চাঁদপুরে নির্ধারিত সময় শেষ হলেও সরছে না বিলবোর্ড, ব্যানার-পোস্টার!

স্টাফ রিপোর্টার : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রচারণামূলক ব্যানার, পোস্টার, ফেস্টুন, বিলবোর্ড, দেয়াল লিখনসহ সককিছু রোববার (১৮ নভেম্বর) দিনগত রাত ১২টার মধ্যে সরিয়ে ফেলতে নির্দেশনা দিয়েছে নির্বাচন কমিশন।কিন্তু এখনও চাঁদপুর জেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে সরানো হচ্ছে না প্রচারণামূলক ব্যানার, পোস্টার, ফেস্টুন, বিলবোর্ড, দেয়াল লিখন ।তাই এ ব্যাপারে মাঠ পযায়ে জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানিয়ে সুধীজন ।তবে চাঁদপুর পৌরসভাসহ পৌর এলাকায় বেশীরভাগ স্থানে চাঁদপুর জেলা প্রশাসকের নিদেশে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট্রের নেতৃত্বে প্রচারণামূলক ব্যানার, পোস্টার, ফেস্টুন, বিলবোর্ড অপরাসারণ করা হয়েছে ।

জানা গেছে, রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন মহানগর, জেলা ও উপজেলায় বিভিন্ন ধরনের প্রচারণামূলক কার্যক্রম প্রদর্শিত হচ্ছে। ব্যক্তিগত পর্যায়ে এসব সরানোর কার্যক্রম পরিচালিত হয়েছে খুবই কম। আর দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠান হিসেবে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনও জোরোশোরে মাঠে নামেনি। এ কারণে নির্ধারিত সময় অতিবাহিত হওয়ার পরও যত্রতত্র নির্বাচনী প্রচারণামূলক ব্যানার, পোস্টার ও ফেস্টুন শোভা পাচ্ছে।

৯ নভেম্বর নির্বাচন কমিশন থেকে জারিকৃত প্রজ্ঞাপনে ব্যক্তিগত উদ্যোগ ১৪ নভেম্বরের মধ্যে সরিয়ে ফেলার নির্দেশনা প্রদান করা হয়। প্রথম দফায় বেঁধে দেয়া সময়ের মধ্যে নির্বাচনী প্রচারণামূলক কার্যক্রম অপসারণ না হওয়ায় সময় বাড়িয়ে ১৮ নভেম্বর রোববার দিবাগত রাত ১২টা পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়।

এ ব্যাপারে নির্বাচন কমিশন থেকে বলা হয়, প্রতীক বরাদ্দের আগে কোনো প্রচারণা চালানো যাবে না। নির্বাচনে সম্ভাব্য প্রার্থীরা পোস্টার, ব্যানার, দেয়াল লিখন, বিলবোর্ড, গেট, তোরণ বা ঘর, প্যান্ডেল বা আলোকসজ্জা, প্রচারণা ও নির্বাচনী ক্যাম্প থাকলে সেসব বেঁধে দেয়া সময়ের মধ্যে সরিয়ে ফেলতে হবে। আর সেটা না হলে সংশ্লিষ্ট এলাকার স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান (সিটি কর্পোরেশন, পৌরসভা, ইউনিয়ন পরিষদ) এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

এদিকে চাঁদপুর জেলা শহর ও উপজেলা পর্যায়ে ব্যানার, পোস্টার ও বিলবোর্ড অপসারণ করা হরেও ইউনিয়ন পর্যায়ে এখনো অনেক ব্যানার পোস্টার রয়েগেছে। তাদের মধ্যে সচেতনা গড়ে উঠেনি বলে স্থানীয় অনেকের সাথে আলাপ করে জানাগেছে।

একই রকম খবর

Leave a Comment