মতলবের বহরী উবি’র কমিটি নিয়ে অপপ্রচার

মতলব প্রতিনিধি: মতলব দক্ষিণ উপজেলার বহরী উচ্চ বিদ্যালয়ের নব নির্বাচিত ম্যানিজিং কমিটি নিয়ে অপপ্রচারের অভিযোগ উঠেছে। বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন থেকে যে সকল প্রার্থী স্বেচ্ছায় তাদের প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নিয়েছিলেন তাদের মধ্য থেকে কয়েকজন নব গঠিত কমিটি নিয়ে মিথ্যা তথ্য প্রচার করছেন বলে জানা যায়।

জানা যায়, উপজেলার বহরী উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনে সাধারন সদস্য পদে ১৩ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করেন। তাদের মধ্যে একজন যাচাই বাছাইয়ে বাতিল হয়। বাকী ১২ জনে মধ্যে ৮ জন স্বেচ্ছায় প্রিসাইডিং কর্মকর্তার কাছে আবেদনপত্র দিয়ে প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নেন।

এতে বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় চার জন অভিভাবক প্রতিনিধি নির্বাচিত হন এবং গত ১৬ জুন বিদ্যালয় মিলনায়তনে সভাপতি নির্বাচনের লক্ষ্যে প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুর রহিম খান, প্রিসাইডিং অফিসার এর দায়িত্বে থাকা উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা রুহুল আমিন, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহবুবুর রহমান সহ ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচিত সদস্য, শিক্ষক প্রতিনিধিগণ এবং এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। সভায় বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি পদে বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় মোঃ রফিকুল ইসলাম নির্বাচিত হন।

কিন্তু একটি কুচক্রী মহলের প্ররোচনায় পড়ে ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন থেকে আট প্রার্থির মধ্য থেকে ছয়জন স্বেচ্ছায় প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নিয়েছিলেন তাদেরকে দিয়ে বিভিন্ন স্থানে মিথ্যা,বানোয়াট ও ভিত্তিহীন তথ্য দিয়ে ম্যানেজিং কমিটি ও বিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার অপচেষ্টা চালাচ্ছেন বলে জানা যায়।

ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মোঃ রফিকুল ইসলাম বলেন, বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি গঠনের নীতি অনুসারে আমি সভাপতি নির্বাচিত হয়েছি। কিন্তু একটি কুচক্রী মহল আমাকে এবং বিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার জন্য বিভিন্ন স্থানে মিথ্যা বানোয়াট তথ্য প্রচার করছে।

ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনে প্রিসাইডিং অফিসারের দায়িত্বে থাকা উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা রুহুল আমিন বলেন, নির্বাচনে যে সকল প্রার্থী তাদের প্রার্থিতা প্রত্যাহার করেছেন তাদের আবেদনের অনুলিপি রয়েছে।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুর রহিম খান বলেন, কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ড এর নির্দেশে সোমাবর (১৮ জুলাই) তদন্ত হবে।

 

একই রকম খবর