চাঁদপুর প্রেসক্লাবে মেজর (অব.) রফিকুল ইসলামের সাংবাদিক সম্মেলন

আহম্মদ উল্যাহ : চাঁদপুর-৫ (হাজীগঞ্জ-শাহরাস্তি) আসনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও মহান মুক্তিযুদ্ধের সেক্টর কমান্ডার মেজর (অব:) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম এমপির সাংবাদিক সম্মেলন শনিবার (১ ডিসেম্বর) বিকেলে চাঁদপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এসময় তিনি তাঁর বক্তব্যে বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সময় আমি এ দেশের জন্য যুদ্ধ করতে গিয়ে অনেক ওনেক বিপদের সময় কটিয়েছি। সেই সময় জীবনের কথা মনে ছিলো না। জীবন বাজি রেখে যুদ্ধ চালিয়ে যাই। সে সময় লক্ষ ছিলো একটাই কিভাবে শত্রুপক্ষকে পরাজিত করা যায় এবং যুদ্ধে কিভাবে জয়লাভ করবো। সেই গৌরব ময় কথা আজও মনে পড়ে। চাঁদপুরে ৮ ডিসেম্বর হানাদার মুক্ত হলেও চট্টগ্রামে তখনো যুদ্ধ করে যাচ্ছিলাম। ১৬ ডিসেম্বর সারাদেশের ন্যায় বিজয় ছিনিয়ে এনেছিলাম।

তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর ডাকে দেশ স্বাধীন করার জন্য মুক্তিযুদ্ধে করে শত্রুমুক্ত করার জন্য ঝাপিয়ে পড়ে ছিলাম। সে সময় আমার নির্দেশে অনেক যুবক মুক্তিযুদ্ধে গিয়ে নিহত হয়েছে। ১৯৭১ সালে একবারও ভাবেনি এদেশে মুক্তিযুদ্ধের বিপক্ষের শক্তির সাথে আজকে আমাদের মোকাবেলা করতে হবে।

তিনি সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনারা যে যে দলই করেন, এই বাংলায় সেই গৌরবময় ইতিহাস রয়েছে। আমরা বৃটিশ শাষণামল থেকে আন্দোলন করে গেছি। অবশেষে পাকিস্তান হানাদার বাহীনিকে পরাজিত করে একটি স্বাধীন দেশে পেয়েছি। এই বাংলাদেশ মাটি আপনাদের কাছে অনেক কিছু আশা করে। এ মাটি আপনার আমার সকলের ভূখন্ড। স্বাধীনতা যুদ্ধে অনেক যুবক দেশের জন্য যুদ্ধে করে জীবন আত্মহতী দিলেও তাঁর পরিবারের কথা আমাদেরকে চিন্তা করতে হবে।

তিনি তাঁর রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বিদের উদ্দেশ্যে বলেন, আমি ন্যায়ের পথে ছিলাম, থাকবো। যদ বাধা আসুক আমি পিছপা হব না। মুক্তিযুদ্ধের সময় আমার মৃত্যু হতে পারতো। আমার জীবনে চাওয়া পাওয়ার কিছু নেই। গত ২ বছর পূর্বে আমার সহধর্মীনী মারা গিয়েছেন। আমার সন্তানরা বিদেশে ও বিভিন্ন স্থানে প্রতিষ্ঠিত অবস্থায় রয়েছে। আমি এখন দেশ ও মানুষের মঙ্গলের জন্য কাজ করবো। আমার একটাই লক্ষ এদেশে গরিব না থাকুক। আমি উঠোন বৈঠক করতে গিয়ে মহিলাদের কথা শুনে তাদের সমস্যা সম্পর্কে বুজতে পেরেছি। তারা আমার মন খুলে সব বলেছে, আমি আমার এলাকার মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাবো।

তিনি বলেন, আমি এক সময় আপানাদের মত সংবাদকর্মী হিসেবে কাজ করেছি। সেহুতু আপনারা আমাকে আপনাদের একজন মনে করতে পারেন। আগামীতে আমার সরকার ক্ষমতায় গেলে আমি জাতীয় সংসদে নারী সমাজের বৈষম্যের শিকার না হয়, সে জন্যে সংসদে কথা বলবো। ক্ষুধামুক্ত ও দারিদ্রমুক্ত দেশ উপহার দিবো, এটাই ছিলো মুক্তিযুদ্ধে আমাদের মুল লক্ষ। প্রত্যেকটি মানুষ যেনো না খেয়ে না মরে ও একটি শিশুও যেনো শিক্ষা ছাড়া না থাকে এটাই হবে আমার মুল লক্ষ।

চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকবাল পাটওয়ারীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মির্জা জাকিরের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ ওচমান গণি পাটওয়ারী, হাজীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গাজী মো. মাইনউদ্দিন, হাজীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক আব্দুল রশিদ মজুমদার, শাহরাস্তি উপজেলা চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান মিন্টু, শহরাস্তির পৌর মেয়র হাজী আব্দুল লতিফ গাজী।

বিভিন্ন প্রশ্ন পর্বে সাংবাদিকদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাবেক গোলাম কিবরিয়া জীবন, সভাপতি শহীদ পাটওয়ারী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক রহিম বাদশা, সহ-সভাপতি ও দৈনিক চাঁদপুর খবর পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ও প্রকাশক সোহেল রুশদী, সাংবাদিক অধ্যাপক দেলোয়ার আহমেদ, সাবেক সহ-সভাপতি পার্থনাথ চক্রবর্তী, দৈনিক চাঁদপুর কণ্ঠের বার্তা সম্পাদক আহসান উল্লাহ।

একই রকম খবর

Leave a Comment