গোবিন্দপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কর্তৃক সরকারি গাছ বিক্রি

ফরিদগঞ্জ ব্যুরোঃ চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে সড়কের পাশ থেকে ছোট-বড় ফলজ-বনজসহ ১৭টি গাছ বিক্রির অভিযোগ পাওয়া গেছে গোবিন্দপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হুমায়ুন কবির হোসেনের বিরুদ্ধে।

সরেজমিনে জানা যায়, গৃদকালিন্দিয়া বাজারের দক্ষিণ ডিসি সরকারি খাল ও সড়কের মাঝখানে সরকারি সম্পত্তির উপর (পানি উন্নয়ন বোর্ড’র আওতাধীন) থেকে প্রায় ১৭টি গাছ উধাও হয়ে যায়।

ফরিদগঞ্জের ¯হানীয় এক ব্যবসায়ীর কাছে গাছগুলো বিক্রি করে ৩১ জুলাই রাতে গাছগুলো কেটে পেলে। বিষয়টি স্থানীয়রা টের পেয়ে প্রশাসনকে জানায়। তবে প্রশাসন ঘটনাস্থলে যাওয়ার পূর্বে কেটে ফেলা গাছের অধিকাংশ বিক্রি করে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। আরো বেশ কয়েকটি কাছের নিছে কাটার চিহ্ন রয়েছে। স্থানীয়রা দাবী করছে প্রশাসন টের পাওয়ার কারনে বাকি কাছ গুলো পুরোপুরি কাটতে পারেনি।

৩ জুলাই বন বিভাগের কর্মকর্তা (ফরেস্টার) কাউছার আহমেদ ঘটার¯হল পরিদর্শন করে ঐ দিন রাতেই হুমায়ুন কবির হোসেনের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ করেন।রূপসা দক্ষিণ ইউনিয়নের বাসিন্দা ও গোবিন্দপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হিসেবে চাকুরিরত আছেন। তার সাথে বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে একাধিকবার মুঠো ফোনে কল ও তার চাকুরিরত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে চলাকালিন সময়ে তাকে পাওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে রূপসা দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শরিফ খাঁন বলেন, সড়কের পাশে সরকারি গাছ কাটার ঘটনা আমি শুনে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি, হুমায়ুন কবির মাস্টারকে আমি ফোনে বলেছি আমার পরিষদের আসার জন্য কিন্তু তিনি আসেননি। উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

উপজেলা বনকর্মকর্তা কাউছার মিয়া জানান, সরকারি গাছ কাটার খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরির্দশন করেছি,প্রায় ১৭ টি গাছ বাজার মূল্যে ১ লক্ষ টাকা। একটি বিদ্যালয়েন প্রধান শিক্ষক হুমায়ুন কবির হোসেন গাছগুলো বিক্রি করেছে, তার বিরুদ্ধে আমি থানায় অভিযোগ করেছি।এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তাসলিমুন নেছা বলেন, তদন্ত করে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

একই রকম খবর