মতলবে ওএমএসের চাল আত্মসাতের অভিযোগ ডিলারশিপ বাতিল

সমির ভট্টাচার্য্যঃ মতলব দক্ষিণ উপজেলার দিঘলদি মাস্টারবাজার এলাকা থেকে আজ মঙ্গলবার দুপুরে ৪৫০ কেজি ওএমএসের চাল জব্দ করেন ইউএনও ফাহমিদা হক। এ ঘটনায় ওএমএসের ডিলার মাহফুজ চৌধুরী ডিলারশিপ বাতিল করে স্থানীয় প্রশাসন। জব্দ করা চাল খাদ্যগুদামে পাঠানো হয়েছে।

জানা যায়, এ বছর প্রত্যেক ডিলারকে প্রতিদিন ২ হাজার কেজি করে ওএমএসের চাল দেওয়া হয়। ৪ ডিলারকে দেওয়া হয় ৮ হাজার কেজি চাল। প্রতি ক্রেতাকে ৫ কেজি করে মোট ৪০০ ক্রেতার কাছে প্রতিদিন একজন ডিলার ওই চাল বিক্রি করার কথা। প্রতিদিন ১ হাজার ৬০০ ক্রেতার কাছে ওই ৮ হাজার কেজি চাল বিক্রি করার কথা চার ডিলারের।

মাস্টাররোল পদ্ধতিতে ক্রেতাদের জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) দেখে ওই চাল বিক্রির নিয়ম। উপজেলার দিঘলদী এলাকার ওএমএসের ডিলার মাহফুজ চৌধুরী বিক্রির জন্য গত রোববার স্থানীয় খাদ্যগুদাম থেকে ২ হাজার কেজি চাল উত্তোলন করে মাস্টারবাজার এলাকার একটি ঘরে রাখেন।

গতকাল সোমবার তাঁর পক্ষের মোঃ মুছা নামের একজন ক্রেতাদের কাছে ১ হাজার ৫৫০ কেজি চাল বিক্রি করেন। বাকি ৪৫০ কেজি (১৫ বস্তা) চাল বিক্রি করেননি। অবিক্রীত চালের বিষয়টি ওএমএস কমিটিকেও জানাননি। সেখানকার একটি ঘরে রেখে ওই চাল আত্মসাৎ করেন। খবর পেয়ে ইউএনও ফাহমিদা হক ঘটনাস্থলে যান এবং অভিযান চালিয়ে আত্মসাৎ করা ওই চাল জব্দ করেন।

ইউএনও ফাহমিদা হক জানান, আজ বিকেলে জব্দ করা চাল উপজেলা খাদ্যগুদামে পাঠানো হয়েছে। ডিলার মাহফুজ চৌধুরীর ডিলারশিপের লাইসেন্সও বাতিল করা হয়েছে।

একই রকম খবর