বালিয়ায় বাবাকে হত্যায় সন্তানের স্বীকারোক্তি

স্টাফ রিপোটার : চাঁদপুর সদর উপজেলার বালিয়া ইউনিয়নের ১ নং ওয়াডের উত্তর ইচলিতে বাবাকে খুনের ঘটনায় আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি জবানবন্দি দিয়েছে ঘাতক ছেলে মোহাম্মদ গাজী ।

শনিবার (১৭ নভেম্বর) সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ কামাল হোসেনের আদালতে এ জবানবন্দি প্রদান করেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

এর আগে শুক্রবার রাতে নিহতের বড় ছেলে আলম গাজী পিতা হত্যায় ভাইয়ের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করে। যার নং ৪০, ১৬/১১/২০১৮। এদিন রাতেই ময়না তদন্ত শেষে নিহত মূসা গাজীর লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে পুলিশ।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা চাঁদপুর সদর মডেল থানার পুলিশ উপ-পরিদর্শক (এসআই) রাশেদুজ্জামান জানান, ‘ অভিযুক্ত মোহাম্মদ গাজী আদালতে তার দোষ স্বীকার করেন। পরে তাকে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়।

ঘটনা সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার (১৬ নভেম্বর) সকাল সোয়া ৮টায় চাঁদপুর সদর উপজেলার বালিয়া ইউনিয়নের ১ নং ওয়াডের উত্তর ইচলি গাজী বাড়ির মৃত সেকান্তর গাজীর ছেলে মূসা গাজীকে ঘুমন্ত অবস্থায় তার ২য় ছেলে ধারালো দা দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে।
তার চিৎকারে বাড়ির লোকজন দ্রুত ছুটে আসলে ঘাতক ছেলে বাড়ি থেকে পালিয়ে চাঁদপুর মডেল থানায় আত্মসমর্পণ করে।

রক্তাক্ত অবস্থায় চাঁদপুর ২৫০ শয্যার সরকারি জেনারেল হাসপাতালে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মুছা গাজীকে ঢাকায় রেপার করে। ঢাকা নেয়ার পথে তিনি মারা যান।

ঘটনার দিন সকালে মূসা গাজীর বড় ছেলে আলম গাজী বলেন,‘তার পিতা পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করতো। তিনি উত্তর ইচলি বায়তুল আমিন জামে মসজিদের কোষাধ্যক্ষ ছিলেন। মোহাম্মদ গাজী দীর্ঘদিন ধরে মাদকাসক্ত। সে এক সময় সিএনজি স্কুটার চালাতো। নেশার কারণে এ পর্যন্ত ৪টি সিএনজি স্কুটার পুরিয়ে দিয়েছে। সে আমার বাবাকে নির্মমভাবে কুপিয়ে হত্যা করে।

একই রকম খবর

Leave a Comment