পিআইবির প্রশিক্ষণ কর্মশালায় চাঁদপুরের সাংবাদিকদের অংশগ্রহণ

প্রেস ইন্সটিটিউট অব বাংলাদেশ (পিআইবি)’র আয়োজনে দুদিনব্যাপী দুর্যোগ সাংবাদিকতা বিষয়ক প্রশিক্ষণ বৃহস্পতিবার (১০ জুন) শেষ হয়েছে।

চাঁদপুর, নোয়াখালী ও লক্ষ্মীপুর জেলার ত্রিশোর্ধ্ব সাংবাদিক এই প্রশিক্ষণে অংশ নেন। দুদিনের এই প্রশিক্ষণে রিসোর্সপার্সন ছিলেন উপকূল সাংবাদিকতায় আন্তর্জাতিক পর্যায়ে খ্যাতিমান সাংবাদিক রফিকুল ইসলাম মন্টু।

উভয়দিন সমাপনী বক্তব্য রাখেন পিআইবির মহাপরিচালক জাফর ওয়াজেদ। তিনি অত্যন্ত প্রাঞ্জল ভাষায় প্রাণবন্ত আলোচনা রাখেন। তিনি তাঁর আলোচনায় বলেন, বাংলাদেশের ১৯টি জেলা হচ্ছে উপকূলীয় জেলা।

এই জেলাগুলোতে বহু অঞ্চল রয়েছে উপকূলীয় এলাকা। একটি দেশের জন্যে এটি কোনো অংশেই কম নয়। এই উপকূলীয় এলাকা নিয়ে সাংবাদিকতা করার অনেক কিছু আছে। শুধু প্রাকৃতিক দুর্যোগ দেখা দিলেই উপকূল নিয়ে সাংবাদিকতা করতে হবে বিষয়টা এমনটি নয়।

ঘূর্ণিঝড়, জলোচ্ছ্বাস ইত্যাদি প্রাকৃতিক দুর্যোগ চলে যাওয়ার পরও এসব অঞ্চল নিয়ে সাংবাদিকতা করার অনেক কিছু আছে। এসব উপকূল এলাকা এবং এখানকার মানুষগুলোকে কি শুধু প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলা করেই বেঁচে থাকতে হবে? না কি এই উপকূলীয় অঞ্চলকে কীভাবে সম্পদে এবং সম্ভাবনায়ও পরিণত করা যায় সেদিকেও আমাদের ভাবতে হবে, মনোনিবেশ করতে হবে।

এ বিষয়গুলো মাথায় নিয়েই উপকূলীয় অঞ্চল নিয়ে সাংবাদিকতা করার অনেক কিছু আছে আমাদের সাংবাদিকদের। সে লক্ষ্য নিয়েই পিআইবির এই দুর্যোগ সাংবাদিকতা বিষয়ক প্রশিক্ষণের আয়োজন। এই দু’দিনের প্রশিক্ষণে যাঁরা অংশ নিয়েছেন তাঁদের সাফল্য কামনা করছি। আর যিনি এই দুদিন রিসোর্সপার্সন ছিলেন তিনি উপকূলীয় সাংবাদিকতার উপর বিশেষজ্ঞ হিসেবে পরিচিত। উপকূলীয় অঞ্চলে মাঠ পর্যায়ে সাংবাদিকতা করার তাঁর যে অভিজ্ঞতা রয়েছে, সে অভিজ্ঞতা এ দুদিন আপনাদের সাথে তিনি শেয়ার করেছেন। এরদ্বারা আপনারা অনেক সমৃদ্ধ হবেন বলে আমার বিশ্বাস। এই প্রশিক্ষণকে কাজে লাগিয়ে আপনারা কাজ করবেন। পিআইবি আপনাদের পাশে আছে।

দুদিনের এ প্রশিক্ষণে চাঁদপুরের যে ক’জন সাংবাদিক অংশ নিয়েছেন তারা হচ্ছেন : চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি কাজী শাহাদাত, গোলাম কিবরিয়া জীবন, বর্তমান সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটওয়ারী, সাধারণ সম্পাদক রহিম বাদশা, সাবেক সভাপতি শরীফ চৌধুরী, সিনিয়র সহ-সভাপতি গিয়াসউদ্দিন মিলন, সহ-সভাপতি সোহেল রুশদী, এএইচএম আহসান উল্লাহ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আল ইমরান শোভন, রিয়াদ ফেরদৌস ও আলম পলাশ।

এই দুদিনের প্রশিক্ষণে প্রশিক্ষক রফিকুল ইসলাম মন্টু একনাগাড়ে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত আলোচনা রাখেন। তিনি উপকূলীয় অঞ্চলগুলোতে তাঁর দীর্ঘ সময়ের সাংবাদিকতার অভিজ্ঞতা এই দুই দিনের প্রশিক্ষণে উপস্থাপন করেন। সচিত্র প্রতিবেদন, ভিডিও, অডিও, অসংখ্য আলোকচিত্র, সরেজমিন প্রতিবেদনের অংশবিশেষ ইত্যাদি তিনি উপস্থাপন করেন। তাঁর প্রাণবন্ত উপস্থাপনা অংশগ্রহণকারী সকলকে মুগ্ধ করেছে। অংশগ্রহণকারী সাংবাদিকগণ এই অভিজ্ঞ এবং বিদগ্ধ সাংবাদিকের আলোচনায় মুগ্ধ এবং অভিভূত। এই দুদিনে সাংবাদিক রফিকুল ইসলাম মন্টুর কাছ থেকে জানা এবং শেখা বিষয়গুলো নিজেদের সাংবাদিকতা পেশাকে অনেক সমৃদ্ধ করবে বলে সকলেই মতামত ব্যক্ত করেন।

 

একই রকম খবর