চাঁদপুর পৌরসভার বরখাস্তকৃত বাজার পরিদর্শক নাছির উদ্দিন খান আটক

চাঁদপুর খবর রিপোর্ট : চাঁদপুর পৌরসভার বরখাস্তকৃত বাজার পরিদর্শক ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী মো. নাছির উদ্দিন খান রিপনকে বুধবার (১৯ ডিসেম্বর) আটক করেছে ঢাকা শাহাবাগ থানা পুলিশ। বৃহস্পতিবার (২০ ডিসেম্বর) চাঁদপুর কোর্টে উঠানো হবে। তাকে সিআর ৫২/১৪ ও সিআর ১৯৪/১৬ মামলায়  ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী হিসেবে  গ্রেফতার করা হয়েছে ।

আটককৃত মো. নাছির উদ্দিন খান রিপনের বাড়ি, সদর উপজেলার রঘুনাথপুর (৩ তাল গাছতল) মো. ইউছুফ খানের ছেলে।

বুধবার (১৯ ডিসেম্বর) স্থানীয় সরকার আবেদন শুনানীর দিন ধার্য্য করে। শুনানী শেষে তার বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ প্রমানিত হওয়ায় ঢাকা শাহাবাগ থান পুলিশ সু-নির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে তাকে আটক করে।

জানা গেছে, চাঁদপুর মডেল থানার এএসআই অলি আহাদসহ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঢাকা শাহাবাগ থানা থেকে চাঁদপুর এনেছে।  বৃহস্পতিবার তাকে চাঁদপুর কোর্টে উঠাবেন বলে জানান, এএসআই অলি আহাদ। তার বিরুদ্ধে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যাক্তিগণ চাঁদপুর মডেল থানায় মামলা দায়ের কারা প্রস্তুতি নিচ্ছে।

মডেল থানা সূত্রে জানা গেছে, মো. নাছির উদ্দিন খান রিপনের বিরুদ্ধে কয়েকটি মামলা রয়েছে। সি,আর ১২১/২০১৫। সিআর নং ৩৬১/২০১৭ । সিআর নং ৭৫১/১৮ । তাকে ৭৩ হাজার টাকা জরিমানা ও ৬ মাসের বিনাশ্রম কারা দণ্ড প্রদান করা হয়। এ ছাড়াও তার বিরুদ্বে চাঁদপুর পৌরসভার বরাবর ২ কোটি ৭৫ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে এবং ৪টি পৃথক মামলা চলমান রয়েছে ।

গত ২০১৪ সালে আর্থিক অনিয়ম, সাধারণ লোকদের সাথে জালিয়াতি করে টাকা অত্মসাৎ ও পৌর সভার অর্থ অত্মসাৎ করায় ২০১৫ সালে তাকে চাঁদপুর পৌর পরিষদ থেকে তাকে বরখাস্ত করেন চাঁদপুর পৌর মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদ এবং বিভিন্ন তদন্ত কমিটির মাধ্যমে অর্থিক অনিয়মের প্রমাণ পাওয়ায় সে পৌর পরিষদ তহবিলে আত্মসাৎকৃত ২৫ লাখ ৬৮ হাজার ৯শ’ ৭৫ টাকা পৌর তহবিলে জমা করে।

অত্মসাৎকৃত অর্থ জমা দেয়ার পরে সে চাকরি ফিরে পাওয়ার জন্য চাঁদপুর পৌর মেয়র বরাবর আবেদন করেন। মেয়র তাকে চাকরিতে পূর্ণ বহাল না করায় সে হাইকোর্টে পিটিশন করে এবং একতরফা রায় নেয়। চাঁদপুর পৌর মেয়র তার রায়ের পিটিশনের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে আপিল করেন তখন তা খারিজ হয়ে যায়। পরবর্তীতে সে সুপ্রিম কোর্টে আপিলের বিরুদ্ধে পিটিশন করে এবং এক পর্যায়ে তা ক্ষমা প্রার্থনা করে তা প্রত্যাহার করে নেয় মো. নাছির। পরে ২০১৮ সালে সে পৌর পরিষদের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে আবেদন করে।

একই রকম খবর

Leave a Comment