বীর প্রতীক মমিন উল্লাহ পাটোয়ারী একাডেমির সাফল্য

চাঁদপুর খবর রিপোর্ট : চাঁদপুর জেলাধীন চাঁদপুর সদর উপজেলার ৬নং মৈশাদী ইউনিয়নের মৈশাদী গ্রামের বীর প্রতীক মমিন উল্লাহ পাটোয়ারী একাডেমির শিক্ষার্থীরা বড় ধরনের এক সাফল্য অর্জন করে বিদ্যালয় তথা জেলাবাসীর জন্য গৌরব ও অর্জন কুড়িয়ে এনেছেন।

এ বছর ৪৯তম জাতীয় শীতকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় প্রতিষ্ঠানটি বিভিন্ন ইভেন্টে মোট ২২টি পদক লাভ করে চ্যাম্পিয়ন-রানার্সআপ হয়ে বিদ্যালয়কে উচ্চ অবস্থানে নিয়ে গেছেন। এমন সাফল্যে আনন্দিত বিদ্যানিকেতনটির প্রতিষ্ঠাতাসহ শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা।

একাডেমি সূত্রে জানা যায়, এ বছরের শীতকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উপজেলা পর্যায়ের খেলা চাঁদপুর আউটার স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়।

এতে দলীয় ৬টি খেলায় চ্যাম্পিয়ন, ২টিতে রানার্সআপ, অ্যাথলেটিকসে ১টি প্রথম ও ১টি তৃতীয় স্থান লাভ করে একাডেমির শিক্ষার্থীরা। তারা টেবিল-টেনিসে একক (ছাত্র), টেবিল-টেনিস একক (ছাত্রী), টেবিল-টেনিস দ্বৈত (ছাত্র), টেবিল-টেনিস দ্বৈত (ছাত্রী), বাস্কেটবল (ছাত্রী), ভলিবল (ছাত্রী) ইভেন্টে উপজেলা পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে।

রানার্সআপ হয়েছে বাস্কেটবল (ছাত্র) ও ভলিবল (ছাত্র) ইভেন্টে। এছাড়াও অ্যাথলেটিকসে মেয়েদের (বড়) উচ্চ লাফে প্রথম ও বর্শা নিক্ষেপে তৃতীয় স্থান লাভ করেন। জেলা পর্যায়ের খেলায় চাঁদপুর আউটার স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়। এতে ৬টি ইভেন্টে অংশ নিয়ে সবকটিতে চ্যাম্পিয়ন হয়। ইভেন্টেগুলো হলো : টেবিল-টেনিস একক (ছাত্র), টেবিল-টেনিস একক (ছাত্রী), টেবিল-টেনিস দ্বৈত (ছাত্র), টেবিল-টেনিস দ্বৈত (ছাত্রী), বাস্কেটবল (ছাত্রী) ও ভলিবল (ছাত্রী)।

মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড কুমিল্লা আয়োজিত কুমিল্লা উপ-অঞ্চলের খেলা গতকাল বৃহস্পতিবার শহরের বিভিন্ন মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। উপ-অঞ্চলে মোট ৬টি ইভেন্টে অংশগ্রহণ করে একাডেমির শিক্ষার্থীরা টেবিল-টেনিস একক (ছাত্রী) ও টেবিল-টেনিস দ্বৈত (ছাত্রী) চ্যাম্পিয়ন হয়। টেবিল-টেনিস একক (ছাত্র), টেবিল-টেনিস দ্বৈত (ছাত্র) ও বাস্কেটবল (ছাত্রী) ইভেন্টে রানার্সআপ হয়। একই সাথে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড সিলেট আয়োজিত সিলেট (বকুল) অঞ্চলের খেলা গত ১৪ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হয়।

অঞ্চলে মোট ২টি ইভেন্টে অংশগ্রহণ করে টেবিল-টেনিস একক (ছাত্রী) রানার্সআপ হয়। টেবিল টেনিসে চ্যাম্পিয়ন হওয়া ছাত্রীরা জানান, আমরা জেলা পর্যায় শেষে কুমিল্লা উপ-অঞ্চলে চ্যাম্পিয়ন হয়েছি। এজন্যে ভালো লাগছে। আমাদের শিক্ষকদের কৃতজ্ঞতা জানাই। তাদের সহযোগিতা ও আন্তরিকতা না থাকলে এ সাফল্য আসতো না। বীর প্রতীক(সাবেক সচিব) মমিন উল্লাহ পাটোয়ারী একাডেমির শিক্ষক আবু সালেহ বলেন, আমাদের শিক্ষার্থীরা পড়াশোনার সাথে সাথে ক্রীড়া চর্চায় আগ্রহী।

পাঠগ্রহণের পাশাপাশি এ প্রতিষ্ঠানে ছাত্র-ছাত্রীরা নিয়মিত খেলাধুলার চর্চা করছে। নিয়মিত চর্চার কারণেই আজ তারা শীতকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় প্রতিষ্ঠানের জন্যে সাফল্য বয়ে আনতে সক্ষম হয়েছে। আমরা আনন্দিত ও গর্বিত। শিক্ষক খান এমএ জাহিদ বলেন, অনেক সময় দেখা যায় খেলাধুলায় কেবল ছাত্ররাই আগ্রহী। কিন্তু আমাদের প্রতিষ্ঠানে তেমনটি নেই। অনেক ক্ষেত্রেই এ প্রতিষ্ঠানের ছাত্রীরাই ক্রীড়া চর্চায় বেশি এগিয়ে।

শীতকালীন প্রতিযোগিতায় ছাত্রীরা বিভিন্ন ইভেন্টে ভালো করেছে। অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) এমদাদুল হক বলেন, আমরা সবসময় খেলাধুলা ও সংস্কৃতি চর্চাকে গুরুত্ব দিয়ে আসছি। সেজন্যে শিক্ষার্থীদের জন্যে বিভিন্ন ক্রীড়া উপকরণের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

ক্রীড়া ও সঙ্গীত শিক্ষক এখানে নিয়মিত প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকেন। শিক্ষার্থীরাও আগ্রহী হয়ে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশ নিচ্ছে এবং প্রতিষ্ঠানের জন্যে সাফল্য বয়ে আনছে। ৪৯তম জাতীয় শীতকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় বিভিন্ন পর্যায়ে ২২টি পদক লাভ করে চ্যাম্পিয়ন-রানার্সআপ তারই অংশ।

এর আগেও শিক্ষার্থীরা আমাদের জন্যে সাফল্য বয়ে এনেছে। আমি শিক্ষার্থীদের অভিনন্দন জানাই। একাডেমির প্রতিষ্ঠাতা মমিন উল্লাহ পাটোয়ারী (বীর প্রতীক) বলেন, ২০১৬ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে শিক্ষাদানের পাশাপাশি আমরা সহ-পাঠক্রমিক কার্যক্রমকে গুরুত্ব সহকারে দেখছি।

শিক্ষার্থীদের ক্রীড়া ও সংস্কৃতিমনস্ক করতে প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। ৪৯তম জাতীয় শীতকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় সাফল্যের জন্যে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের অভিনন্দন জানাই। আশা করি, আমাদের শিক্ষার্থীরা জাতীয় পর্যায়েও চাঁদপুরের জন্যে সুনাম ও বিশাল গৌরব অর্জন করবে এ প্রত্যাশা আমি করছি।

একই রকম খবর