পেশি শক্তি বলে দুর্গাপুর জনকল্যাণ উঃবি’র জায়গা ভরাট

স্টাফ রিপোর্টার : স্কুলের নিচু জায়গা ভরাট করতে ব্যবহার হচ্ছে মেঘনা-ধনাগোদার তলদেশের বালু।

নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে পেশি শক্তি বলে অবৈধ ড্রেজার ব্যবহার করে উত্তোলন করা হচ্ছে বালু। চাঁদপুরের মতলব উত্তরের দুর্গাপুর জনকল্যাণ উচ্চ বিদ্যালয়ের একটি নিচু জায়গায় এভাবেই ভরাট করছেন স্কুল কর্তৃপক্ষ।

সরেজমিনে গিয়ে এমন চিত্র দেখা গেছে। মেঘনা-ধনাগোদার পাশ ঘেঁষে গড়ে উঠা বিদ্যালয়টির পুরনো ক্লাস রুমের পেছনের নিচু অংশটি জায়গা বর্ধিত করার অংশ হিসেবে বালু ভরাট শুরু করে কর্তৃপক্ষ।

ম্যানেজিং কমিটির সভায় জায়গাটি ভরাটের সিদ্ধান্ত নেয়ার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে দরপত্র বিজ্ঞপ্তি দিয়ে ড্রেজার মালিকের মাধ্যমে ভরাট করাতে শুরু করেন বলে জানিয়েছেন স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আল আমিন।

তবে কোন প্রক্রিয়ায় মেঘনা-ধনাগোদার তলদেশ থেকে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে এমন প্রশ্নের উত্তর না দিয়ে স্থানীয় প্রভাবশালী মহলের নাম ব্যবহার করেন তিনি।

বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাইলে উপজেলা মাধ্যমিক অফিসার আব্দুল কাইয়ুম মুঠোফোনে জানান তিনি ঢাকায় আছেন।

এদিকে ড্রেজার মালিক শরিফের সাথে প্রতি ঘনফুট বালুর মূল্য ৫ টাকা ৮০ পয়সা দরে ভরাট কাজ চলছে বলে জানান স্কুলটির প্রধান শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটির সদস্য সচিব স্বপন কুমার সূত্রধর।

বালু ভরাট এবং মেঘনা-ধনাগোদা নদী থেকে বালু উত্তোলনের বিষয়টি জানেননা বলে জানিয়েছেন চাঁদপুর জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ( ভারপ্রাপ্ত) প্রাণকৃষ্ণ দেবনাথ।

তিনি বলেন, এ ধরনের কার্যক্রম অফিসিয়াল পদ্ধতিতে হয়ে থাকলে আমাদের কাছে চিঠির মাধ্যমে জানানোর পক্রিয়া রয়েছে। তবে এ বিষয়টি সম্পর্কে কোন চিঠি পাইনি।

মেঘনা-ধনাগোদা নদী থেকে বালু উত্তোলনের বিষয়টি খোঁজ নিয়ে জানবেন বলে জানিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশরাফুল হাসান।

বিষয়টি সম্পর্কে জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান এর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে ও তা সম্ভব হয়নি।

 

একই রকম খবর