চাঁদপুরে আক্রান্ত ১৬৬ ও মৃতের সংখ্যা ১৩

মাসুদ হোসেন : চাঁদপুরে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা। গত ২৩ মে থেকে ২৯ মে পর্যন্ত এই ৭ দিনে ঈদুল ফিতরের ছুটিতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ৫৫ জন। এরমধ্যে করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছে আরো ৩ জন।

সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা ও মানুষকে ঘরে রাখতে পারছেনা প্রশাসন। ফলে, প্রতিদিন জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের অলিগলি-রাস্তাঘাট ও হাট বাজারে মানুষের সমাগম বেড়েই চলছে।

প্রতিদিন অপ্রয়োজনীয় দোকানপাট খুলছে। রিকসা, ভ্যান ও ইঞ্জিনচালিত যানবাহন চলাচল করছে। এদিকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের ছুটিতে ও ৩১ মে থেকে সীমিত আকারে যানবাহনসহ বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা রাখলে রকেট গতিতে বাড়তে পারে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা।

চাঁদপুর সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার (২৯ মে) পর্যন্ত চাঁদপুর জেলা জুড়ে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৬৬ জনে।

মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৩জন। এদের মধ্যে চাঁদপুর সদরে ৫ জন, ফরিদগঞ্জে ৩ জন ও হাজীগঞ্জে ১ জন, শাহরাস্তিতে ১ জন, কচুয়ায় ২ জন ও শতলব উত্তরে ১ জন। সুস্থ হয়েছেন ৩৪জন। বাকী ১১৯জন চিকিৎসাধীন।

চাঁদপুর জেলায় বর্তমানে করোনায় আক্রান্ত ১৬৬জনের উপজেলা ভিত্তিক পরিসংখ্যান হলো : চাঁদপুর সদরে ৯১, ফরিদগঞ্জে ২৯, মতলব উত্তরে ৭, হাজীগঞ্জে ৯, মতলব দক্ষিণ ৬জন, কচুয়ায় ৯, হাইমচরে ৪ ও শাহরাস্তিতে ১১জন।

সিভিল সার্জন ডা: মোঃ সাখাওয়াত উল্লাহ শুক্রবার দুপুরে এক প্রেস নোটে জানান, চাঁদপুর থেকে মোট প্রেরণকৃত নমুনার সংখ্যা দাঁড়ালো ১৬৯৯। এর বিপরীতে রিপোর্ট এসেছে ১৩৭৪টি।

রিপোর্ট অপেক্ষমান ৩২৫টি। তিনি জানান, চাঁদপুর জেলায় এখন পর্যন্ত আইসোলেশনে ভর্তিকৃত রোগীর সংখ্যা ৭৮জন। এর মধ্যে ইতিমধ্যে ছাড়পত্র পেয়েছেন ৬৪জন। বর্তমানে আইসোলেশনে রোগীর সংখ্যা ১৪জন। জেলায় মোট হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তির সংখ্যা ৩৬৬৩জন। এর মধ্যে ছাড়পত্র পেয়েছেন ৩৬৪৪জন। বর্তমানে হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন ১৯জন।

একই রকম খবর