চাঁদপুর সদরে ১০ ইউনিয়নের ভোটার ১ লাখ ৯৩ হাজার

আবদুল গনি : চাঁদপুরে ১০ ইউনিয়নের ভোটার ১ লাখ ৯৩ হাজার ৪শ ৯৯ জন। ৪৭২ জন প্রার্থী। আগামি ১১ নভেম্বর দ্বিতীয় ধাপে চাঁদপুর সদরের ১০টিসহ দেশের ৮৪৮টি ইউনিয়ন পরিষদের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। আগামি ২১ অক্টোবর যাচাই-বাচাই ।

চাঁদপুর উপজেলা সদর উপজেলার ১০ টি ইউনিয়নের ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ৯৩ হাজার ৪শ ৯৯ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার সংখ্যা ১০ লাখ ১ হাজার ৮৪ জন এবং মহিলা ভোটার সংখ্যা ৯২ হাজার ৪ শ ৫১ জন ।

প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, বিষ্ণুপুর ইউপির ৪জন চেয়ারম্যান প্রার্থী হলেন, বর্তমান চেয়ারম্যান এবং আওয়ামী লীগ মনোনিত দলীয় প্রার্থী মো.নাছির উদ্দীন খান শামীম, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মো.জিয়াউর রহমান,খোরশেদ আলম ও বাংলাদেশ ইসলামী আন্দোলন মনোনিত অজিউল্লাহ সরকার। এ ইউনিয়নে ৩টি সংরক্ষিত আসনের সদস্যপদে ৬ জন এবং ৯টি ওয়ার্ডে সাধারণ সদস্য পদে ২৯জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র জমা দেন। বিষ্ণুপুর ইউনিয়ন এর ভোটার সংখ্যা ২৬ হাজার ২৫৭ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার সংখ্যা ১৩ হাজার ৬০ ৫ জন এবং মহিলা ভোটার সংখ্যা ১২ হাজার ৬৫২ জন।

আশিকাটি ইউনিয়ন থেকে ৫৩ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান প্রার্থী ৬জন। তারা হলেন ; আওয়ামী লীগ মনোনিত দলীয় প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান মোহাম্মদ বিল্লাল হোসেন পাটওয়ারী, ইসলামী আন্দোলন মনোনিত মো. মাসুদ গাজী, স্বতন্ত্র প্রার্থী দেলওয়ার হোসেন খান, জাফর আহম্মেদ খান, নয়ন চন্দ্র দাস, সাইফুল ইসলাম। এ ইউনিয়নে সাধারণ সদস্য পদে ৪১ জন এবং সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ৬জন মনোনয়ন জমা দেন।

আশিকাটি ইউনিয়নের ভোটার সংখ্যা ২০ হাজার ৮১১ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার সংখ্যা ১০ হাজার ৬৫১ জন এবং মহিলা ভোটার সংখ্যা ১০ হাজার ১৬০ জন।

শাহমাহমুদপুর ইউনিয়ন থেকে ৫৪ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান প্রার্থী ৬জন। তারা হলেন: বর্তমান চেয়ারম্যান স্বপন মাহমুদ, আওয়ামী লীগ মনোনিত দলীয় প্রার্থী মো. মাসুদুর রহমান নান্টু,ইসলামিক আন্দোলনের মো.শাহ জামাল গাজী, স্বতন্ত্র মো.আবুল হাসেম রুশদী, মো.ফারুক হোসেন বেপারী, মো.রফিকুল ইসলাম। সাধারণ সদস্য পদে ৩৮জন ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ১০ জন ৭ জন মনোনয়ন জমা দেন। এ ইউনিয়নের ভোটার সংখ্যা ২১ হাজার ৬৩৯ জন্ । এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১১ হাজার ২৬ জন এবং মহিলা ভোটার ১০ হাজার ৬১৩ জন ।

রামুপুর ইউনিয়ন থেকে ৪৬ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান প্রার্থী ৫ জন। তারা হলেন: আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী এবং বর্তমান চেয়ারম্যান আল মামুন পাটওয়ারী, ইসলামীক আন্দোলনের আলতাফ হোসেন, স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল বারাকাত মো.রেজওয়ান, মো. ইকবাল হোসেন পাটওয়ারী, মো. দিদার হোসেন। এ ইউনিয়নে সাধারণ সদস্য পদে ৩৩ জন ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ৮ জন পদে ৭জন মনোনয়ন জমা দেন। রামপুর ইউনিয়নের ভোটার সংখ্যা ১৬ হাজার ৯৭৬ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার সংখ্যা ৮ হাজার ৭১৩ জন এবং মহিলা ভোটার সংখ্যা ৮ হাজার ২৬৩ জন।

মৈশাদী ইউনিয়ন থেকে ৫১ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান প্রার্থী ৪ জন। তারা হলেন: বর্তমান চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান মানিক, আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী মো.নুরুল ইসলাম, স্বতন্ত্র মো. মনিরুজ্জামান, আবু জাফর মো. সালেহ, ইসলামিক আন্দোলনের আজহারুল ইসলাম। এ ইউনিয়নে সাধারণ সদস্য পদে ৪০ জন ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ৭জন মনোনয়ন জমা দেন। এ ইউনিয়নের ভোটার সংখ্যা ১৩ হাজার ২৮২ জন । এর মধ্যে পুরুষ ভোটার সংখ্যা ৬ হাজার ৭৯৭ জন এবং মহিলা ভোটার সংখ্যা ৬ হাজার ৪৮৯ জন ।

তরপুরচন্ডী ইউনিয়ন থেকে ৪১ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান প্রার্থী ৩জন। তারা হলেন: বর্তমান চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী ইমাম হাসান রাসেল গাজী, ইসলামিক আন্দোলনের মো. মারুফ সর্দার,স্বতন্ত্র মো. আলম খান। এখানে সাধারণ সদস্য পদে ৩০ জন ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ৮জন মনোনয়ন জমা দেন। তরপুরচন্ডী ইউনিয়ন সংখ্যা ভোটার সংখ্যা ১০ হাজার ৩৫৫ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৫ হাজার ২৬৮ জন এবং মহিলা ৫ হাজার ৮৭ জন।

বাগাদী ইউনিয়ন থেকে ৫০ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান প্রার্থী ৫ জন। তারা হলেন: বর্তমান চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী আলহাজ বেলায়েত হোসেন গাজী বিল্লাল, ইসলামিক আন্দোলনের মো.নেয়ামত উল্লাহ, স্বতন্ত্র মো.বরকত উল্ল্যাহ খান, মানিক মিয়া, জাকের পার্টি মুনসুর বেপারী। এখানে সাধারণ সদস্য পদে ৩৭ জন ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ৮ জন মনোনয়ন জমা দেন। এ ইউনিয়নের ভোটার সংখ্যা ২৬ হাজার ৬৮ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার সংখ্যা ১৩ হাজার ৭৯০ জন এবং মহিলা ১২ হাজার ২৭৮ জন্।

বালিয়া ইউনিয়ন থেকে ৪৮জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান প্রার্থী ৭ জন। তারা হলেনঃ আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী রফিক উল্যাহ মাস্টার, স্বতন্ত্র বর্তমান চেয়ারম্যান মো.তাজুল ইসলাম মিয়াজী, মো. নুরুদ্দিন খান,স্বতন্ত্র হাফিজুর রহমান, মো. জাহাঙ্গীর হোসেন তফাদার, মো.কামরুল হাসান খান,গাজী মো. মাসুদ রায়হান। এখাসে সাধারণ সদস্য পদে ৩০ জন ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ১১জন মনোনয়ন জমা দেন। এ ইউনিয়নের ভেঅটার সংখ্যা ২৬ হাজার ৫৫২ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১৪ হাজার ১০৭ জন এবং মহিলা ভোটার ১২ হাজার ৪৪৫ জন।

চান্দ্রা ইউনিয়ন থেকে ৫৪ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান প্রার্থী ৫জন। তারা হলেন: আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান খান জাহান আলী কালু পাটওয়ারী,ইসলামী আন্দোলনের মাও. মো. মজিবুর রহমান মিয়াজী, স্বতন্ত্র প্রার্থী মুকবুল, নাছির উদ্দিন গাজী, আব্দুর রহমান বেপারী। এছাড়া সাধারণ সদস্য পদে ৪০ জন ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ৯জন মনোনয়ন জমা দেন।

হানারচর ইউনিয়ন থেকে ৩৬ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান প্রার্থী ৫ জন। তারা হলেন: বর্তমান চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুস ছাত্তার রাঢ়ী, আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী প্রতিক মো. মুকবুল হোসেন মিয়াজী, ইসলামিক আন্দোলনের মো. মনির হোসেন,স্বতন্ত্র মো. নাছির মাঝি, মোজাম্মেল হোসেন গাজী। এখানে সাধারণ সদস্য পদে ২৭জন ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ৬জন মনোনয়ন জমা দেন। এ ইউনিয়নের ভোটার সংখ্যা ৬ হাজার ৯০৩ জন্ এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৩ হাজার ৮৭৫ জন এবং মহিলা ভোটার ৩ হাজার ২৮ জন।

চাঁদপুর সদরের এ নির্বাচনে ১৭ অক্টোবর রোববার ছিলো এ নির্বাচনে সকল পদে প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র দাখিলের সময় শেষ দিন। সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত উৎসব মুখর পরিবেশে চাঁদপুর সদর উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের সর্বমোট ৪৭২জন প্রার্থী তাদের নিজ দলীয় নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের সাথে নিয়ে স্ব স্ব সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং অফিসারের কাছে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ৫০ জন, সাধারণ সদস্য পদে ৩৪৫ জন এবং সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ৭৯জন।

জেলা নির্বাচন অফিসারের কার্যালয় থেকে প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, সদর উপজেলা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রকৌশলী এবং দায়িত্বপ্রাপ্ত রিটার্নিং অফিসার এএসএম রাশেদুর রহমানের হাতে মনোনয়নপত্র জমা দেন বিষ্ণুপুর, তরপুচন্ডীপুুর ও বালিয়া ইউনিয়নের প্রার্থীরা।সদর উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার ডাঃ মোহাম্মদ মকবুল হোসেনের কাছে মনোনয়ন পত্র জমা দেন রামপুর, শাহ মাহমুদপুর ইউনিয়নের প্রার্থীরা। জেলা নির্বাচন অফিসারের কাছে মনোনয়ন পত্র জমা দেন বাগাদী, চান্দ্রা, হানারচর, মৈশাদী ও আশিকাটি ইউনিয়নের প্রার্থীরা।

প্রসঙ্গত, দ্বিতীয় ধাপের চাঁদপুরের ১০ ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনের মনোনয়নপত্র যাচাই বাছাই ২১ অক্টোবর,বাছাইয়ের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল ২১ থেকে ২৩ অক্টোবর, আপিল নিষ্পত্তি ২৪ ও ২৫ অক্টোবর, প্রার্থিতা প্রত্যাহার ২৬ অক্টোবর, প্রতীক বরাদ্দ ২৭ অক্টোবর এবং ভোট গ্রহণ ১১ নভেম্বর।

 

একই রকম খবর