বিদ্যানন্দের রান্নাঘরে হঠাৎ শিক্ষামন্ত্রী

বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন । সবাই ব্যস্ত দুপুরের খাবার রান্না আর খাবার প্যাক করা নিয়ে । কারণ সুবিধাবঞ্চিত পরিবারের সবাই আসবেন ইদের বিশেষ বুফে খাবারের নিমন্ত্রণে। রান্নার কাজও শেষ। কেউ কেউ খেতেও বসেছে। সাবাই ব্যস্ত যার যার কাজে । বলা নেই কওয়া নেই এ সময় সরাসরি হাজির খোদ শিক্ষা মন্ত্রী ডা. দীপু মনি ।

জানাযায় বুধবার দুপুর ২টার দিকের বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনের খিলগাঁওয়ের রান্নাঘরে দেশের লাল-সবুজ পতাকাবাহী গাড়ী নিয়ে হাজির হন শিক্ষা মন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপি ।

হঠাৎ মন্ত্রীর আগমনে এগিয়ে আসেন বিদ্যানন্দের উপস্থিত সংগঠক, স্বেচ্ছাসেবক ও সুবিধাবঞ্চিত শিশুরা। শিক্ষামন্ত্রী উপস্থিত সবার মাথায় হাত বুলিয়ে দোয়া করেন।

বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন ঢাকার ব্যবস্থাপক সালমান খান ইয়াসিন বলেন, “মন্ত্রী এসেছিলেন একা একা। নিরাপত্তায় পুলিশের গাড়ি ছিলো না। কোনো সাংবাদিকও ছিলেন না। ছিলো না অন্য কোন সরকারি কর্মকর্তাও সাথে । সামামাটা ভাবে তিনি হাজির হয়েছেন । এ সময় আমাদের স্বেচ্ছাসেবকরা ছবি তুলতে চাইলেও মন্ত্র্রী নিষেধ করেন । পরে স্মৃতি ধরে রাখার অনুরোধে তিনি ছবি তুলতে রাজি হন । মন্ত্রীর মানবিকতায় মুগ্ধ আমরা । তিনি অনেক দিক নির্দেশনা দিয়েছেন আমাদের ।

ইয়াসিন বলেন, ডা. দীপু মনি দীর্ঘদিন ধরে তাদের স্বেচ্ছাসেবা পর্যবেক্ষণ করছেন। বেশ কয়েকবার আসতে চেয়েছেন। তবে আজ হঠাৎ তিনি এসে মিনিট দশেক ছিলেন। ব্যক্তিগতভাবে ৫০ হাজার টাকা দিয়েছেন বিদ্যানন্দকে। আমাদের কার্যক্রমে তিনি খুবই সন্তুষ্ট।

বিদ্যানন্দের সদস্যরা বলছেন, এর আগে তাদের আয়োজন দেখতে এসেছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মুহিবুল হাসান নওফেল।

দেশের বিশিষ্টজনদের এমন উৎসাহে বেশ উজ্জীবিত হয়েছেন ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছাসেবকরা- এমন মন্তব্য সংগঠকদের।

বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন হলো সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের শিক্ষা সহায়ক একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা। ছিন্নমূল শিশুদের জন্য জনপ্রিয় ‘এক টাকায় আহার’ প্রকল্পের মতো আরও বেশ কিছু মহৎ উদ্যোগের নেপথ্যে আছে এই ফাউন্ডেশন।

তবে করোনা কালে সংগঠনটি সকল শ্রেনী পেশার মানুষের সাহায্যে এগিয়ে এসেছি । প্রতিদিন কয়েক হাজার মানুষকে বিনামূল্যে াাহার কারাচ্ছে তারা ।

একই রকম খবর