ফরিদগঞ্জে সম্পত্তি দখলের পাঁয়তারার প্রতিবাদ করায় হামলা-আদালতে মামলা!

স্টাফ রির্পোটার : চাঁদপুর জেলার ফরিদগঞ্জ উপজেলার ১৪ নং ফরিদগঞ্জ দক্ষিন ইউনিয়ন ৬ নং ওয়ার্ডের দক্ষিন চরবড়ালি গ্রামে ভুয়া দলিল করে সম্পত্তি দখলের পাঁয়তারা করার প্রতিবাদ করলে হামলা চালিয়ে আবুল খায়ের (৫৮) নামে এক প্রবাসীকে আহত করেছে।

এই হামলার ঘটনায় এলজিইডি কম্পিউটার অপারেটর জহিরুল ইসলাম ও ৪ ভাইসহ ৬ জনকে আসামি করে আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মামলার বাদী আবুল খায়ের জানান,১৪ নং ফরিদগঞ্জ দক্ষিন ইউনিয়ন ৬ নং ওয়ার্ডের দক্ষিন চরবড়ালি গ্রামে দাদি হবিয়া খাতুনের ৮২ শতক জায়গা ৩০ বছর পূর্বে জহিরুল ইসলাম ও তার পিতা আব্দুল মতিন বেপারী ভুয়া দলিল করে দখলের পায়তারা চালায়। সম্পত্তি দখল নিয়ে তাদের সাথে দীর্ঘদিন যাবত বিরোধ চলে আসছিল।

এই ঘটনার প্রতিবাদ করলে কয়েকদিন পূর্বে জহিরুল ইসলাম তাঁর ৪ভাইসহ ছয়জন মিলে কালির বাজার মাহমুদ উল্লাহ পাটোয়ারীর দোকানের সামনে একা পেয়ে মারধর করে।

ঘটনাটি স্থানীয় মেম্বার ও সালিশের অবহিত করে আদালতের শরণাপন্ন হয়ে হামলাকারী এলজিইডির কম্পিউটার অপারেটর জহিরুল ইসলাম বেপারী, তারেকুর রহমান বেপারী, দিদার হোসেন, মিজান হোসেন, ভাগিনা ফরহাদ হোসেন, খালাতো ভাই মেহেদী হাসানকে বিবাদী করে মামলা দায়ের করা হয়।

আদালতে মামলা করায় প্রতিপক্ষরা ক্ষিপ্ত হয়ে বিভিন্ন অপপ্রচার চালিয়ে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য পুনরায় হামলা চালানোর পাঁয়তারা করছে। পুরো পরিবার নিয়ে এখন তাদের ভয়ে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।

এলজিইডির সামান্য কম্পিউটার অপারেটর চাকরি করে জহিরুল ইসলাম এলাকায় ব্যাপক ক্ষমতা খাটিয়ে পরের সম্পত্তি দখল চাকরি দেওয়ার নামে সাধারণ মানুষের টাকা আত্মসাৎ ও বিভিন্ন অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে। অবৈধ ভাবে টাকা ইনকাম করে এলাকায় আলিশান বাড়ি করেছে। তার এই অবৈধ টাকার উৎস কোথায় দুদুক অনুসন্ধান করলেই থলের বিড়ালের মতো এই দুর্নীতির চিত্র বেরিয়ে আসবে।

এছাড়া জহিরুলইসলামের অনন্য ভাইরা প্রভাবশালী নেতা ও ব্যক্তির নাম ভাঙ্গিয়ে এলাকায় সাধারণ মানুষের উপর জুলুম নির্যাতন চালিয়ে যাচ্ছে। তাদের হাত থেকে সাধারণ মানুষ রক্ষা চাই ও এই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করার জোর দাবি জানায়।

এ বিষয়ে এলজিইডি কম্পিউটার অপারেটর জহিরুল ইসলামের মোবাইলে ফোন করলে সে রিসিভ না করা বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

 

একই রকম খবর