ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির অষ্টাদশ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন

বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে শেষ হলো ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির চার দিনব্যাপী অষ্টাদশ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর উৎসব।

শনিবার ২৫ জানুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাস আশুলিয়ার স্বাধীনতা মিলনায়তনে আয়োজিত সমাপনী দিনের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে শিক্ষার্থীদের সামনে অনুপ্রেরণাদায়ী বক্তব্য দেন বিজিএমইএর সভাপতি ও মোহাম্মদী গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. রুবানা হক।

এছাড়াও তিনি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে প্রয়াত মেয়র আনিসুল হকের নামে ’আনিসুল হক ভবন’ এর উদ্বোধন করেন। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সাবেক সেনা প্রধান জেনারেল আবু বেলাল মোহাম্মদ শফিউল হক এবং প্রয়াত মেয়র আনিসুল হকের বোন জেসমিন ওয়াফা।

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. মো. সবুর খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য এবং সায়েন্স অ্যান্ড ইনফরমেশন টেকনোলজি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. এস এম মাহবুব উল হক মজুমদার, স্থায়ী ক্যাম্পাসের ডিন অধ্যাপক ড. মোস্তফা, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ানিং বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. সৈয়দ আকতার হোসেন, সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান ড. তৌহিদ ভূঁইয়া, মাল্টিমিডিয়া ও ক্রিয়েটিভ টেকনোলজি ডিপার্টমেন্টের প্রধান ড. শেখ মোঃ আলায়ার, জেনারেল এডুকেশনাল ডেভেলাপমেন্ট ভিাগের প্রধান ও স্টুডেন্ট এফেয়ার্সের পরিচালক সৈয়দ মিজানুর রহমান, পরিবেশ বিজ্ঞান ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের প্রধান ড. এবিএম কামাল পাশা ও সি আই এস বিভাগের প্রধান মোঃ সরোয়ার হোসেন মোল্লা প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. রুবানা হক বলেন, বড় লোক হওয়া এবং বড় মানুষ হওয়ার মধ্যে পার্থক্য রয়েছে। শিক্ষা মানুষকে এই পার্থক্য বুঝতে সাহায্য করে। ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয় তোমাদেরকে যে শিক্ষা প্রদান করছে, শিক্ষার মাধ্যমে তোমরা বড় মানুষ হতে পারবে বলে আশা রাখি।
শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে তিনি আরো বলেন, জীবনের লক্ষ্য নির্ধারণ করো। সুসৃঙ্খল জীবনযাপন করো। শৃঙ্খলা ছাড়া জীবনে উন্নতি করা যায় না।

এসময় তিনি প্রয়াত মেয়র আনিসুল হকের কথা উল্লেখ করে বলেন, আনিসের জীবনের সফলতার পেছনের অন্যতম উপাদান হচ্ছে শৃঙ্খলা। তোমরা বিনয়ী হও। আর সবার আগে পরিবারকে প্রাধান্য দাও। এরপর তিনি ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ে স্থাপিত আনিসুল হক স্টাডি সেন্টারে ১০০টি বই উপহারের ঘোষণা দেন।

সভাপতির বক্তব্যে ড. মো. সবুর খান বলেন, তথ্যপ্রযুক্তির এ যুগে ক্যারিয়ারের উন্নয়নের জন্য নিজের দক্ষতা বাড়ানোর বিকল্প নেই। তরুণদেরকে তাই ছাত্রাবস্থাতেই পড়াশোনার পাশাপাশি বিভিন্ন বিষয়ে নিজের দক্ষতা তৈরি করতে হবে। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি শিক্ষার্থীদের দক্ষতা উন্নয়নে অসংখ্য কাজ করে থাকে। উদাহরণ হিসেবে তিনি আর্ট অব লিভিং, এমপ্লয়াবিলিটি ৩৬০ ডিগ্রি, ওয়ান স্টুডেন্ট ওয়ান ল্যাপটপ ইত্যাদির কথা বলেন। তিনি শিক্ষার্থীদের পারস্পরিক নেটওয়ার্ক বাড়ানোর পরামর্শ দেন।

ড. মো. সবুর খান বলেন, শিক্ষার্থীরা যাতে নিজের দক্ষতা বৃদ্ধি ও উজ্জ্বল ক্যারিয়ার গড়তে পারে সেই উদ্দেশ্যেই ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের মাঝে এ পর্যন্ত ৪০ হাজার ল্যাপটপ বিনামূল্যে বিতরণ করেছে।

গত ২২ জানুয়ারি থেকে চার দিনব্যাপী ‘১৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী’ উৎসব উদযাপন করলো ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি। উৎসবের প্রথম দিন (২২ জানুয়ারি) জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী ‘মুজিববর্ষ’ উদযাপনের অংশ হিসেবে ১০০টি ঘুড়ি উড়িয়ে ‘১৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী’ উৎসব উদযাপনের উদ্বোধন করেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান, এমপি। আজ ছিল এ উৎসব আয়োজনের সমাপনী দিন।

একই রকম খবর