কচুয়ায় ড. মহীউদ্দীন খান আলমগীরের মনোনয়ন বহাল না থাকলে গণপদত্যাগ

আহম্মদ উল্যাহ : বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্র্শের ধারক ও জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রতি বিশ্বস্থ কচুয়া মাটিঁ ও মানুষের নেতা ড. মহিউদ্দিন খান আলমগীরের বিরুদ্ধে অসত্য সংবাদ পরিবেশনের প্রতিবাদ এবং মনোনয়র বহাল রাখার দাবিতে কচুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠন, উপজেলা পরিষদ, পৌর পরিষদ, জেলা পরিষদরে সদস্য ও সকল ইউনিয়নের চেয়ারম্যানবৃন্দের আয়োজনে চাঁদপুর প্রেসক্লাবে বৃহস্পতিবার (২৯ নভেম্বর) দুপুর ২টায় সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকবাল হোসনে পাটওয়ারীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মির্জা জাকিরের পরিচালনায় লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন কচুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আইয়ুব আলী পাটওয়ারী।

লিখিত বক্তব্য তিনি বলেন, “আজ কচুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ, উপজেলা পরিষদ, কচুয়া পৌর পরিষদ, জেলা পরিষদের সদস্য, ইউপি চেয়ারম্যানবৃন্দ ও আওয়ামী লীগের সকল সহযোগী সংগঠন যৌথভাবে সংবাদ সম্মেলন করার উদ্দেশ্যে আপনাদের সামনে হাজির হয়েছি। আমাদের ডাকে সাড়া দিয়ে সংবাদ সম্মেল করার সুযোাগ দেয়ায় চাঁদপুর প্রেস ক্লাবের সভাপতি, সম্পাদকসহ সকল সাংবাদিক বৃন্দ দেরকে জানাই শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।

আপনারা অবগত আছেন আগামী ৩০ ডিসেম্বর ২০১৮ইং অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। এ নির্বাচনকে সামনে রেখে গত ৭/১১/২০১৮ইং তারিখে কচুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে আওয়মীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের যৌথ সভায় সর্ব সম্মতিক্রমে সিদ্ধান্ত হয় যে, আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ২৬০ চাঁদপুর-১ কচুয়া সংসদীয় আসনে আওয়ামীলীগের একক দলীয় প্রার্থী হিসাবে নির্বাচনে অংশ গ্রহণে ইচ্ছুক অন্য কোন প্রার্থী না থাকায় দীর্ঘ ২৫ বছর কচুয়ার অবহেলীত জনগণের সেবায় নিয়োজিত আধুনিক কচুয়ার স্বপ্নদ্রষ্টা, যার হাতধরে কচুয়ায় গ্যাস, পানি, বিদ্যুত, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও অবকাঠামো উন্নয়নের মাধ্যমে আমূল পরিবর্তন হয়েছে এমন তৃনমূলের পচন্দের ব্যাক্তি ড. মহীউদ্দীন খাঁন আলমগীরের নাম সর্ব সম্মতিক্রমে প্রস্তাব গৃহীত হয়। যাহা রেজুলোশন সহকারে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ শেখ হাসিনার বরাবর আবেদন উপস্থিতির স্বাক্ষরসহ দলীয় মনোনয়নের সাথে সংযুক্ত করে দেওয়া হয়।

পরে ড. মহীউদ্দীন খাঁন আলমগীরকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে মনোনীত করা হয়। তাকে দলীয় প্রার্থী হিসেবে মনোনীত করায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরসহ মনোনয়ন বোর্ডের সকল সদস্যকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাই।

এই সংবাদ সম্মেলন থেকে আমরা ঘোষনা করছি আগামী ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে আমরা কচুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ, উপজেলা পরিষদ, কচুয়া পৌর পরিষদ, জেলা পরিষদের সদস্য, ইউপি চেয়ারম্যানবৃন্দ ও আওয়ামী লীগের সকল সহযোগী সংগঠনের নেত্রীবৃন্দ ঐক্যবদ্ধ হয়ে আবারো সাবেক সফল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জননেতা ড. মহীউদ্দীন খাঁন আলমগীরকে সাংসদ নির্বাচিত করবো।

পাশাপাশি এ সংবাদ সম্মেলনে আরেটি বিষয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পরিষদের প্রতি সম্মান প্রর্দশন করে বলতে চাই ড. মহীউদ্দীন আলমগীরের পাশাপাশি জনৈক গোলাম হোসেন নামে এক ব্যাক্তির নাম রাখা হয়েছে। যাহা আমরা উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন কামনা করি না। জনৈক গোলাম হোসেন ইতি পূর্বে কখনো কচুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের কর্মকান্ডে সম্পৃক্ত হয়নি। তথাপিও তার নাম মনোয়ন পত্রে থাকায় আমরা এর তীব্রনিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

অহেতুক কোন কারন ছাড়া ড. মহীউদ্দীন খান আলমগীরের স্থলে জনৈক গোলাম হোসেনকে মনোনীত করা হয় তাহলে নিশ্চিত ফল বিপর্যয়ের সম্ভাবনা রয়েছে।

জনৈক গোলাম হোসেনের মদদপুষ্ট হয়ে বিগত উপজেলা নির্বাচন ও ইউপি নির্বাচনে দলের প্রার্থীর বিরোধীতাকারী, দলের প্রার্থীর বিরুদ্ধে নির্বাচনে অংশ গ্রহণকারী ও দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে বহিষ্কৃত/ অব্যহতি প্রাপ্ত গুটি কয়েক দলচুট ব্যাক্তির নেতৃত্বে একটি কুচক্রি মহল কচুয়ার মাটি ও মানুষের নেতা কচুয়া উপজেলার উন্নয়নের রুপকার জননেতা ড. মহীউদ্দীন খাঁন আলমগীরের বিরুদ্ধে সংবাদকর্মীদের ভুল তথ্যদিয়ে গত ২৮ নভেম্বর দৈনিক কালের কন্ঠ ও দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিন প্রত্রিকায় অসত্য সংবাদ প্রকাশ করিয়েছে।

এছাড়া ফেসবুকসহ সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমে দীর্ঘদিন যাবৎ বিভিন্ন অপপ্রচার ও কুৎসা রটাচ্ছে। আমরা উপজেলা আওয়ামী লীগ, উপজেলা পরিষদ, কচুয়া পৌরপরিষদ, জেলা পরিষদ সদস্য, ইউপি চেয়ারম্যানবৃন্দ ও আওয়ামী লীগের সকল সহযোগী সংগঠন এ জাতীয় বিবেক বর্জিত সংবাদ ও অপপ্রচারের তীব্রনিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।”

শুরুতেই সাংবাদিকের উদ্দেশ্যে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কচুয়া উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান বিশিষ্ট রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব অ্যাডভোকেট মো. হেলাল উদ্দিন।

এসময় বক্তব্য রাখেন, কচুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আইয়ূব আলী পাটোয়ারী,  কচুয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শাহজাহান শিশির।কচুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সোহরাব হোসেন চৌধুরী সোহাগ,

এসময় উপস্থিত ছিলেন, কচুয়া পৌর মেয়র ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি, নাজমুল আলম স্বপন, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সালমা সহিদ, চাঁদপুর জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান রনওক আরা রত্না, ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম লালু, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহজালাল প্রধান জালাল।

এসময় সাংবাদিকরেদ মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, চাঁদপুর প্রেস ক্লবের সাবেক সভাপতি ইকরাম চৌধুরী, কাজী শাহাদাত, গোলাম কিবরিয়া জীবন, শহীদ পাটওয়ারী, বিএম হান্নান, শরীফ চৌধুরী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন মিলন, রহিম বাদশা, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক চাঁদপুর খবর পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ও প্রকাশক সোহেল রুশদী, চাঁদপুর টেলিভিশন সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি আল ইমরান শোভন, সাধাণর সম্পাদক রিয়াদ ফেরদৌস, সময় টেলিভিশনের চাঁদপুরস্থ স্টাফ রিপোর্টার ফারুক আহমেদ, চাঁদপুর ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক তালহা জুবায়ের।

ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশনের চাঁদপুর প্রতিনিধি আবদুল আউয়াল রুবেল, প্রথম আলোর চাঁদপুর প্রতিনিধি আলম পলাশ, দৈনিক ইলশেপাড়ের প্রধান সম্পাদক মাহবুবুর রাহমান সুমন, দৈনিক চাঁদপুর কন্ঠের বার্তা সম্পাদক আহসান উল্যাহসহ বিভিন্ন জাতীয় পত্রিকার প্রতিনিধি, স্থানীয় পত্রিকার সাংবাদিক, সম্পাদক, প্রেসক্লাবর নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ।

একই রকম খবর

Leave a Comment