চাঁদপুরে আন্তর্জাতিক তথ্য জানার অধিকার দিবস উদযাপন

প্রেস বিজ্ঞপ্তি : জেলা প্রশাসনের আয়োজনে ও সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক), চাঁদপুরের সহযোগিতায় এবং বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের অংশগ্রহণে আন্তর্জাতিক তথ্য জানার অধিকার দিবস ২০১৮ উপলক্ষে দু’দিনব্যাপী কর্মসূচির অংশ হিসেবে ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮ সকাল ১০টায় সার্কিট হাউজ প্রাঙ্গণ থেকে র‌্যালি ও জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে র‌্যালি পরবর্তী আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় সভাপতিত্ব করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মোঃ মঈনুল হাসান। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক মোঃ মাজেদুর রহমান খান।

এবারের আন্তর্জাতিক তথ্য জানার অধিকার দিবসের প্রতিপাদ্য বিষয়-‘মুক্ত সমাজের জন্য উত্তম আইন, টেকসই উন্নয়ন তথ্যে অভিগমন’। দিবস উপলক্ষে দুইদিনব্যপি কার্যক্রমের প্রথম দিন ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮ জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয়ে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে চিত্রাংকন ও জ্ঞান জিজ্ঞাসা প্রতিযোগিতা ও সনাকের আয়োজনে ‘সুশাসন নিশ্চিতকরণে তথ্য অধিকারই সবচেয়ে বড় হাতিয়ার’ এই বিষয়ের উপর বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মোঃ মঈনুল হাসানের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক বলেন, আপনী যখন তথ্য চাইতে গিয়ে বঞ্চিত হবেন তখন তথ্য অধিকার আইন আপনাকে সুরক্ষা দেবে। আপনার সকল ধরণের অধিকারের ক্ষেত্রে তথ্য অধিকার আইন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তথ্য অধিকার আইন বিষয়ে পুরো চাঁদপুর জেলায় মোট ২৯৫৮জন দায়িত্বপ্রাপ্ত তথ্য কর্মকর্তা ও বিকল্প কর্মকর্তা এবং জেলা পর্যায়ে আপীল কর্মকর্তাকে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়। প্রত্যেক প্রশিক্ষনার্থী তাদের নিজ নিজ অবস্থান থেকে শতভাগ কৃতিত্ব অর্জন করে। তিনি আরও বলেন, এদেশটার রন্ধ্রে রন্ধ্রে দুষ্ট লোক ঢুকে গেছে। অনেক সময় নিজের অধিকারের জায়গাটায় থাকতে চাইলেও আপনী সেখানেও সমস্যার মুখোমুখি হবেন। তিনি বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশের জন্য দক্ষ, মেধাবী ও সৃজনশীল মানুষ আরও বেশি পরিমানে দরকার। মূলত ডিজিটাল পদ্ধতি এই মেধাবী মাসুষগুলোই তৈরি করেছে। ডিজিটাল পদ্ধতিতে দুর্নীতিতে ঢুকা খুবই কঠিন। তিনি তথ্য অধিকার আইনটিকে সঠিকভাবে ব্যবহার করার জন্য সকলের প্রতি আহŸান জানান। তিনি আজকের এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত হওয়ার জন্য সকলকে ধন্যবাদ জানান।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাহেদ পারভেজ বলেন, আগে বলা হতো জ্ঞানই হলো উন্নয়নের পূর্বশর্ত। আর এখন বলা হয় তথ্যই উন্নয়নের পূর্বশর্ত। আমরা আমাদের অফিসেও একজন দায়িত্বপ্রাপ্ত তথ্য কর্মকর্তা ও বিকল্প কর্মকর্তা নিয়োগ করেছি। তথ্য অধিকার আইন অনুযায়ী প্রত্যেক অফিসেই দায়িত্বপ্রাপ্ত তথ্য কর্মকর্তা ও বিকল্প কর্মকর্তা থাকা দরকার। তিনি আরও বলেন, আপনাদের নিকট থেকে যদি কোন তথ্য প্রাপ্তির আবেদন পাই তাহলে তথ্য অধিকার আইন অনুযায়ী আমরা সেই তথ্য দিতে প্রস্তুত আছি। তথ্য অধিকার আইন অনুযায়ী তথ্য চাইলে নিয়ম মেনে যেকোন প্রতিষ্ঠান তথ্য দিতে বাধ্য থাকবে।

সনাক সভাপতি কাজী শাহাদাত বলেন, ১৯৯৬ সাল থেকে টিআইবি দুর্নীতিবিরোধী বিভিন্ন সামাজিক সচেতনতামূলক কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে। তথ্য অধিকার আইনটি পাশ করার জন্য টিআইবি র‌্যালি, আলোচনা সভা, সেমিনার, মানববন্ধনসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালনের পাশাপাশি সরকারকে অনুরোধ জানিয়েছে। তারই পরিপ্রেক্ষিতে ২০০৯ সালে মহান জাতীয় সংসদে ‘তথ্য অধিকার আইন ২০০৯’ পাশ হয়। এছাড়াও তিনি আন্তর্জাতিক তথ্য জানার অধিকার দিবস ২০১৮ উপলক্ষে টিআইবি’র দাবীসমূহ সভায় উপস্থাপন করেন।

আলোচনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য প্রদান করেন, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটওয়ারী, সনাকের সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ মোঃ মোশারেফ হোসেন। সনাকের পক্ষ থেকে ‘‘তথ্যের অধিকার, সুশাসনের হাতিয়ার। তথ্যই শক্তি দুর্নীতি থেকে মুক্তি’’-এ বিষয়ের উপর একটি তথ্যপত্র সকলের মাঝে বিতরণ করা হয়। এছাড়াও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে তাৎক্ষনিকভাবে আবেদনের জন্য তথ্য প্রাপ্তির আবেদন ফরম (ফরম ‘ক’) উপস্থিত সকলের মাঝে বিতরণ করা হয়। র‌্যালি ও আলোচনা সভায় চাঁদপুরের বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিকবৃন্দ, সাংস্কৃতিক নেতৃবৃন্দ, সনাক সদস্যবৃন্দ, ইয়েস ও ইয়েস ফ্রেন্ডস গ্রæপের সদস্য টিআইবি’র সদস্যবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন। আলোচনা সভা শেষে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

একই রকম খবর

Leave a Comment