চান্দ্রায় মুক্তিযোদ্ধার ২টি নামফলক ভাংচুর

বিশেষ প্রতিনিধি : চাঁদপুরের চান্দ্রায় বুধবার রাতের আধারে মুক্তিযোদ্ধা মৃত আলী আশ্রাফ পাটোয়ারীর ২টি নামফলক দূবৃত্তরা ভাংচুর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে, চাঁদপুর সদর উপজেলার ১২ নং চান্দ্রা ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডে।

এ ব্যাপারে চাঁদপুর মডেল থানায় বৃহস্পতিবার রাতে তিনজনের নামে অভিযোগ করা হয়েছে। অভিযুক্তরা হচেছ, শহীদ পাটোয়ারী, খোরশেদ পাটোয়ারী ও ওমর আলী পাটোয়ারী।

মুক্তিযোদ্ধা আলী আশ্রাফ পাটোয়ারীর ছেলে নাসির আহমেদ পাটোয়ারী জানান, দীর্ঘদিন যাবৎ বাড়ির কিছু লোকজন সম্পত্তি গত বিরোধ নিয়ে আমাদের পরিবারের সাথে ঝগড়া বিবাধ করে যাচেছ।।

আমাদের সম্পত্তি তারা জোরপূর্বক দখল করে তারা আমাদে কে বাড়ির থেকে তাড়িয়ে দেওয়ার পাঁয়তারায় লিপ্ত রয়েছে।

১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে বাবা আলী আশ্রাফ পাটেয়ারী দেশকে স্বাধীন করার জন্য যুদ্ধ করেছে। তিনি মারা যাওয়ার পর সরকারী ভাবে আলী আশ্রাফ পাটোয়ারীর নামে ৭নং ওয়ার্ডে তার নামে একটি রাস্তার নাম করণ করা হয়।

এছাড়া সোনালী ব্যাংক থেকে তিন লক্ষ টাকা লোন নিয়ে বাড়ির প্রধান গেট, কবরস্থান ও শহীদ মিনার সহ দুটি নামফলকের কাজ করা হয়।

বাড়ির প্রতিপক্ষরা ক্ষিপ্ত হয়ে মুক্তিযুদ্ধা আশ্রাফ পাটোয়ারীর নাম নিশানা মুছে দেওয়ার জন্য তারা নামফলক ভেঙ্গে ফেলেছে।

তাতেও তারা ক্ষান্ত হননি বাড়ির প্রধান গেটের মুক্তিযোদ্ধা আলী আশ্রাফ পাটওয়ারীর নামটিতে রং মেখে মুছে ফেলে দেয়। এমনাক শহীদ মিনারে কাদা দিয়ে মেখে শহীদদের প্রতি চরম অবমাননা করে। মুক্তিযোদ্ধা আলী আশ্রাফ পাটোয়ারীর পরিবার এ ঘটনার দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবি জানান।

এ ব্যাপারে তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই আবু হানিফ জানান, মুক্তিযুদ্ধার নামফলক ভাঙচুর ও তার নাম নিশানা মুছে ফেলার ঘটনায় শহীদ পাটোয়ারী, খোরশেদ পাটোয়ারী ও ওমর আলী পাটোয়ারীর বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।এ ঘটনা যারা করেছে তাদেরকে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

একই রকম খবর