চাঁদপুর জেলা আইন-শৃঙ্খলা সংক্রান্ত কোর কমিটির সভা

আহম্মদ উল্যাহ : চাঁদপুর জেলা প্রশাসক ও জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ২০১৮ জেলা আইন-শৃঙ্খলা সংক্রান্ত কোর কমিটি এবং প্রার্থী/প্রার্থীর প্রতিনিধির সাথে নির্বাচন বিষয়ক বিশেষ মতবিনিময় সভা সোমবার (১৭ ডিসেম্বর) সকাল ১১টায় অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এতে সভাপতির বক্তব্য রাখেন, চাঁদপুর জেলা প্রশাসক ও জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. মাজেদুর রহমান খান।

তিনি বলেন, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বাচন করা যায় সেই লক্ষ্যে নিয়ে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও সহকারী রির্টানিং কর্মকর্তারা কাজ করছে। আমরা দেখাতে চাই সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রেখেই নির্বাচন হয়। নির্বাচন চলাকালীন সময়ে যদি কেউ জঙ্গীবাদকে ব্যবহার করে, আমরা তা কঠোর হাতে ধমন করবো। কোন প্রার্থী যদি নির্বাচন আচরণবিধি অমান্য করে, তাহলে জেলা রির্টার্নিং কর্মকর্তা ব্যবস্থ্য গ্রহণ করবে।

সভায় উপস্থিত প্রার্থী ও প্রার্থীর পক্ষের লোকদের বক্তব্যর আলোকে তিন বলেন, আমার কাছে অনেকে ফোনে অথবা বিভিন্ন পন্থায় অভিযোগ করেন, জেলা রির্টানিং কর্মকর্তার কাছে এখনো লিখিত কোন অভিযোগ আসেনি। চাঁদপুর-২( মতলব উত্তর-দক্ষিণ) আসনে প্রার্থী উপর হামলা হয়েছে, কিন্তু জেলা রির্টানিং কর্মকর্তার কাছে কোন অভিযোগ করা হয়নি। তার পরেও আমরা জেলা প্রশাসক নিজ উদ্যোগে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থ্যা গ্রহণ করা হয়েছে। আবার চাঁদপুর-১(কচুয়া) আসনের প্রার্থী ও প্রার্থীর দলে যে হামলার কথা বলা হয়েছে, তারও কোন লিখিত অভিযোগ পাওয়া যায় না। পত্রিকার মাধ্যমে জানতে পেরে আমরা সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দিয়েছি।

জেলা প্রশাসক বলেন, রাষ্ট্র একটি শৃঙ্খলার মধ্য দিয়ে চলে, নিময় না মেনে কোন প্রার্থী চলতে পারবে না। আমরা জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ এসেছে কিন্তু ব্যবস্থা গ্রহণ করি না এমন কোন প্রমাণ আপনারা বলতে পারবেন না। অনেকেই বারবার অভিযোগ করেছেন, ভোটাররা ভোট কেন্দ্রে যেতে পারবেন কিনা? আমি বলতে চাই ভোটারদের মাঝে কোন আতঙ্ক ছড়াবেন না। আগামি ৩০ ডিসেম্বর সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রেখে ভোট কেন্দ্র পরিচালনার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত হবে জাতীয় সংসদ নির্বাচন।

জেলা প্রশাসক মোঃ মাজেদুর রহমান খান বলেন, আগামী ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চাঁদপুরের ৫টি সংসদীয় আসনে ভোটাররা তাদের পছন্দের প্রার্থীকে নির্বিঘ্নে ভোট প্রদান করে বাড়ী ফিরতে পারবে। এনিয়ে কারো মধ্যে যেনো কোন ধরনের সংশয় না থাকে সে লক্ষে আইন শৃঙ্খলা বাহীনি ও গোয়েন্দা সংস্থার কর্মকর্তা এবং সদস্যরা মাঠে কাজ করে যাচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, ভোট সুষ্ঠু হবে কিনা, ভোটাররা ভোট দিতে পারবে কিনা, নির্বাচনে আদৌ হবে কিনা, এ ধরনের কিছু মনগড়া কথা বলে। কিছু প্রার্থী ও তাদের লোকজন সাধারণ জনগণ এবং ভোটারদের মাঝে বিভ্রান্ত ছড়ানোর চেষ্টা করছে। আমি তাদের উদ্যেশ্যে বলতে চাই, আজকের পর থেকে এধরনের মনগড়া গুজব ছড়ানো থেকে বিরত থাকুন। নির্বাচনের আচরণ বিধি মেনে প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যান, আপনাদের কোন অভিযোগ থাকলে আমাদেরকে অবহিত করুন, তদন্ত সাপেক্ষে তাৎক্ষনিক ব্যাবস্থা নেয়া হবে। নির্বাচন সুষ্ঠু করতে সকল ধরনের ব্যাবস্থা নেয়া হবে।

এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন, চাঁদপুর পুলিশ সুপার মো. জিহাদুল কবির, ডিজিএফআই’র চাঁদপুর প্রতিনিধি,কমান্ডিং অফিসার, বিজিবির, কুমিল্লা (প্রতিনিধি) আব্দুল্লা আল ফারুকী, এনএসআই এর চাঁদপুরের উপ-পরিচালক এ বি এম ফারুক, কমান্ডার, র‌্যাব, কুমিল্লা (প্রতিনিধি) মেজর ছাব্বির আহমেদ।

শুরুতেই মাল্টিমিডিয়ার মাধ্যমে নির্বাচনী প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণা, সভা, গণসংযোগ, মিটিং, মিছিল, নির্বাচনে করণীয় এবং বর্জনীয় বিষয়ে উপস্থাপনা করেন চাঁদপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ আবদুল্লা আল মামুদ জামান।

এসময় বক্তব্য রাখেন, চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, কেন্দ্রীয় বিএনপির নেতা সাবেক সংরক্ষিত মহিলা এমপি আলহাজ্ব রাশেদা বেগম হীরা, চাঁদপুর-৫ (হাজীগঞ্জ-শাহরাস্তি) আসনের বিএনপির প্রার্থী ইঞ্জিনিয়র মমিনুল হক, চাঁদপুর-১ (কচুয়া) আসনের আওয়ামী লীগ প্রার্থী ড. মহিউদ্দিন খান আলমগীরের পক্ষে কচুয়া উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাড. হেলাল উদ্দিন, বিএনপি প্রার্থী মো. মোশারফ হোসেনের পক্ষে শাহাজাহান মজুমদার, চাঁদপুর-২ ( মতলব উত্তর-দক্ষিণ) আসনের বিএনপি প্রার্থীর পক্ষে ডা. জালাল উদ্দিন এর পক্ষে মতবল পৌরসভার সাবেক মেয়র এনামুল হক বাদল, চাঁদপুর-২ ( মতলব উত্তর-দক্ষিণ) আসনের আওয়ামী লীগের প্রার্থী নুরুল আমিন রুহুলের পক্ষে বক্তব্য রখেন, অ্যাড. মোশারফ হোসেন,

চাঁদপুর-৩ (সদর-হাইমচর) আসনের বিএনপি প্রার্থী শেখ ফরিদ আহমেদ মানিকের পক্ষে বক্তব্য রাখেন, অ্যাডভোকেট সেলিম উল্যাহ সেলিম, আওয়ামী লীগের প্রার্থী ডা. দীপু মনির পক্ষে অ্যাড. সাইফুদ্দিন বাবু, চাঁদপুর-৪ (ফরিদগঞ্জ) আসনের বিএনপি প্রার্থী এমএ হান্নান এর পক্ষে বক্তব্য রাখেন শরিফ মোহাম্মদ ইউনুছ, আওয়ামী লীগের প্রার্থী সাংবাদিক মুহম্মদ সফিকুর রহমানের পক্ষে ডা. হারুনুর রশিদ সাগর, চাঁদপুর-২ ( মতলব উত্তর-দক্ষিণ) আসনের জাতীয় পার্টির প্রার্থীর পক্ষে বক্তব্য রাখেন তাঁর সমর্থন কারী, চাঁদপুর- আসনের হাতপাখা প্রতীকের প্রার্থী শেখ মো. জয়নাল আবদীন, চাঁদপুর-২ আসনের হাতপাখা প্রতীকের প্রার্থী আফসার উদ্দিন, ঐক্য জোটের প্রার্থী, মো. মনির হোসেন চৌধুরী, চাঁদপুর-৩ আসনের জাকের পার্টির প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা কামরুন নেছা, চাঁদপুর-৫ আসনের হাত পাখা প্রতীকের প্রার্থী শাহাদাত হোসেন, চাঁদপুর-১ আসনের গণফোরামের প্রার্থী আজাদ হোসেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ( সার্বিক) মোহাম্মদ শওকত ওসমান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (আইসিটি ও শিক্ষা) মো. মঈনুল হাসান, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কানিজ ফাতেমা, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটওয়ারী, সাবেক সভাপতি শহীদ পাটওয়ারী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক চাঁদপুর খবর পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ও প্রকাশক সোহেল রুশদী,সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক লহ্মন চন্দ্র সুত্রধর,টেলিভিশন সাংবাদিক ফেরামের সাধারণ সম্পাদক রিয়াদ ফৌরদৌসসহ প্রার্থীদের পক্ষে প্রস্তাবকারী সমর্থন কারী, সাংবাদিক, জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের কর্মকর্তা বৃন্দ।

একই রকম খবর

Leave a Comment