চাঁদপুরে ৩০ হাজার করদাতা থেকে ১শ’ ১৮ কোটি টাকা কর আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা

আবদুল গনি : চলতি ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে চাঁদপুরের ৩ টি সার্কেলে কর আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ১১৮ কোটি টাকা ৫০ লাখ টাকা। করদাতার সংখ্যা ৩০ হাজার। প্রতি বছরই চাঁদপুর জেলার ৮ উপজেলার করদাতা ও কর আদায়ের পারমাণ বৃদ্ধি হচ্ছে । বিগত ৩ বছরের পরিসংখ্যান পর্যালোচনা করে দেখা গেছে বর্তমানে করদাতার সংখা দ্বিগুণ হয়েছে।

চাঁদপুরের উপ-কর কমিশনার শাহ আরিফুর রহমান সোমবার (৫ নভেম্বর ) বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

প্রাপ্ত তথ্য মতে, চাঁদপুর সদর ও ফরিদগঞ্জ সার্কেল ১৮, কচুয়া, মতলব উত্তর ও দক্ষিণ এবং হাইমচর সার্কেল ১৯, হাজীগঞ্জ ও শাহরাস্তি হলো সার্কেল ২১ নিয়ে গঠিত।

এ তিনটি সার্কেলে ২০১৫-১৬ অর্থবছরে কর আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৬২ কোটি টাকা এবং আদায় হয়েছে ৪৮ কোটি ৪৩ লাখ টাকা । ২০১৬ -১৭ অর্থবছরে কর আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৭১ কোটি টাকা এবং আদায় হয়েছে ৬১ কোটি ১২ লাখ টাকা ।

২০১৭-১৮ অর্থবছরে কর আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১০১ কোটি ১০ লাখ টাকা এবং আদায় হয়েছে ৭৩ কোটি ২৯ লাখ টাকা । ২০১৮-১৯ অর্থবছরে কর আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১১৮ কোটি ৫০ লাখ টাকা এবং জুলাই, আগস্ট ও সেপ্টেম্বর এ ৩ মাসে আদায় হয়েছে ৯ কোটি ২০ লাখ টাকা ।

চাঁদপুরের উপ-কর কমিশনারে কার্যালয়ের একজন কর্মকর্তা বলেন, ‘ নতুন করনীতি অনুযায়ী সরকারি-বেসরকারি স্কুল,কলেজ ও মাদ্রাসায় কর্মরত শিক্ষকগণের বেতন মাসিক ১৬ হাজার টাকার স্কেলের বেশি বা যাদের মাসিক আয় এর বেশি তাদের আয় কর প্রদান বাধ্যতামূলক। বছরে আড়াই লাখ টাকা পর্যন্ত কোনো কর প্রদান করতে হবে না । আড়াই লাখ টাকা থেকে ৪ লাখ টাকা বা তার ঊর্ধ্বে ১০% হারে আয়কর প্রদান করতে হবে।’

চাঁদপুর জেলার উপ-কর কমিশনার শাহ আরিফুর রহমান বলেন , ‘অতীতের তুলনায় বর্তমানে করদাতা ও কর আদায়ের পরিমাণ প্রতিবছরই বাড়ছে। কর বিভাগের জরিপের কারণে, সরকারি-বেসরকারি শিক্ষকদের কর বাধ্যতামূলক করায়, বিভিন্ন কাজে টিন নম্বর প্রয়োজন বলে এর পরিমান বৃদ্ধি হচ্ছে ।’

এদিকে চাঁদপুরের ক্রীড়া সংস্থার অডিটরিয়ামে ১৪ -১৭ নভেম্বর তিনদিন ব্যাপি করমেলা শুরু হচ্ছে। কর প্রদানের নিয়ম-নীতি ও কর প্রদানে আগ্রহী করে তোলার জন্যেই এ মেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে ।

একই রকম খবর

Leave a Comment