চাঁদপুরে অল্পের জন্য রক্ষাপেল মেঘনা এক্সপ্রেস ট্রেন, গেটম্যানকে প্রত্যাহার ও বরখাস্ত

স্টাফ রিপোর্টার :  চাঁদপুর-চট্রগ্রামের মধ্যে চলাচলকারী যাত্রীবাহী ট্রেন আন্ত:নগর মেঘনা এক্যপ্রেস ট্রেনের দূর্ঘটনার কবল থেকে অল্পের জন্য রক্ষা পেল অসংখ্য যাত্রী ও প্রচুর যানবাহন। এ ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত থাকার অপরাধে শত-শত যাত্রী ও পথচারী উত্তেজিত হয়ে গেইটম্যান মফিজুর রহমানকে গনপিটনীকালে পুলিশী হস্তক্ষেপে সে রক্ষা পায়।

এ ঘটনায় গেটম্যান মফিজুর রহমানের বিরুদ্ধে চাঁদপুর রেলওয়ে থানায় পুলিশ বাদী হয়ে একটি অভিযোগ করেছে,বলে রেলওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ মো: মুরাদউল্লাহ্ বাহার সত্যতা শিখার করে নিশ্চিত করেছেন।

চাঁদপুর শহরে ও ঘটনাস্থলে তাৎক্ষনিক ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে এবং এখন উত্তেজনা বিরাজমান রয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে, সোমবার রাত ৯টা ৩৭ মিনিটের সময় চাঁদপুর শহরের প্রানকেন্দ্র হিসেবে চিহ্নিত চাঁদপুর রেলওয়ে কোর্টস্টেশন এলাকায়। এ ঘটনায় গেটম্যান মফিজুর রহমানকে রেলওয়ের সংশ্লিস্ট কর্তৃপক্ষ তাৎক্ষনিক গেইটম্যান থেকে প্রত্যাহার ও তাকে সাময়িক ভাবে দায়িত্ব থেকে বরখাস্ত করেছে বলে রেলওয়ের দায়িত্বশীল একটি সূত্রে জানা গেছে।

রেলওয়ের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ও প্রত্যাক্ষদর্শীরা জানান, প্রতিদিনের ন্যায় চাঁদপুর-চট্রগ্রামের মধ্যে চলাচলকারী আন্ত:নগর মেঘনা এক্যপ্রেস ট্রেনটি চট্রগ্রাম থেকে সোয়া ৫টায় চাঁদপুরের উর্দেশে ছেড়ে আসে। ট্রেনটি লাকসাম থেকে রাত অনুমান ৮টায় ছেড়ে রাত অনুমান ৯টা ৩৭ মিনিটের সময় চাঁদপুর কোর্ট স্টেশনে প্রবেশকালে,কোর্টস্টেশনে দায়িত্বরত গেইটম্য্যান মো: মফিজুর রহমান মফিজ তার দায়িত্ব পালন হিসেবে গেইটের ২দিকের ২টি গেইট ব্যারিয়ার নাফেলে ওপেন করে রেখে অন্যত্র গিয়ে জুয়া খেলছিল।

এতে করে অসংখ্য যাত্রী নিয়ে রিকসা,অটোবাইক,সিএনজি চালিত স্কুটারসহ অসংখ্য যানবাহন রেলওয়ের গেইট সংলগ্ন রেলক্রসিং পারাপার কালে আন্ত:নগর মেঘনা এক্যপ্রেস প্রবেশকালে তাৎক্ষনিক রিকসাচালক মো: হাসিম,দোকানদার শাকিল দ্রুত গতিতে এসে দক্ষিন দিকের এটি গেইট ব্যারিয়ার ও ব্যবসায়ী মো: দুদু মিয়া পূর্ব দিকের অপর গেইট ব্যারিয়ারটি ডাউন করায় (ফেলায়) এবং গেইট সংলগ্ন ফল ব্যবসায়ী মুনাফ মিজি পথচারী ও ফুটপাতের দোকান গুলো তাৎক্ষনিক সরিয়ে ফেলায় বড় ধরনের দূর্ঘটনা থেকে রক্ষা পাওয়ায় প্রচুর যানবাহন ও অসংখ্য যাত্রী ও পথচারী মানুষের প্রান রক্ষা পেয়েছে। তা’নাহলে ঐ সময় চাঁদপুর কোর্টস্টেশনের রক্তের বন্যা হয়তো দেখতে হতো চাঁদপুর বাসীকে।

খবর নিয়ে জানা যায়,গেইটম্যান মফিজুর রহমান তার দায়িত্বে অবহেলা করে অপর প্রান্তে বসে মোবাইল ফোনে অন্য মানুষের সাথে ফ্রি-ফেয়ার গেইমস্ খেলা খেলছিল বাজিতে। মেঘনা এক্যপ্রেস ট্রেনটি কোর্টস্টেশন ত্যাগ করার পর তাৎক্ষনিক শত-শত যাত্রী,পথচারী ও প্রত্যাক্ষদর্শীরা গেইটম্যানকে খুজে গনপিটনি দিতে থাকলে ঘটনাস্থলে থাকা পুলিশ বক্যের দায়িত্বরত চাঁদপুর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক সাধন চন্দ্র ও সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স মফিজুর রহমানকে জনরোশের হাত থেকে রক্ষা করে পুলিশের গাড়ীতে উঠিয়ে রক্ষা করায় সে গনপিটনী থেকে রক্ষা পায়।

এ ঘটনাটি পুরো চাঁদপুর শহরে ছড়িয়ে পড়লে চাঁদপুর রেলওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ মো: মুরাদউল্øাহ বাহার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং রেলওয়ের চট্রগ্রাম বিভাগীয় উধর্বতন কর্তৃপক্ষকে ঘটনাটি জানান। চট্রগ্রাম বিভাগীয় উধর্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে তাৎক্ষনিক চাঁদপুর-লাকসাম এ পথের দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তা এসএস এ/ই মো: লিয়াকত আলী তাকে চাঁদপুর কোর্টস্টেশন গেইট থেকে প্রত্যাহার করেন এবং সাময়িক ভাবে বরখাস্ত করেন।

এ ঘটনাটি আজ মঙ্গলবার পুনরায় পরিদর্শন করেন চাঁদপুর রেলওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ মো: মুরাদউল্øাহ বাহার ও রেলওয়ের চাঁদপুরস্থ নিরাপত্তা বাহিনীর ইনচার্জ মো: খোরশেদ আলম। তারা জানান,চাঁদপুর কোর্টস্টেশনের ফুটেজ দেখে ঈদের পর বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

এ ব্যাপারে চাঁদপুর-লাকসাম রেলপথের দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তা এসএস এ/ই মো: লিয়াকত আলী জানান,তাকে ঘটনাস্থল থেকে প্রত্যাহার করা হয়েছে এবং সাময়িক ভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। পরবর্তীতে চট্রগ্রাম বিভাগীয় কর্র্তৃপক্ষের নির্দেশে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে চাঁদপুর রেলওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ মো: মুরাদউল্লাহ বাহার জানান,ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে রেলওয়ে থানায় গেইটম্যান মফিজুর রহমানের বিরুদ্বে একটি সাধারন ডায়েরী করে তদন্ত করা হচ্ছে। পরবর্তী তার কর্তৃপক্ষের কাছে প্রতিবেদন দাখিল করা হবে।

এর পূর্বেও এ গেটম্যান মফিজুর রহমান অসংখ্যবার তার কাজে অবহেলা করায় এ ধরনের দূর্ঘটনা থেকে যাত্রী ও পথচারীরা প্রানে রক্ষা পেয়েছে। সে সময় তার বিরুতে বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় বহু রিপোট প্রকাশিত হওয়ার পর তাকে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ সাময়িক ভাবে বরখাস্ত করলেও সে পূনরায় এখানে এসে দায়িত্বে অহেলা করেই যাচ্ছে। সে এখানের দায়িত্ব পালন কালে ব্যবসায়ীদের নিকট থেকে বিভিন্ন অজুহাতে বাকী খেয়ে, টাকা দারনিয়ে দেয়না বলেও ব্যবসায়ীরা অভিযোগ করেন। যা’প্রকৃত ভাবে তদন্ত করলে এর সত্যতা মিলবে এবং প্রকৃত ভাবে তার বিভিন্ন অপরাধ গুলোর প্রমান মিলবে বলে অসংখ্য ব্যবসায়ীর অভিমত।

একই রকম খবর