চাঁদপুর শহরের গুনরাজদী সপ্রাবিতে মা সমাবেশ

স্টাফ রিপোর্টারঃ চাঁদপুর সদর মডেল থানার ওসি নাসিম উদ্দিন বলেছেন,গুজবের মতো সামাজিক ব্যাধীর বিরুদ্ধে চাঁদপুর জেলা পুলিশ জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছে।কারন বিগত প্রতিটি গুজবের ঘটনায় দ্রুততম সময়ের মধ্যে আমরা পুলিশ প্রেরণ করে ভিকটিম কে উদ্ধার করেছি। এছাড়াও গুজব রটিয়ে অসহায় নির্যাতনকারীদের পিটানো অভিযুক্ত ব্যক্তি কেও ফেসবুক ভিডিও এবং তদন্ত সাপেক্ষে সনাক্ত করে ডিজিটাল সিকিউরিটি এক্ট এ মামলা দিয়ে জেলে পাঠিয়েছি। এছাড়াও গুজব প্রতিরোধে আমাদের জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে লিফলেট বিতরন, মাইকিং সহ ব্যপক প্রচারনাও চালানো হচ্ছে।আসুন আমরা সবাই মিলেমিলে চাঁদপুরের শান্তি রক্ষায় কাজ করি।

২৫ জুলাই বৃহস্পতিবার দুপুরে শহরস্থ ৬২ নং গুনরাজদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মা সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন,সোশ্যাল মিডিয়ায় ১টি কুচক্রী মহল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করতে গুজব ছড়াচ্ছে।তারা পদ্মা সেতু নির্মাণে কল্লা লাগবে বলে মেতে উঠেছে।যা সম্পূর্ণ বিভ্রান্তিকর।আমরা চাঁদপুরের শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে সবাইকে সতর্ক করে বলতে চাই।গুজবে মেতে কেউ নিজেকে ও দেশকে বিপদগ্রস্থ করার চেষ্টা করবেন না।কারন পুলিশ গুজব রটানোকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, দেশের শিক্ষা ব্যবস্থাকে এগিয়ে নিতে সন্তানদের প্রতিদিন স্কুলে পাঠাতে হবে।যে কোন সন্দেহজনক ব্যপার হলে আইনি প্রয়োজনে বিলম্ব না করে ৯৯৯ এ কল করুন। কোনভাবেই গুজবে মেতে অসহায় লোকদের গণপিটুনি দিয়ে আইন হাতে তুলে নিবেন না। তাহলেই আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে দেশের শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রেখে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারবো।

৬২ নং গুনরাজদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আলী আরশাদ মিয়াজীর সভাপতিত্বে এবং বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ আল মামুনের উপস্থাপনায় সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, চাঁদপুর পৌর ১২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাবিবুর রহমান দর্জি।

এ সময় দৈনিক স্বাধীন বাংলার জেলা প্রতিনিধি সাংবাদিক অমরেশ দত্ত জয়, দৈনিক আমার বার্তার জেলা প্রতিনিধি সাংবাদিক শ্যামল সরকার, বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক খালেদা বিনতে হাসান,জাকির হোসেন মিয়াজী, রহিমা আক্তার,সুফিয়া বেগম,আয়েশা আক্তার সহ বিদ্যালয়ের কয়েক’শ শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকরা উপস্থিত ছিলেন।

একই রকম খবর