চাঁদপুরে সন্ত্রাসী কায়দায় দখলীয় দোকানঘর পুলিশি হেফাজতে

স্টাফ রিপোর্টার : চাঁদপুর পৌরসভার জোড় পুকুর পাড়ের পূর্ব দিকে ২০১১ সালে ২৪ মার্চ একদল সন্ত্রাসীরা রাতের আধারে দখল করা দু’সার্টার বিশিষ্ট নিউ মতলব হোমিও হল দোকানটি আদালতের নির্দেশে চাঁদপুর মডেল থানা পুলিশের হেফাজতে।

জানা যায়, ২০১১ সালের ২৪ মার্চ গভীর রাতে একদল সঙ্গবদ্ধ সন্ত্রাসী জে.এম সেনগুপ্ত রোডস্থ নিউ মতলব হোমিও হল দোকানে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাট চালিয়ে অবৈধভাবে তালা মেড়ে দখল করে প্রীতি রানী ঘোষের ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীরা। পরের দিন চাঁদপুর মডেল থানায় উপস্থিত হয়ে অভিযোগ করেন নিউ মতলব হোমিও হলের স্বত্ত্বাধিকারী ডা. মোঃ রফিকুল ইসলাম।

পরে এ ব্যাপারে আদালতে মামলা দায়ের করেন তিনি। মামলা চলাবস্থায় দখলীয়রা ঐ দোকানপাট মোটা অংকের টাকা অগ্রিম নিয়ে দোকান ভাড়া দেয়।

এমনকি ভূমি বিক্রিরও পায়তারা করতে থাকে। বাদীপক্ষ তা আদালতে অবগত করলে বিজ্ঞ আদালত চাঁদপুর সদর মডেল থানা অফিসার ইনচার্জকে রিসিভার নিয়োগক্রমে দোকানঘর দু’টি হেফাজতে নেয়ার নির্দেশ প্রদান করেন। নির্দেশ মোতাবেক অফিসার ইনচার্জ চাঁদপুর সদর মডেল থানা নালিশি ভূমিতে থাকা দোকানঘরটি ৬ আগষ্ট বিকাল ৫টায় নিজ হেফাজতে নেয়।

এ ব্যাপারে চাঁদপুর সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ আবদুর রশিদ এর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, আদালতের নির্দেশে দোকান দুটি এখন আমাদের হেফাজতে পুলিশ এখন রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব পালন করবে।
নিউ মতলব হোমিও হল দোকান মালিক ডা. মোঃ রফিকুল ইসলাম বলেন, আমি গত ২ সেপ্তেম্বর ২০১০ইং তারিখে সাফকাবলা দলিল মুলে দুই দরজা বিশিষ্ট দোকানঘরটি ক্রয়সূত্রে মালিক হয়ে নিউ মতলব হোমিও হল নামে ঔষধের দোকান দেই এবং রোগীদের সেবা দিতে থাকি।

এমতাবস্থায় প্রয়াত প্রীতি রানী ঘোষ গং কর্তৃক সন্ত্রাসী বাহিনী দ্বারা মালামাল লুটপাট করে দোকানটি রাতের আঁধারে দখল করে নেয়। আমি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল তাই প্রতিকার চেয়ে সংশ্লিষ্ট আদালতে মামলা দায়ের করি। মামলা চলাবস্থায় বিবাদিনী সাবিত্রী রানী ঘোষ অর্থ আত্নসাতের টাকা সংগ্রহ করার জন্য আমার ক্রয়কৃত দোকানঘরটি বিক্রি করার জন্য একাধিক ব্যক্তির কাছ থেকে টাকা সংগ্রহ করে।

তাই আমি আমার ক্রয়কৃত দোকান ঘরটি হেফাজতের জন্য বিজ্ঞ আাদালতে আবেদন করি। বিজ্ঞ আদালত চাঁদপুর সদর মডেল থানা ওসিকে মামলা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত তার হেফাজতে নিতে নির্দেশ দেন।

একই রকম খবর