মামলা তুলে নিতে ফরিদগঞ্জে এক সাবেক সেনা সদস্যেকে হুমকি !

এস.এম ইকবাল: জামিনে মুক্তি পেয়ে মামলার বাদী আমির হোসেন পাটওয়ারী নামের (৮০) অবসর প্রাপ্ত এক সেনা সদস্যকে মামলা তুলে নেয়ার জন্য হুমকি ধুমকি দিয়ে আসছে। এর আগে নিজ বাড়িতে একটি গাছের চারা রোপনকে কেন্দ্র করে ওই সেনা সদস্যকে আসামীরা বেদড়ক পিটিয়ে মুমুর্ষ অবস্থায় ফেলে যায়।ঘটনাটি ঘটেছে ফরিদগঞ্জ পৌর এলাকার রুদ্রগাঁও গ্রামে।

আসামীদের হুমকি ধুমকিতে ওই পরিবারটির সদস্যেদের মাঝে আবারো এক অজানা আতংক বিরাজ করছে। এবার জীবনের নিরুপায় চেয়ে গতকাল শনিবার ভুক্তভোগী পরিবারের পক্ষ থেকে ফরিদগঞ্জ থানায় একটি জিডি দায়ের করা হয়েছে।

উক্ত ঘটনাটিকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার জন্য একটি স্বার্থান্নেষী মহল উঠেপড়ে লেগেছে বলে বৃদ্ধের ছেলে আরটিভি টেলিভিশনের চট্রগ্রাম বূরো প্রধান সাংবাদিক আনোয়ার হোসেন ক্ষোভ প্রকাশ করে জানিয়েছেন।

অভিযোগে জানা গেছে, গত ২৪ সেপ্টেম্বর বৃদ্ধ আমির হোসেন পাটওয়ারি (৮০) নিজ ভূমিতে গাছের চারা রোপন করছিলেন। এ সময়ে ওই বৃদ্ধের আপন ভাতিজা এমরান হোসেন স্বপন সহ তার তিন ভাইয়েল স্ত্রী (৩৮) আয়েশা বেগম (২০), সালেহা বেগম (২৭), সাদিয়া আক্তার (২০) ও রোশনারা বেগম (৬০) চারা রোপনে বাধা প্রদান করেন। এক পর্যায়ে তারা ওই বৃদ্ধবে বেদড়ক পিটিয়ে রকাক্ত অবস্থায় ফেলে রাখে।

এ অবস্থা দেখে বৃদ্ধের স্ত্রীর সহযোহিতায় এলাকাবাসী মুমূর্ষূ অবস্থায় আমির হোসেন পাটওয়ারিকে উদ্ধার করে ফরিদগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

সরেজমিন ওই বাড়ি গিয়ে, আশি বছরের একজন বৃদ্ধা আমির হোসেন ও তার স্ত্রী হোসনেয়ারা বলেন যাদেরকে কোলে পিঠে রেখে মানুষ করেছি তারাই এমন জঘন্যতম ঘটনা ঘটাবে তা কখনোই কল্পনা করি।

এদিকে, গত মাসে ওই বৃদ্ধের উপর হামলার ঘটনায় ফরিদগঞ্জ থানায় একটি মামলা (নং ৩৯, তারিখ: ২৫-০৯-২০২০ খ্রিঃ) দায়ের হয়েছে। মামলায় পাঁচজনকে বিবাদি করা হয়েছে।

পুলিশ এমরান হোসেন স্বপনকে প্রধান আসামী হিসেবে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠায়। কিন্তু স্বপন সম্প্রতি জামিনে ছাড়া পেয়েই এখন বাদী পক্ষকে মামলা তুলে নেয়ার জন্য বিভিন্ন ভাবে হুমকি ধুমকি দিয়ে আসছে বলে আমির হোসেন পাটওয়ারী জানিয়েছেন। বাকী আসামীরা গা ঢাকা দেয়ায় পুলিশ তাদেরকে গ্রেফতার করতে পারেনি।

একই রকম খবর