চাঁদপুর জেলা পুলিশের আয়োজনে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা

স্টাফ রিপোর্টার : গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের অবসরপ্রাপ্ত সচিব বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ মমিন উল্লাহ পাটোয়ারী বীর প্রতীক বলেছেন, কোন কিছু পাওয়ার আশায় আমরা যুদ্ধ করিনি। দেশের পরিস্থিতি এরকম হয়েছিলো দেশকে রক্ষা করতে আমরা যুদ্ধে যেতে বাধ্য হয়েছি। আমাদের নিয়ে আমাদের দেশ ও সন্তানরা আমাদের নিয়ে গর্ববোধ করে।

এটাই আমাদের পাওয়া। আমাদের মধ্যে দেশ ও সংস্কৃতির চেতনা ছিলো। আমরা কি পেলাম সেটা বড় কথা নয়, কিন্তু এ জাতি কি পেলো, তা জানতে চাই জাতির কাছে।

১৭ ডিসেম্বর সকালে জেলা পুলিশ লাইন্সের ড্রিলশেডে চাঁদপুর জেলা পুলিশের আয়োজনে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী পুলিশ মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, আমাকে অষ্ট্রিলিয়ায় একটি প্রোগ্রামে বলা হলো আমার মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বললে। তারা ইতবহাস শুনে বললো তোমাকে নিয়ে একটা সিনেমা করা যায়। আমি তাদের বলেছিলাম প্রত্যেক মুক্তিযোদ্ধাদের কাহিনী নিয়ে সিনেমা করা যেতো। মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাসকে হৃদয়ে লালন ও ছড়িয়ে দেয়ার মাধ্যমেই মুক্তিযোদ্ধাদের যথাযথ সম্মান প্রদর্শন করা সম্ভব হবে।

চাঁদপুর জেলা পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ বিপিএম-বার এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ পুলিশের অবসরপ্রাপ্ত ডিআইজি বীর মুক্তিযোদ্ধা সফিকুল ইসলাম, চাঁদপুর জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, চাঁদপুর জেলা মুক্তিযুদ্ধা কমান্ডার যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এ ওয়াদুদ, চাঁদপুর প্রেসক্লাব সভাপতি গিয়াসউদ্দিন মিলন প্রমূখ।

সদর সার্কেল ইয়াসিন আরাফাত এর পরিচালনায় পুলিশ বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ তাদের মুক্তিযুদ্ধকালীন ঘটনাসমূহের স্মৃতিচারণ ও অনুভূতি ব্যক্ত করে বক্তব্য রাখেন অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহ আলম বকাউল, অবসরপ্রাপ্ত কনেষ্টেবন তোফাজ্জল হোসেন, জহিরুল হক ভূইয়া, আমির হোসেন।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুদীপ্ত রায়। এসময় পুলিশ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। এরপর অতিথিবৃন্দ ও অন্যান্য পুলিশ কর্মকর্তাগণকে সাথে নিয়ে পুলিশ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের ফুল দিয়ে স্বাগত জানান।

অতিথিরা পুলিশ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের উত্তোৱনী, ক্রেষ্ট এবং উপহার তুলে দেন। অনুষ্ঠানে ৬৩ জন পুলিশ বীর মুক্তিযোদ্ধাকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে।

একই রকম খবর