শাহরাস্তিতে প্রতিবন্ধী কিশোরীকে কবিরাজের ধর্ষণ

স্বপন কর্মকার মিঠুন : চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে কবিরাজের লালসায় এক প্রতিবন্ধী কিশোরী (১৭) ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এ ঘটনায় ওই কবিরাজকে আটক করেছে থানা পুলিশ।

ঘটনাটি উপজেলার পৌর ৪নং ওয়ার্ডের সোনাপুর গ্রামে ঘটে। ২৮ অক্টোবর রাতে উপজেলার শাহরাস্তি বাজারের দোকান থেকে তাকে আটক করা হয়।

জানা যায়, উপজেলার মেহের উত্তর ইউনিয়নের শেক্কুনি গ্রামের নেপাল চন্দ্র মজুমদারের পুত্র কবিরাজ অসীম কুমার মজুমদারের (৪৫) নিকট পাশ্ববর্তী সোনাপুর গ্রামের ভূঁইয়া বাড়ির মৃত বজলু গণির প্রতিবন্ধী কন্যাকে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যায় একই গ্রামের আবুল কাশেম ও তার স্ত্রী খুরশিদা বেগম।

ধর্ষিতার মা মানছুরা বেগম ও মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ওই ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের শেক্কুনি গ্রামের নেপাল চন্দ্র মজুমদারের পুত্র কবিরাজ অসীম প্রতিবন্ধী কিশোরীকে চিকিৎসার নামে ধর্ষণ করে।

বিষয়টি গত ১৫ জুন ২০১৮ইং সকাল ৮টায় কবিরাজ অসীমের দোকানে নিয়ে যাওয়া হলে ৭দিনব্যাপী তার চিকিৎসা চলে। এ সময় কবিরাজ অসীম তাকে প্রায় দিন ধর্ষণ করে। পরবর্তীতে ওই কিশোরী গর্ভবতী হয়ে পড়লে বিষয়টি পরিবারের লোকদের নজরে আসে। কিশোরীর মা তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে কবিরাজ অসীমের দ্বারা ধর্ষিত হয়েছে বলে জানায়।

পরে বিষয়টি নিয়ে পরিবারের লোকজন কবিরাজ অসীমকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে গেলে সে বিষয়টি এড়িয়ে যায়। নিরুপায় হয়ে ধর্ষিতার মা বিষয়টি তার আত্মীয়-স্বজনদের সাথে পরামর্শ করে গোপনে অন্যত্র এক সেবিকার মাধ্যমে কিশোরীর গর্ভপাত ঘটায়।

এক পর্যায়ে ঘটনাটি চারদিকে ছড়িয়ে পড়লে ধর্ষিতার মা বাদি হয়ে শাহরাস্তি থানায় কবিরাজ অসীম কুমার মজুমদার বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন এবং ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের করেন। যার নং-১৮, তাং-২৮/১০/১৮ইং। ওই মামলার প্রেক্ষিতে রোববার রাতে অভিযুক্ত অসীমকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

এ ব্যাপারে কবিরাজ অসীম কুমার মজুমদার বলেন, আমি প্রতিবন্ধী কিশোরীর চিকিৎসা করেছি তবে ধর্ষণের বিষয়ে আমি অবগত নই।এদিকে স্থানীয়রা জানায়, ঘটনাটি খুবই নেক্কারজনক। সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত দোষিকে বিচারের আওতায় আনার দাবি জানান।

শাহরাস্তি থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শাহ আলম জানান, অভিযুক্ত কবিরাজ অসীম কুমারকে আটক করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া চলছে। ভিকটিমের ডাক্তারি পরীক্ষার ফলাফলের উপর পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

একই রকম খবর

Leave a Comment