টিকা ব্যতীত এইচএসসি পরীক্ষা দিতে পারবে না : ডিসি অঞ্জনা খান মজলিশ

আসন্ন ২ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিতব্য এইচ এসসি ও সমমানের পরীক্ষা সুষ্ঠ ও সুন্দরভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে প্রস্তুতি ও সরকারি দিকনিদের্শনা মেনে চলার জন্যে জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ বলেন,‘সরকারি নিদের্শনায় টিকা ব্যতীত কোনো পরীক্ষার্থী এইচএসসি,মাদ্রাসা বোর্ডের আলিম ও ব্যবসায় ব্যবস্থাপনা ও ভোকেশনাল পরীক্ষায় অঙশগ্রহণ করতে পারবেনা। তাদের টিকা গ্রহণে সকল ব্যবস্থা ইতোমধ্যেই নেয়া হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা গ্রহণ করতে হবে। পরীক্ষা কক্ষে কেউ মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে পারবে না। সরকারি প্রতিটি নিদের্শনা মেনে পরীক্ষা গ্রহণ করতে হবে।’

তিনি চাঁদপুরে পরীক্ষার্থী এইচএসসি,মাদ্রাসা বোর্ডের আলিম ও ব্যবসায় ব্যবস্থাপনা ও ভোকেশনাল পরীক্ষার্থীদের একটি মাত্র টিকা কেন্দ্র খোলার রিষয়টির কারণও তুলে ধরে বক্তব্য দেন।’

সংশ্লিষ্ঠ প্রতিষ্ঠান প্রধানগণের উপস্থিতিতে আসন্ন এইচ এসসি ও সমমানের পরীক্ষা সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে প্রস্তুতি ও সরকারি দিকনিদের্শনা জানানোর জন্যে জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে আজ ২৩ নভেম্বর বেলা ১১ টায় একটি গুরুত্বপূর্ণ সভা হয় । সভায় সভাপতিত্ব করেন মান্যবর জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ।

সারাদেশের ন্যায় চাঁদপুরেও একযোগে অনুষ্ঠিত হচ্ছে এইচএসসি, মাদ্রাসা বোর্ডের আলিম ও ব্যবসায় ব্যবস্থাপনা ও ভোকেশনাল পরীক্ষা। সারাদেশের ন্যায় এক-অভিন্ন সময় ও নিয়ম নীতিতে সকাল ১০ টায় ওই পরীক্ষা শুরু হবে। চাঁদপুরে এবার এইচ এসসি ও সমমানের ৫২ কেন্দ্রে অংশ নিচ্ছে ২১ হাজার ৯শ পরীক্ষার্থী।

এবছর চাঁদপুর জেলার ৮ উপজেলায় পরীক্ষার্থীর সংখ্যা এইচএসসিতে ৫২কেন্দ্রে এইচএসসি,আলিম,বিএম ও এইচ এস সি ভোকেশনা পরীক্ষা ২ ডিসেম্বর সকাল ১০ টায় শুরু হচ্ছে। যা ৩০ ডিসেম্বর শেষ হবে।

চাঁদপুর জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আজ সকাল ১১ টায় জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিস এর সভাপতিত্বে সকল উপজেলা প্রশাসন ও সংশ্লিষ্ট কলেজ ও মাদ্রাসার কেন্দ্রে সচিব ও সহকারী সচিবদের সমন্বয়ে এইচএসসি,আলিম,বিএম ও এইচএস সি ভোকেশনা পরীক্ষা সুষ্ঠু,সুন্দরভাবে সম্পন্ন করার প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

চাঁদপুর জেলা প্রশাসনের শিক্ষা শাখার সূত্রমতে, জেলায় এইচএসসি পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১৭ হাজার ৬শ ৫২ জন এবং কেন্দ্র ৩৪টি, মাদ্রাসা বোডের্র আলিম পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ২ হাজার ৯শ’৪ এবং কেন্দ্র ১১টি,ব্যবসায় ব্যবস্থাপনা পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১ হাজার ২শ’ ৯১জন ও কেন্দ্র ৬টি এবং ভোকেশনাল পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ৬১ জন ও কেন্দ্র ১টি। পরীক্ষা সুষ্ঠ ও সুন্দরভাবে পরিচালনার জন্যে জেলা প্রশাসন কর্তৃক অনেকগুলো প্রয়োজনীয় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। জেলা প্রশাসনের শিক্ষা শাখা কর্তৃক সরকারি নির্দেশিকা পাঠ করে উপস্থিত সকলকে অবহিত করা হয়।

এদিকে নকলমুক্ত ও শান্তিপ্রিয় পরিবেশে পরীক্ষা অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে জেলা প্রশাসন থেকে সকল প্রকার প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। পরীক্ষার হলে সকল ধরনের অসাধু উপায় বর্জনের জন্যে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে কড়া হুঁশিয়ারি রয়েছে।

এছাড়াও শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি যদি কোনো শিক্ষক অসাধু উপায় অবলম্বন করে এবং তা প্রমাণিত হয় তাহলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানা যায় ।

শিক্ষামন্ত্রণালয় সূত্র জানা যায়, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকে সার্বক্ষণিকভাবে সারাদেশের এইচএসসি ও সমমানের সকল পরীক্ষা তদারকি করা হবে।

পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট পূর্বে পরীক্ষার্থীদেরকে অবশ্যই পরীক্ষা কক্ষে আসন গ্রহণ করতে হবে। পরীক্ষা শুরুর ২৫ মিনিট পূর্বে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার মোবাইল ফোন নম্বরে সেট কোড ব্যবহারের নির্দেশনার এসএমএস যাওয়ার পর প্রশ্নপত্রের প্যাকেট খোলা যাবে।

কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ব্যতীত অন্য কেউ মোবাইলফোন বা ইলেকট্রনিক ডিভাইস নিয়ে কেন্দ্রে প্রবেশ করতে পারবে না। কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ছবি তোলা যায় না এমন মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে পারবেন।

আসন্ন উচ্চ মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এইচএসসি) পরীক্ষা কেন্দ্রের ২শ’গজের ভেতর পরীক্ষার্থী ছাড়া জনসাধারণের প্রবেশ নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

একই রকম খবর