যারা আসছে তাদেরকে বুঝিয়ে সরকারি নিদের্শনা নিশ্চিত করছি।
চাঁদপুর মডেল থানার ওসি মো:নাসিম উদ্দিন জানান, সরকারি নির্দেশনার আলোকে চাঁদপুর শহরে পুলিশী কাযক্রম ব্যাপক হারে বাড়ানো হয়েছে । শহরের ঔষধ, কাঁচা মালের দোকান ও সেবামূলক প্রতিষ্ঠান ছাড়া বাকী সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে।যে আইন অমান্য করছে তার বিরুদ্বে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে । আমরা এ সময়ে জনগনের সহযোগিতা কামনা করছি ।

চাঁদপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মাহমুদ জামান জানান, বুধবার সকাল ১০টা পর্যন্ত জেলায় হোম কোয়ারেন্টিনে রয়েছে ৫৯৪জন। ১৪ দিন অতিক্রময় হওয়ায় স্বাভাবিক জীবন যাপনে এসেছে ১২৯জন। নতুন কেউ হোম কোয়ারেন্টিনে যোগ হননি।

এদিকে জেলার ফরিদগঞ্জ উপজেলা সদরসহ বিভিন্ন বাজারের সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখেছে ব্যবসায়ীরা । একই ভাবে জেলার অপর উপজেলা হাজীগঞ্জ উপজেলা সদরেরও সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে।

একই রকম খবর