মতলবে পারিবারিক কলহে স্ত্রীর চুল কাটলেন স্বামী

মতলব প্রতিনিধি : পারিবারিক কলহের জের ধরে স্ত্রীর মাথার চুল কেটে দিলেন স্বামী। গত ৪ নভেম্বর রাতে মতলব পৌরসভার ঢাঁকিরগাও গ্রামের খান বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। এদিকে স্বামীর হাতে স্ত্রীর নির্যাতনের বিষয়টি নিয়ে  ৬ নভেম্বর শালিশী বৈঠকের কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত তা হয়নি বলে জানায় ভুক্তভোগীর পরিবার ও এলাকাবাসী।

জানা যায়, মতলব পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মেয়ের সাথে তিন বছর পূর্বে বিয়ে হয় ঢাঁকিরগাও গ্রামের হায়দার খানের ছেলে রুবেলের। দাম্পত্য জীবনে তাদের এক সন্তান রয়েছে। এদিকে বিয়ের পর তাদের সংসারে ছোট-খাটো বিষয় নিয়ে প্রায়ই কলহ লেগে থাকতো বলে জানান প্রতিবেশীরা। এই নিয়ে বেশ কয়েকবার পারিবারিক ভাবে শালিশী বৈঠকের মাধ্যমে তা সমাধানও করেন স্বজনরা।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ঘটনার রাতে পারিবারিক কলহের জের ধরে রুবেল তার স্ত্রীকে মারধর করে এবং মাথার চুল কেটে দেয়। চুল কাটার বিষয়টি রুবেলের শ্বশুড় বাড়ির লোকজন জানতে পেরে ঘটনার পরদিন সকালে তারা এসে উপস্থিত হন। সেই সময়ে রুবেলের মা-বাবা রাতের ঘটনাটি পূর্বের মত আত্মীয়-স্বজনদের মাধ্যমে শালিশী বৈঠকে মীমাংশা করতে চায়। কিন্তু রুবেলের শ্বশুড় বাড়ির লোকজন তাদের এই সিদ্ধান্ত না মেনে তার স্ত্রীকে বাপের বাড়িতে নিয়ে যায়।

শালিশী বৈঠকের বিষয়ে স্থানীয় গন্যমান্যদের মধ্যে লোকমান হোসেনসহ একাধিক ব্যক্তি জানান, আজ (৬ নভেম্বর) বিকালে বিচার হওয়ার কথা থাকলেও ছেলের বাবা হায়দার খান এসে জানান যে, ‘আজ বিচার হবে না, ওই বাড়ির লোকজন ও স্থানীয় এক মেম্বারের পরামর্শে রুবেলের স্ত্রীকে হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা করানো হচ্ছে।’

রুবেলের স্ত্রীর বড় ভাই জাহাঙ্গীর জানান, আমার বোন অসূস্থ তার চিকিৎসা চলছে,এছাড়া আমরা আইনি ব্যবস্থা গ্রহন করিব যা হবার আইনেই হবে।
ঘটনার বিষয়ে রুবেল ও তার পরিবারের লোকজন বলেন, যা কিছুই হয়েছে তা আমাদের নিজেদের, আমরা পারিবারিক ও সামাজিক ভাবে সমাধান করব।

একই রকম খবর

Leave a Comment