মতলবে রমজানে কাঁচা বাজারের দর বেড়েছে কয়েকগুণ

সমির ভট্টাচার্য্যঃ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ গুলোতে রমজান মাস এলেই পণ্যে ছাড় দেওয়া হয় ঠিক উল্টো চিত্র দেখা যায় বাংলাদেশ। রমজান মাসে অতিরিক্ত মুনাফার জন্য পণ্যের দাম বহুগুণে বাড়িয়ে অধিক ব্যবসার আশায় থাকেন অতি মুনাফালোভী ব্যবসায়ীরা।

পবিত্র মাহে রমজান আরম্ভ হওয়ার কয়েক দিন আগে থেকেই বেগুন, শশা, কাঁচামরিচ, ধনিয়াপাতা, আলু, লেবুসহ বিভিন্ন শাক সবজির দাম বেড়েছে কয়েক গুণ। শুধুমাত্র রমজান মাসকে ঘিরেই এ সকল পণ্যের পাশাপাশি নিত্য প্রয়োজনীয় অন্যান্য পণ্যের দাম বৃদ্ধি করে বিক্রি করছে মুনাফালোভী ব্যবসায়ীরা।

বাজারে বিভিন্ন পণ্যের দাম যাচাই করতে ৪ এপ্রিল (মঙ্গলবার) সরেজমিনে মতলব দক্ষিণ উপজেলার মতলব বাজার, নারায়নপুর বাজার, নায়েরগাঁও বজার ও মুন্সিরহাট বাজার ঘুরে দেখা যায়, বর্তমানে বাজারে ধনিয়া পাতার কেজি ২০০-২৫০ টাকা, বেগুন ৮০-১০০ টাকা, শসা ৬০-৮০ টাকা, লেবু প্রতি হালি ১০০-১২০ টাকা, কাঁচা মরিচ ৬০-৮০ টাকা, গাজর ৪০-৬০ টাকা প্রতি কেজি দরে বিক্রয় করা হচ্ছে। বাজারে কাঁচা শাক সবজির সরবরাহ পর্যাপ্ত থাকা সত্ত্বেও ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন অজুহাতে এসবের দাম বৃদ্ধি করে ক্রেতাদের জিম্মি করে বিক্রি করে আসছেন।

মতলব বাজারে আসা উপাদী গ্রামের জাহাঙ্গীর আলম বলেন, রমজানে ইফতার ও সেহেরী তে পুষ্টিকর খাবারের প্রয়োজন। কিন্তু বাজারে কাঁচা শাকসবজি সহ অন্যান্য জিনিসের দাম বেড়েছে কয়েক গুণ। নলুয়া গ্রামের মান্নান বলেন, রমজান এলেই বাজারে দ্রব্যমূল্যের ঘোড়ার লাগাম টেনে ধরার জন্য প্রশাসনের মনিটরিং দরকার।

বাজারের খুচরা বিক্রেতারা জানান তারা পাইকারি ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে বেশী দামে পণ্য কিনেন বলেই বাজারে দাম একটু বেশি।

এদিকে মাহে রমজানে নিত্যপ্রয়োজনীয় কাঁচা শাকসবজি সহ অন্যান্য পণ্যের সঠিক দামে বিক্রি হচ্ছে কিনা সে বিষয়ে উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন সাধারণ নিম্ন আয়ের মানুষরা।

 

একই রকম খবর