নির্বাচন এলে জোট হয়, আবার জটও হয়: শিক্ষামন্ত্রী

ঢাকা অফিস : শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, ‘নির্বাচন এলেই কিছু লোকজন আসে, তাদের জোট হয়, আবার জটও হয়। তারপর আবার তারা নির্বাচনে যায় না। নানা কিছু হয়। এরকম খেলা আমরা বহু বছর ধরে দেখছি, এটা নতুন কিছু না। আজকেও যারা আছেন, নানা রকম জায়গা থেকে এসে, নানা রকম লোক জড়ো হয়েছেন। জনগণ তাদের চেনেন।’

রবিবার (১৪ আগস্ট) জাতীয় প্রেস ক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে বাংলাদেশ প্রগতিশীল কলামিস্ট ফোরামের আয়োজনে ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে “অশ্রুঝরা আগস্টে শোকসঞ্জাত শক্তির অন্বেষা” শীর্ষক সেমিনারে তিনি এ কথা বলেন।

দীপু মনি বলেন, ‘কি একটা মঞ্চ হয়েছে গণতন্ত্র মঞ্চ। যে নামগুলো দেখছি, তারা আর গণতন্ত্র মঞ্চ— দুটোকে মেলানো বড় শক্ত। যাই হোক, আমরা গণতন্ত্রে বিশ্বাস করি, যেকোনও দল বা জোট সবকিছু হতে পারে।

যারা দেশে অরাজকতা সৃষ্টি করতে চায়, ৭৫-কে ফিরিয়ে আনতে চায় তাদের কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘আওয়ামী লীগ কিন্তু তাদের পথেই মোকাবিলা করবে। রাজনৈতিকভাবে তাদের মোকাবিলা করবে। এবং আজকে নিশ্চয় তাদের ছেড়ে দেবার কোনও কারণ নেই।’

তিনি বলেন, ‘সামনে নির্বাচন আছে, আমরা আশা করি, সকল রাজনৈতিক দল রাজনীতিসুলভ আচরণ করবে। জনগণ যাদের ওপর আস্থা রাখতে পারবেন, বিশ্বাস করতে পারবেন—তাদেরই বেছে নিবেন।’

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুকে হারাবার যে শোক, সেই শোক ইতোমধ্যে শক্তিতে রূপান্তরিত হয়েছে, সেই শক্তি থেকে জাগরণ এসেছে। এবং সেই জাগরণ থেকে আজকের বাংলাদেশ। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এই অপ্রতিরোধ্য বাংলাদেশ এবং তা অব্যাহত থাকবে।’

বাংলাদেশ প্রগতিশীল কলামিস্ট ফোরামের সভাপতি অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমানের সভাপতিত্বে সেমিনারে বিশেষ অতিথি ছিলেন নর্থ-সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আতিকুল ইসলাম, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মশিউর রহমান, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. সৌমিত্র শেখর, সর্ব ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সভাপতি এম নজরুল ইসলাম, বাংলাদেশ প্রগতিশীল কলামিস্ট ফোরামের সহ-সভাপতি অধ্যাপক ড. রাশিদ আসকারী প্রমুখ।

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন কলামিস্ট ও সিনিয়র সাংবাদিক বিভুরঞ্জন সরকার।
স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ প্রগতিশীল কলামিস্ট ফোরামের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. মিল্টন বিশ্বাস।

 

একই রকম খবর