চাঁদপুরে পরিবার-পরিকল্পনা জোরদারকরণে অবহিতকরণ কর্মশালা

বিশেষ প্রতিনিধি : চাঁদপুরে ফার্মেসী মালিক ও ফার্মাসিস্টগণদের সমন্বয়ে প্রসব পরবর্তী পরিবার পরিকল্পনা সেবা জোরদারকরণে অবহিতকরণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ৩ জুলাই রোববার বেলা সাড়ে ১১টায় চাঁদপুর প্রেসক্লাবের (২য় তলায়) এলিট চাইনিজ রেস্টুরেন্টে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়।

পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের উদ্যোগে এবং জাপাইগো (Jhpiego) -এর অর্থিক ও কারিগরি সহায়তায় আয়োজিত কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের উপ-পরিচালক ডা. মোঃ ইলিয়াছ।

তিনি বলেন, প্রসব পরবর্তী সচেতন না হলে একজন মা ৮/৯ মাসের মধ্যে ফের গর্ভবতী হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। আর অনাকাঙ্ক্ষিত গর্ভপাতের জন্য মা এবং নবজাতক শিশুর মৃত্যুর ঝুঁকি যেমন থাকে, তেমনি একসাথে দু’জন শিশুকে লালনপালন করতে গিয়ে ওই মাকেও বেগ পোহাতে হয়।

তাই এই বিষয়টি আমাদের গুরুত্বের সাথে দেখতে হবে। গর্ভপাত পরবর্তী পরিবার পরিকল্পনা এবং সাধারণ পরিবার পরিকল্পনা সেবা প্রদান করা হলে পরিবার পরিকল্পনা কার্যক্রমে স্থায়ী ও দীর্ঘমেয়াদী পদ্ধতি উল্লেখযোগ্য হারে বৃদ্ধি পাবে। এতে করে অনাকাঙ্ক্ষিত গর্ভধারণ রোধ এবং মাতৃ ও শিশুমৃত্যুর হার হ্রাসেও সহায়ক হবে।

এছাড়াও চাঁদপুর পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের সহকারী পরিচালক, একেএম আমিনুল ইসলাম; সহকারী পরিচালক (এফপিসিএস-কিউআইটি); চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের সহকারী পরিচালক, ডা. সাজেদা বেগম পলিন; জুনিয়র কনসালটেন্ট, ডা. তাবেন্দা আক্তার; এবং বাংলাদেশ কেমিস্ট এন্ড ড্রাগিস্ট সমিতি চাঁদপুর জেলা শাখার সভাপতি মোস্তফা রুহুল আনোয়ার কর্মশালায় রিসোর্স পার্সন হিসেবে বক্তব্য রাখেন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. তানভিরুল ইসলাম।

কর্মশালায় প্রজেক্টরের মাধ্যমে পরিবার পরিকল্পনা বিষয়ে চাঁদপুর জেলার তথ্য উপস্থাপন এবং জাপাইগোর কার্যক্রম সম্বন্ধে আলোচনা করেন জেলা ম্যানেজার রজতাংশু সাহা। জাপাইগো, ঢাকা অফিসের এম এন্ড ই অফিসার, মোঃ সাইয়াদুর রহমান আজকের অরিয়েন্টেশন কর্মশালার উদ্দেশ্য সম্পর্কে আলোচনা করেন। কর্মশালার সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন জাপাইগোর টেকনিক্যাল অফিসার ডা. মো. আরমান চৌধুরী।

এসময় চাঁদপুর পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ এবং জাপাইগো’র প্রতিনিধি ও কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

একই রকম খবর