চাঁদপুর ট্রাফিক পুলিশের বিশেষ অভিযান অব্যাহত

সাইদ হোসেন অপু চৌধুরী : গতকাল ২২ মে রবিবার দিনব্যাপি চাঁদপুর জেলা ট্রাফিক পুলিশ রেজিস্ট্রেশন, হেলমেট ও বৈধ কাগজপত্র না থাকায় শহরের ওয়ারলেস, বাবুরহাট ও বাসস্ট্যান্ডে গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে বিশেষ অভিযান চালিয়েছে।

এ সময় ৯টি মোটরসাইকেল আটক করা হয় এবং মোট ১০ টি মামলা দায়ের করা হয়। এসব মোটরসাইকেল ও তার চালকদের কাছ থেকে সড়ক পরিবহণ আইনে যার জড়িমানা আসবে ১ লাখ টাকা।

চাঁদপুর শহর ছাড়াও জেলার ৮টি থানার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে সড়কে ট্রাফিক চেকপোষ্ট বসিয়ে এই অভিযান চলে।

জেলা ট্রাফিক পুলিশের ইনচার্জ জহিরুল ইসলাম জানান, মোটর সাইকেল এর উপর আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে, আমাদের মূল উদ্দেশ্য জরিমানা আদায় নয়, সড়কে ট্রাফিক শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনাই হচ্ছে আমাদের মূল উদ্দেশ্য।

চাঁদপুরের মাননীয় পুলিশ সুপার মোঃ মিলন মাহমুদ বিপিএম-বার স্যারের নির্দেশক্রমে সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে রেজিস্ট্রেশন বিহীন গাড়ি, অপ্রাপ্ত বয়স্ক ,অদক্ষ চালক, বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালকের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে। তাছাড়া হেলমেটবিহীন, ড্রাইভিং লাইসেন্স বিহীন চালকদের বিরুদ্ধে সড়ক পরিবহন আইনে মামলা অব্যহত আছে।

সড়কে দুর্ঘিটনার জন্য অদক্ষ চালকরা অনেকাংশে দায়ী। আপনাদের মাধ্যমে আমি সকল চালক ভাইদের অনুরোধ করবো যেন নিজের জীবিন এবং অন্যের জীবন রক্ষার স্বার্থে ট্রাফিক আইন মেনে যেন গাড়ি চালায়। সড়কে বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালানো সকল দুর্ঘিটনার মূল কারন বলে আমি মনে করি।

জেলা ট্রাফিক পুলিশের ইনচার্জ জহিরুল ইসলামের নেতৃত্বে অভিযান পরিচালনায় ছিলেন ট্রাফিক সার্জেন আবদুল্লাহ আল নাহিয়ান, টিএসআই হুমায়ুন কবির, রূক মিয়া, আবুল কামাল আজাদ।

উল্লেখ্য: অপ্রাপ্ত বয়সে মোটরসাইকেল চালাতে গিয়ে চাঁদপুরে এরই মধ্যে বেশ কয়েকজন চালক ও আরোহী নিহত হয়েছে। শুধু তাই নয়, অনেকেই মোটরসাইকেল চালাচ্ছেন ঠিকই কিন্তু নিজেকে সুরক্ষা দিতে হেলমেট মাথায় পরছেন না। আবার এমনও আছে, মোটরসাইকেল চালাচ্ছেন অথচ তার কোনো প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নেই। এসব দিক বিবেচনায় নিয়েই চাঁদপুরে ট্রাফিক পুলিশের বিশেষ এই অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

একই রকম খবর