শাহতলী নিবাসী বিশিষ্ট সমাজসেবক ও শিক্ষানুরাগী অ্যাড.তাহের হোসেন রুশদীর বর্ণাঢ্য জীবনী

চাঁদপুর খবর রিপোর্ট: বিশিষ্ট সমাজসেবক শিক্ষানুরাগী ও আইনজীবি মরহুম অ্যাড. তাহের হোসেন রুশদী (বি.এ.বি.এড.এল.এল.বি) ব্রিটিশ ভারতের ত্রিপুরা কুমিল্লা জেলার চাঁদপুর সাব-ডিভিশনে চাঁদপুর থানায় বর্তমানে বাংলাদেশের চাঁদপুর জেলার চাঁদপুর সদর থানার ৪নং শাহমাহমুদপুর ইউনিয়নের শাহ্তলী গ্রামে ১৯৪৮ সালে ৩ জানুয়ারী এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।

পিতা বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ মরহুম এটি আহমেদ হোসেন রুশদী, মাতা আদর্শ গৃহীনি মরহুম রাবেয়া বেগম। পিতা এটি আহমেদ হোসেন রুশদী তৎকালীন কলিকাতায় বৃট্রিশ সরকার এর আমলে এম.এ ফাষ্ট ক্লাস পাওয়াতে গোল্ড মেডেল প্রদান করে “রুশদী” খেতাবে ভূষিত করেন।

অ্যাড. তাহের হোসেন রুশদীর দাদা আলহাজ্ব মাওলানা আব্দুল কাদের মুন্সী মাদরাসা থেকে টাইটেল (কামিল) পাশ করার পর একটি মাদরাসায় প্রধান মোহাদ্দেস হিসাবে চাকুরী করেন। তৎকালীন সময়ের তিনি ছিলেন বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ ও ধর্ম প্রচারক। পরিবারে আদরের নাতি ছিলেন অ্যাড. তাহের হোসেন রুশদী।

পরিবারের প্রথম বড় নাতি হিসেবে জন্মগ্রহণ করায় বাড়ীসহ এলাকায় খুশির বন্যা বয়ে যায়। চলে মিষ্টি ও খেজুর খাওয়ার আয়োজন।

এলাকায় ছোট-বড় সকলেই আনন্দিত হয়েছিলেন। তিনি শৈশব থেকেই আদরের হয়ে বড় হন। এলাকায় তিনি বিশ্বস্ত, নম্র ও ভদ্র হিসেবে পরিচিত ছিলেন। শেষ সময়ে তিনি সবার স্যার হিসেবে পরিচিত হয়ে জীবন কাটিয়েছে।

ছাত্র জীবনে ছিলেন মেধাবী। তিনি ছাত্র অবস্থায় এলকায় বহু গরিব মানুষের বিনা ফিতে টিউশনি পড়িয়েছেন। করতেন সমাজসেবা, এছাড়াও এলাকার কোন মানুষ তার কাছে গেলে খালি হাতে ফিরে আসতেন না।

সব সময় মানুষকে আদর ও মহাব্বত করতেন এবং মানুষের দু:খের কথা শুনতেন। এছাড়াও তিনি ছিলেন একজন বিশিষ্ট আইনজীবী ও চাঁদপুর বারের সদস্য। তিনি সততার সাথে আইনজীবী পেশায় দায়িত্ব পালন করেন। এলকার বহু মানুষকে নিজের অর্থায়নে মামলা মোকাদ্দমা থেকে উদ্ধার করেছেন। তিনি এলাকার বহু মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীকে লেখাপড়ায় মনোনিবেশ করতে অর্ধ ও বিনা বেতনে পড়িয়েছেন। মরহুম অ্যাড. তাহের হোসেন রুশদী সাহেব শিক্ষা জীবনে ওস্তাদ ও শিক্ষকদের অতি শ্রদ্ধা ও ভক্তি করতেন।

তিনি নিজ গ্রামে, থানা, জেলা ও দেশের বিভিন্ন প্রত্যন্ত অঞ্চলে শিক্ষা বিস্তারের লক্ষ্যে বহু প্রতিষ্ঠানে সর্বাত্মক সহযোগিতা করেন। এছাড়াও তিনি তার বাবার প্রতিষ্ঠিত প্রতিষ্ঠান সমূহের দায়িত্ব পালন করে শিক্ষার মান উন্নয়ন করে গেছে। তার বাবার প্রতিষ্ঠিত উল্লেখযোগ্য প্রতিষ্ঠান শাহ্তলী কামিল মাদরাসা, জিলানী চিশতী কলেজ, জিলানী চিশতী উচ্চ বিদ্যালয় (বড়পীর আব্দুর কাদের জিলানী (রাঃ) ও চিশতী (রাঃ) দু-জন পীরের নামে প্রতিষ্ঠিত) যা রুশদী কলেজ নামে পরিচিত, উত্তর শাহ্তলী যোবাইদা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, উত্তর শাহ্তলী দাখিল মাদরাসা, মধ্য শাহ্তলী কাদেরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, উত্তর শাহ্তলী যোবাইদা বালক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, উত্তর শাহ্তলী যোবাইদা সরকারি (বালিকা) প্রাথমিক বিদ্যালয়, হামানকর্দ্দিতে শাহ্তলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, হাপানিয়া রুশদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মেনাপুর আগরজান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সেনগাঁও মাধ্যমিক বিদ্যালয়, লাকসাম উচ্চ বিদ্যালয়, ঢাকার দক্ষিণ মুহসেন্দী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় সমূহের সার্বিক দায়িত্ব পালনে ভূমিকায় এবং সহযোগিতায় ছিলেন তিনি।

মরহুম অ্যাড. তাহের হোসেন রুশদী চাঁদপুর সদর উপজেলার ৪নং শাহমাহমুদপুর ইউনিয়নে ইউপি চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়ে ১৯৮৫-১৯৮৯সাল পর্যন্ত সততা ও নিষ্ঠার সাথে চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন।

তিনি ১৯৬৫ খ্রি: তাঁর পিতার প্রতিষ্ঠিত শাহতলী জিলানী চিশতী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক হিসাবে শিক্ষকতা পেশায় যোগদান করেন। পরে সিনিয়র শিক্ষক হিসাবে পদোন্নতি পান ১৯৬৮খ্রিস্টাব্দে। এছাড়াও চাকুরী স্থায়ী হয় ১৯৭২ খ্রিস্টাব্দে। তিনি প্রধান শিক্ষক হিসাবে যোগদান করেন ১৯৭৪ খ্রিস্টাব্দে।

তার প্রথম এমপিওভুক্তি করা হয় ১৯৮১খ্রিস্টাব্দে। পরে চাকুরি থেকে অবসর গ্রহণ করেন ২০০৮খ্রিস্টাব্দে। পাশাপাশি অন্যান্য প্রতিষ্ঠান শাহ্তলী কামিল মাদরাসা ও জিলানী চিশতী কলেজের গভর্নিং বডি, উত্তর শাহ্তলী যোবাইদা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, মধ্য শাহ্তলী কাদেরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, উত্তর শাহ্তলী যোবাইদা বালক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির দায়িত্ব পালন করেন।

এছাড়াও তিনি ছিলেন চাঁদপুর জজ কোর্টের একজন সিনিয়র আইনজীবী ও চাঁদপুর বারের সদস্য। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি আইনজীবী পেশায় সততা ও নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করেন।

সর্বোপরি তিনি রুশদী পরিবারে একজন গর্বিত সন্তান, এলাকার সকলের স্যার, ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও জেলা জজ কোর্টের একজন সম্মানীত আইনজীবী হিসেবে পরিচিত ছিলেন। গত শত বছর যাবৎ রুশদী পরিবারটি শিক্ষার মান উন্নয়নে শাহতলীসহ চাঁদপুর ও কুমিল্লাহ অঞ্চলে ব্যাপক কাজ করে যাচ্ছেন। পারিবারিক জীবনে তিনি ছিলেন ২ছেলে ও ২মেয়ের বাবা। তিনি তার ২ছেলে ও ২মেয়েকে গেজুয়েশন শেষ করিয়ে প্রতিষ্ঠিত করে গেছেন। তার ছোট ছেলে সোহেল রুশদী (এম.এ)।

তিনি একজন শিক্ষাবিদ, সমাজসেবক ও বিশিষ্ট সাংবাদিক। দাদা বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ এ.টি আহমেদ হোসেন রুশদী ও পিতা বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও সমাজসেবক মরহুম অ্যাড. তাহের হোসেন রুশদীর আদর্শে গড়া সন্তান।

বর্তমানে তিনি চাঁদপুর জেলার শীর্ষ স্থানীয় দৈনিক চাঁদপুর খবর পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ও প্রকাশক। তিনি চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। সোহেল রুশদী তার দাদার প্রতিষ্ঠিত প্রতিষ্ঠান সমূহের দায়িত্ব পালন করছেন।

তিনি শাহ্তলী কামিল মাদরাসার গভর্নিং বডির সহ-সভাপতি, শাহতলী জিলানী চিশতী কলেজের গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান, জিলানী চিশতী উচ্চ বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি, উত্তর শাহ্তলী যোবাইদা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির দাতা সদস্য, মধ্য শাহ্তলী কাদেরীয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি, উত্তর শাহ্তলী যোবাইদা বালক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হিসেবে বর্তমানে অত্যন্ত সুনামের সহিত দায়িত্ব পালন করছেন।

বর্তমানে শাহতলীস্থ প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী চাঁদপুর-৩ এর মাননীয় সংসদ সদস্য ডাঃ দীপু মনি এমপি’র সহযোগিতায় সাংবাদিক সোহেল রুশদী সর্বাত্নক প্রচেষ্টায় প্রত্যেকটি প্রতিষ্ঠানে ৪তলা বিশিষ্ট একাডেমিক ভবন নির্মাণ করা হয়েছে এবং কোনটি উন্নয়ন চলমান আছে।

বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও বহু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা এবং কলকাতায় বৃটিশ সরকার থেকে স্বর্ণপদক ও রুশদী খেতাবে ভূষিত মরহুম এ টি আহমেদ হোসাইন রুশদীর বড় ছেলে অ্যাডভোকেট তাহের হোসেন রুশদী ২০১৮ সালের ৪ জুলাই (বুধবার) সকাল ৯ টা ৩১ মিনিটে ঢাকা শমরিতা (প্রাঃ) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না…………রাজিউন)।

পরদিন বৃহস্পতিবার (৫ জুলাই-২০১৮) খ্রিস্টাব্দ তারিখে চাঁদপুর সদর উপজেলার শাহতলী জিলানী চিশতী কলেজ মাঠে মরহুমের জানাযার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। জানাযার নামাজে হাজার হাজার মুসল্লিগনের সমাগম ঘটে।

কেউ বলে আমার প্রিয় স্যার চলে গেছে, কেউ বলে আমাদের চেয়ারম্যান সাহেবের বিদায় হয়ে গেছে। এমন করে মানুষের মুখে শুনা শোকের বাণী ও নয়নে অশ্রুর জল।

সবাইকে শোক সাগরে ভাসিয়ে চলে গেলেন অ্যাডভোকেট মরহুম তাহের হোসেন রুশদী। সেই থেকে ৪জুলাই তার মৃত্যুর তারিখ ধার্য্য করে পালিত করা হয় মৃত্যুবার্ষিকী। গতবছর অ্যাড. তাহের হোসেন রুশদীর ১ম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ৪ জুলাই শাহতলীতে নানা কর্মসূচির পালিত হয়েছে। এর মধ্যে কোরআন খতম, মরহুমের কবর জিয়ারত, স্মরণ সভা ও দোয়া অনুষ্ঠান। পরে দুপুরে ২ সহস্রাধিক লোক মধ্যাহ্ন ভোজে অংশগ্রহণ করেন।

তার নামে “অ্যাডভোকেট তাহের হোসেন রুশদী কল্যাণ ট্রাস্ট” নামে একটি ট্রাস্ট প্রতিষ্ঠা করেন তার ছোট ছেলে বিশিষ্ট সাংবাদিক সোহেল রুশদী। গতবছর তার মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে ৫০জন গরীব অসহায় শিক্ষার্থীদের মাঝে অর্থ বিতরণ করা হয়। এছাড়াও এ ট্রাস্টের আওতায় মেধাবী শিক্ষার্থীদেরকে বৃত্তি প্রদান করা হয়। এ বছর মাহে রমজানে ইফতার সামগ্রী বিতরণ করা হয়। চলমান করেনা ভাইরাস এর সময় এলকার গরিব ও অসহায়দের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়।

মৃত্যুকালে তার বয়স ছিলো ৭২ বছর। তিনি স্ত্রী, ২ ছেলে ও ২মেয়ে স্ত্রীসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে যান। দু’ ছেলের মধ্যে বড় ছেলে মো: রুবেল রুশদী (বি.এ), তিনি বগুড়া ফাইভ স্টার হোটেলের সহকারী ম্যানেজার । ছোট ছেলে সোহেল রুশদী (এম.এ), তিনি দৈনিক চাঁদপুর খবর পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ও প্রকাশক এবং চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি ।

২ মেয়ের মধ্যে বড় মেয়ে রায়হান আক্তার সুরমা (বিএ.বিএড ) সহকারী শিক্ষিকা চাঁদপুর কদমতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ছোট মেয়ে ফারহানা আক্তার সিমু (এম.এ) আমেরিকা প্রবাসী। মরহুমের স্ত্রী হোসেনে আরা বেগম (খুকু) একজন আর্দশ গৃহিনী।

আজ ৪ জুলাই -২০২০খ্রি: শনিবার অ্যাডভোকেট মরহুম তাহের হোসেন রুশদীর ২য় মৃত্যুবার্ষিকী। এ বছর করোনা ভাইরাসের কারণে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত আকারে কর্মসূচি গ্রহন করেছে স্থানীয় শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান। এদিন শাহতলী জিলানী চিশতী কলেজ মসজিদে কোরআন খতম, মরহুমের কবর জিয়ারত, মিলাদ ও দোয়া অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে ।

মরহুম তাহের হোসেন রুশদীর ২য় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে সকলের কাছে তার বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া চেয়েছেন তার ছোট ছেলে দৈনিক চাঁদপুর খবর পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ও প্রকাশক ,চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি জিলানী চিশতী কলেজের গভনিং বডির চেয়ারম্যান সোহেল রুশদী।

 

একই রকম খবর