চাঁদপুরে মহিলা অধিদপ্তরের জীবিকায়নের নিয়োগে স্বচ্ছতার সহিত সম্পন্ন

চাঁদপুর খবর রিপোর্ট ঃ চাঁদপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জামান বলেছেন, জীবিকায়নের জন্য মহিলাদের দক্ষতা ভিত্তিক প্রশিক্ষণ প্রকল্পে ৫ জনকে অত্যন্ত স্বচ্ছতার সহিত নিয়োগ দেয়া হচ্ছে।

এ বিষয়ে ৮০ নাম্বারের স্বচ্ছতার সাথে লিখিত পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। ইতোমধ্যে যারা লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে তাদের নামের তালিকা টানিয়ে দেয়া হয়েছে। তাদেরকে মৌখিক পরীক্ষার জন্য চূড়ান্তভাবে নির্ণয় করা হয়েছে। খুব সহসাই তাদের মৌখিক পরীক্ষা নেয়া হবে। তিনি আরও জানান, আমরা অত্যান্ত গোপনীয়তার সহিত লিখিত পরীক্ষার প্রশ্নপত্র করেছি। যা অত্যান্ত স্বচ্ছতার সাথে করা হয়েছে। এখানে কোন রকমের নিয়োগ বাণিজ্যের প্রশ্নই আসে না। এমনকি যারা মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হবে তাদের নামের তালিকাও টানিয়ে দেয়া হবে।

এ ব্যাপারে জেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক রাফিয়া ইকবাল বলেন, আমি দীর্ঘ প্রচেষ্টা চালিয়ে সাবেক প্রশিক্ষকদের বকেয়া বেতন পাইয়ে দেয়ার প্রক্রিয়া করেছি। খুব দ্রুত তাদের বকেয়া বেতন তাদের কাছে পৌঁছে দেয়া হবে। তিনি আরও বলেন, আমাদের অধিদপ্তর থেকে প্রজ্ঞাপন জারি হয়েছে এই প্রকল্পে এইচএসসি পাশ ছাড়া কাউকে নেয়া যাবে না। তবুও আমরা মানবিক দিক বিবেচনা করে পূর্বে ৫ প্রশিক্ষকের নামের তালিকা সংশ্লিষ্ট দপ্তরে পাঠিয়েছি। কিন্তু অধিদপ্তর থেকে স্পষ্ট নির্দেশনা দেয়া হয়েছে এইচএসসি পাশ ছাড়া আবেদন করার কোন সুযোগ নেই।

তিনি আরও বলেন, আমরা অত্যন্ত আন্তরিকতার সহিত চাই এখানকার মেয়েরা যেন সরকারি সুযোগে প্রশিক্ষণ নিতে পারে। কেউ যাতে বঞ্চিত না হয়। আর যতদিন বাঁচবো ন্যায় ও সততার সহিত নিজের ওপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করবো।

জেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের প্রোগ্রাম সাজিয়া আফরিন বলেন, যোগ্যতার বলে কাজ করছি। অর্পিত দায়িত্ব ভালোভাবে করছি বলে সংশ্লিষ্ট দপ্তর আমাকে বদলী হতে দিচ্ছে না। আমরা চেষ্টা করি সততার সহিত ভালোভাবে অর্পিত দায়িত্ব পালন করতে এবং করে যাবো।

গতকাল দৈনিক চাঁদপুর খবর পত্রিকায় এ সংক্রান্ত একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে । প্রকাশিত সংবাদটি তীব্র প্রতিবাদ জানান চাঁদপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জামান । তিনি জানান,সংবাদটি তথ্য নির্ভর ছিলো না ।

 

একই রকম খবর