জনগণের চোখে পদ্মা সেতু এবং সরকারের উন্নয়ন-(সাত)

বিশেষ প্রতিনিধিঃ পদ্মা সেতু বাংলার অহংকার। সাহসের প্রতীক। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তথা আওয়ামীলীগ সরকারের অনন্য অবদান। যা অনন্তকাল আওয়ামীলীগের উন্নয়নের নজির হিসেবে থাকবে।

স্বপ্নের পদ্মা সেতু আজ বাস্তবে রুপ দেয়ায় “দৈনিক চাঁদপুর খবর” নাগরিকদের ধারাবাহিক অভিমত প্রকাশ করার উদ্যোগ নিয়েছে। গতকাল (২ জুলাই) চাঁদপুর খবরকে অভিমত ব্যক্ত করেছেন, চাঁদপুর সরকারি কলেজের উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও কলেজের শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক মোহাম্মদ কামরুল হাছান। তা উপস্থাপন করা হলো ঃ-

চাঁদপুর খবর ঃ কেমন আছেন?

কামরুল হাছান ঃ আলহামদুল্লিাহ, ভালো ।

চাঁদপুর খরব ঃ স্বপ্নের পদ্মা সেতু উদ্বোধন হয়েছে। আপনার অভিমত কি ?

কামরুল হাছান ঃ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং বর্তমান মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের আওয়ামীলীগ সরকারের উপহার হচ্ছে পদ্মা সেতু। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই দেশের সর্ববৃহৎ সেতু নির্মাণ করার জন্য। জমকালো উদ্বোধনী অনুষ্টানটি উপভোগ করেছি। অনেক ভালো লেগেছে আমার। পদ্মা সেতু আমাদের অহংকার ও বিশাল অবকাঠানো নির্মাণে সাহসের উৎসাহ।

চাঁদপুর খবর ঃ পদ্মা সেতু উদ্বোধন নিয়ে দেশের সকল জেলায় একযোগে উৎসব অনুষ্টিত হয়েছে এ সম্পর্কে মন্তব্য কি?

কামরুল হাছান ঃ পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান স্মরণ রাখার মতো। যা আগামী প্রজন্ম যুগ যুগ ধরে স্মরণ রাখবে। যা আমাদের জন্য একটি ইতিহাস হয়ে থাকবে। বাংলাদেশের ইতিহাসে এমন সুন্দর অনুষ্ঠান বিরল। সকল জেলা স্বাক্ষী হয়ে রইল এ বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের।

চাঁদপুর খবর ঃ পদ্মা সেতু নির্মাণে যোগাযোগের ক্ষেত্রে কতটুকু অবদান রাখবে বলে আপনি মনে করেন?

কামরুল হাছান ঃ যোগাযোগের ক্ষেত্রে বিশাল অবদান রাখবে। যার হবে অতুলনীয়। উত্তরাঞ্চলের সাথে দক্ষিনাঞ্চলের যোগাযোগে এক সেতু বন্ধন রচিত হয়েছে। শুধু দুই তীরের মানুষের জন্য নয়, সমগ্র বাংলাদেশের জন্য একটি মডেল হয়ে থাকবে এই সেতুটি।

চাঁদপুর খবর ঃ পদ্মা সেতু নির্মাণে কার অবদান ও ভূমিকা রয়েছে এ বিষয়ে আপনার বক্তব্য কি?

কামরুল হাছান ঃ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কারনেই আজকের পদ্মা সেতু। তিনি উদ্যোগ না নিলে এ সেতু হতো না। সকল বাধা বিপত্তি উপেক্ষা করে তিনি এ সেতু তৈরি করেছেন বাংলার মানুষের জন্য। এ আমাদের জন্য পরম পাওয়া। আমি বর্তমান সরকার কে ধন্যবাদ জানাই এমন একটি সেতু আমাদের উপহার দেয়ার জন্য।

চাঁদপুর খবর ঃ পদ্মা সেতু দ্বারা বাংলাদেশের উন্নয়ন ও অর্থনৈতিকভাবে কেমন সুফল পাবে বলে মনে করেন।

কামরুল হাছান ঃ বাংলাদেশ আজ উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে। বিশাল অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি বাড়ছে। দেশ একটি স্বনির্ভর রাষ্ট্রে পরিণত হচ্ছে। বাংলাদেশ শক্তিশালী দেশ হিসেবে বিশ্বের অর্থনৈতিক বাজারে অবদান রাখবে বলে আমি মনে করি।

চাঁদপুর খবর ঃ পদ্মা সেতুর রক্ষণাবেক্ষণে আমাদের করনীয় কি ?
কামরুল হাছান ঃ সরকার সেতুর দু’পাড়ে দুইটি থানা নির্মাণ করেছেন। যা অত্যন্ত ভালো প্রদক্ষেপ। সেতুর নিরাপত্তায় আইনশৃংখলা বাহিনীকে সজাগ থাকতে হবে। সকল প্রকার নাশকতা প্রতিহত করতে হবে। যারা নাশকতা করবে তাদের বিচারের আওতায় আনতে হবে। তবে ইতোমধ্যে সেতুর বিভিন্ন স্থানে ক্যামেরা বসানো হয়েছে তা অত্যন্ত কার্যকরী একটি প্রদক্ষেপ।

চাঁদপুর খবর ঃ পদ্মা সেতুর সৌন্দর্য্য অবলোকন করতে কবে যাচ্ছেন ?

কামরুল হাছান ঃ অবশ্যই যাবো। ছাত্র,শিক্ষকরা মিলে যাবো। যা আমাদের স্বপ্নের সেতু।

চাঁদপুর খবর ঃ যারা বলেছে পদ্মা সেতু হবে না। করা সম্ভব না, তাদের প্রতি আপনার প্রতিক্রিয়া কি ?

কামরুল হাছান ঃ যারা বিরোধীতা করেছে তারা উদ্বোধনের মধ্যদিয়ে জবাব পেয়েছে। দেশের ও দশের উন্নয়ন বলতেই বর্তমান সরকারের পক্ষেই সম্ভব।

চাঁদপুর খবর ঃ সময় দেয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।
কামরুল হাছান ঃ চাঁদপুর খবরকেও ধন্যবাদ এবং আপনাকেও ধন্যবাদ।

 

একই রকম খবর