মতলব উত্তরের মেঘনা নদীতে নৌ-পুলিশের হাতে ৩ চাঁদাবাজ আটক

নাঈম মিয়াজী : চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার মেঘনা নদীতে নৌপথে চাঁদাবাজি করার সময় একটি ইঞ্জিনচালিত নৌকাসহ ৩ চাঁদাবাজকে আটক করেছে মোহনপুর নৌ পুলিশ।

জানা যায়, মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার মেঘনা নদীর চরউম্মেদ এলাকায় মাল বোজাই নৌকা ও বাল্কহেড থেকে অবৈধভাবে চাঁদা আদায়ের সময় মোহনপুর নৌ ফাঁড়ির পুলিশ তাদের আটক করেছে।

আটককৃতদের কাছ থেকে চাঁদা আদায়ের কাজে ব্যবহৃত ১ ইঞ্জিন চালিত নৌকা, নগদ টাকাসহ, জব্দ করে মোহনপুর নৌপুলিশ।
আটককৃতরা হলো- শরীয়তপুর জেলার সখীপুর উপজেলার বেপারী কান্দি গ্রামের সালেহ আহম্মেদ এর ছেলে দেলোয়ার হোসেন বেপারি (৪০) ছরিরচর বেপারী কান্দি গ্রামের আবুল বাসার পাইকের ছেলে জামাল পাইক (২৮) ও একই গ্রামের ছামেদ বেপারির ছেলে কালাম বেপারি (১৯)

এলাকাবাসী এবং ব্যবসায়ীদের সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন যাবৎ মেঘনা নদীতে প্রকাশ্যে চাঁদাবাজি করছে তারা। কিন্তু এতোদিন তারা ধরা ছোঁয়ার বাইরে ছিল। পরে মোহনপুর নৌ ফাড়ির পুলিশের ইনচার্জ মনিরুজ্জামান,এসআই বাবুল বালাসহ সহযোগীদের দূরদর্শিতায় চাঁদাবাজদের গ্রেফতার করেছে।

মেঘনা নদীর চরউম্মেদ এলাকায় মালবাহী নৌকা থেকে ২০০ টাকা ও বালুর বাল্কহেড থেকে ১০০ টাকা করে জোরপূর্বক চাঁদা আদায় করতো তারা।

নৌকা মালিক ও বাল্কহেড মালিকরা জানান, চাঁদার টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে নৌকার মাঝি দেরকে মারধর করে। তারা নদীতে চাঁদাবাজি করে রাতারাতি আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ বনে গেছে বলে জানান তারা।

মতলব উত্তরের মোহনপুর নৌ ফাঁড়ির ইনচার্জ মনিরুজ্জামান বলেন, নৌপথে চাঁদাবাজি হচ্ছে এমন সংবাদ পেয়ে তার নেতৃত্বে একটি টিম অভিযান চালিয়ে ৩ চাঁদবাজকে গ্রেফতার করে। তাদের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির মামলা করা হয়েছে। কিছু দিন আগেও আমরা ডাকাতি কালে ১ ডাকাতকে গ্রেফতার করেছি।নৌপথে কোন অপ্রতিকার ঘটনা যাতে না ঘটে সেজন্য আমরা সর্বদা প্রস্তুত আছি।

 

একই রকম খবর